মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮
Tuesday, 12 Jun, 2018 11:06:13 am
No icon No icon No icon

ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্মে প্রকৃত সাংবাদিকেরা ‘অসহায়’


ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্মে প্রকৃত সাংবাদিকেরা ‘অসহায়’


হারুন অর রশিদ, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: সম্প্রতি বেসরকারি একটি সংগঠনের এক গবেষণায় দেখা গেছে, বর্তমানে সারা দেশে সাংবাদিক পরিচয় দেওয়া কথিত মানবাধিকার কর্মী ও ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্য অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে চরমে পৌঁছেছে। ভুয়া সাংবাদিকেরা বিভিন্ন প্রতারণার ফাঁদ পেতে এবং গলায় তথাকথিত মানবাধিকার সংগঠনের কার্ড ঝুলিয়ে নিজেদেরকে ‘সাংবাদিক’ পরিচয় দিয়ে নিরীহ ও নিরপরাধ লোকজনকে নানাভাবে হয়রানি করছে বলেও একাধিক সংবাদপত্রে প্রায়ই খবর বেরুচ্ছে। প্রতারণা করাটাই যেন এসব নামধারী সাংবাদিকদের পেশায় পরিণত হয়েছে।সূত্র জানায়, সাংবাদিক পরিচয়ে এরা ছিনতাই, চাঁদাবাজি, জমি দখল, দোকানপাট দখল, ধর্ষণ, মাদক ব্যবসাসহ নানা অপকর্মে জড়িত হয়ে পড়ছে। এই চক্রে বেশ ক’জন নারী সদস্য রয়েছেন বলেও জানা যায়। এরা মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার ও মাইক্রোবাসে ‘প্রেস’ কিংবা ‘সংবাদপত্র’ লিখে পুলিশের সামনে দিয়েই নির্বিঘে দাবড়ে বেড়ায়। এদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ও বিভিন্ন যানবাহনও থাকে চোরাই এবং সম্পূর্ণ কাগজপত্রবিহীন।
সাংবাদিক পরিচয়দানকারী এসব নামধারী সাংবাদিকদের বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডের কারণে প্রকৃত ও পেশাদার সাংবাদিকদের ভাবমূর্তি এখন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ার উপক্রম হয়ে পড়েছে। বলা যেতে পারে, এসব ভুয়া সাংবাদিকদের দাপটের কারণে প্রকৃত ও পেশাদার সাংবাদিকরা এখন ‘অসহায়’ হয়ে পড়েছেন। খোদ পুলিশেরই সূত্র জানায়, অনেকে সাংবাদিক না হয়েও মটরসাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহনে প্রেস, সাংবাদিক কিংবা সংবাদপত্রের স্টিকার ব্যবহার করছেন। এরা সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে থানার দালালি করাসহ প্রশাসন ও পুলিশের কিছু অসাধু কর্মকর্তাদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতায় নানা ধরণের অপরাধকরে বেড়াচ্ছে। এমনকি বিভিন্ন আবাসিক হোটেল থেকে শুরু করে ফুটপাত পর্যন্ত ‘চাঁদাবাজি’ করছে সাংবাদিক নামধারী এই চক্রটি। এছাড়া, নির্বিঘে নানা অপকর্ম চালিয়ে যেতে এসব ভুয়া সাংবাদিকেরা বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নাম ব্যবহার করে একাধিক ভুয়া সংগঠনও গড়ে তুলছে। ভূয়া সাংবাদিক নিয়ে পুলিশের দেয়া বক্তব্যকে অস্বীকার না করেস্বীকৃত ও প্রতিষ্ঠিত সাংবাদিক নেতারা বলছেন, ‘ভূয়া সাংবাদিকদের সংখ্যা যে দিন দিন বাড়ছে, এটি অস্বীকার করার কোন কারণ নেই। তবে ভূয়া সাংবাদিক বাড়ার পেছনে খোদ পুলিশেরও অনেকটা ভুমিকা রয়েছে। কারণ, পুলিশের সঙ্গেই ওইসব ভূয়া ও নামধারী সাংবাদিকদের সবচেয়ে বেশী সখ্যতা রয়েছে। এদেরকে প্রায়ই থানার ভিতরে ওসি ও দারোগাদের সাথে গভীর রাত পর্যন্ত অনৈতিক আড্ডা মারতেও দেখা যায়। থানায় বিভিন্ন মামলা রেকর্ড করার সময় এইসব ভুয়া ও নামধারী সাংবাদিকেরা মামলার বাদী ও বিবাদীর পক্ষে ‘দালাল’ হিসেবে পুলিশের ঘুষ বাণিজ্যে সরাসরি সহায়তা করে থাকে। এমনকি থানায় অপরাধীদের পক্ষ নিয়ে নানা তদবির বাণিজ্য করাই যেন এদের অন্যতম প্রধান কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এসব ভুয়া সাংবাদিকদের অনেকে আবার পুলিশের ‘সোর্স’ হিসেবেও বিশ্বস্থতার সাথে কাজ করে থাক।
আমাদের প্রশ্ন, সাংবাদিক পরিচয়ে যারা নানা অপকর্ম ও প্রতারণা করছে, এসব জানার পরও ওইসব সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা কেন নিচ্ছেনা পুলিশ। সাংবাদিক নেতাদের কেউ কেউ জানান, ভুয়া সাংবাদিকেরা পুরো সাংবাদিক সমাজকেই কলংকিত করছে। তাই কেউসাংবাদিক পরিচয় দিয়ে অপকর্ম করলে, অবশ্যই এদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় নিয়ে উপযুক্ত শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।’ তবে পুলিশের একটি সূত্র জানায়, ভুয়া ও অখ্যাত পত্রিকার ভুয়া সাংবাদিক পরিচয়দানকারী এসব প্রতারকদের নানা অপতৎপরতায় থানা পুলিশও অনেক সময় ত্যক্ত, বিরক্ত ও অতিষ্ঠ হয়ে পড়ে। কিন্তু থানার অভ্যন্তরে ঘুষ বাণিজ্যে এরা পুলিশের পক্ষে অবস্থান নিয়ে সরাসরি সহায়তা করে বিধায়, পুলিশ এসব দেখেও অনেক সময় না দেখার ভান করে। অন্যদিকে স্থানীয়ভাবে কিছু প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা এমনকি এমপি মন্ত্রীদের সরাসরি ছত্রছায়ায় থেকে এসব ভুয়া সাংবাদিকদের কেউ কেউ অখ্যাত পত্রিকার ‘কার্ড’ (সাংবাদিক পরিচয়পত্র) সংগ্রহ করে নিজেদেরকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে মাদক ব্যবসা, ছিনতাই, চাঁদাবাজিতে সরাসরি জড়িত হয়ে পড়ছে। কিন্তু রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থাকার কারণে অনেক সময় পুলিশের সৎ ও দক্ষ কর্মকর্তারাও এসব অপকর্ম দেখেও ‘বদলী’ হয়ে যাওয়ার ভয়ে এসব ভূয়া সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে কোন আইনী ব্যবস্থা নিতে সাহস করেন না। তাই সাংবাদিক পরিচয়দানকারী এসব তথাকথিত মানবাধিকার কর্মী ও নামধারী সাংবাদিকদের দৌরাত্ম বন্ধে দ্রুত আইনী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তাদের প্রতি আমরা উদাত্ত আহবান জানাচ্ছি।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK