শনিবার, ১৩ অক্টোবর ২০১৮
Sunday, 10 Jun, 2018 10:08:20 am
No icon No icon No icon

আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকার সাংবাদিকরা বেপরোয়া


আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকার সাংবাদিকরা বেপরোয়া


এমএবি সুজন, বিশেষ প্রতিনিধি, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: কী হবেন আপনি? পত্রিকার মালিক, সম্পাদক না-কি সাংবাদিক! যাই হতে চান, আজই চলে যান মতিঝিলের ১ নাম্বার গলিতে। গ্যারান্টি দিয়ে বলছি, রাতারাতি আপনি হয়ে যাবেন, যা হতে চান তাই। রাজধানীর মতিঝিল এলাকার অলিতে গলিতেই চলছে এমনি সব মহড়া। সেখানে একজনই দিনে মেকআপ দিচ্ছে অর্ধশত পত্রিকার। আবার কোন কোন ব্যক্তি তো  ৫/৭ টা পত্রিকার সম্পাদক। তাদের কারো ভিজিটিং কার্ড দেখলে বোঝারই উপায় নেই, এটি ভিজিটিং কার্ড না-কি ‘টার্মিনাল’। শুধু পত্রিকারই নয়, হাজারো সাংবাদিকেরও জন্ম এখানে। এই পত্রিকার গলিতে যাওয়ার আগে দেখা যাক তথ্য মন্ত্রণালয় কী বলে। সারা দেশে অনুমোদিত টিভি চ্যানেল ৪৪টি, অনলাইন পত্রিকা ৭৫টি, এফএম রেডিও ২২টি, কমিউনিটি রেডিও ৩২টি এবং পত্রিকা রয়েছে ১ হাজার ১৮৭টি।


‘গোয়েন্দা সংবাদ সংস্থা’ বা ডিএনএ-বহু খোঁজের পর মিরপুরে অফিস পাওয়া গেলেও, অফিসে পাওয়া যায়নি কাউকে। দৈনিক বাংলার দূত, অপরাধ জগৎ প্রতিদিন’র-ও একই অবস্থা। আর এসব পত্রিকার সাংবাদিক হওয়ার জন্য ২০০ থেকে হাজার টাকাই যথেষ্ট। নাম প্রকাশ না করা শর্তে সাংবাদিক হওয়ার  ব্যাপারে একজন জানান, তিনি ৩০০ টাকায় সাংবাদিকের আইডি কার্ড নিয়েছেন। পেশায় তিনি মোবাইলে টাকা রিচার্জ করলেও, এখন অপরাধ বিষয়ক সাংবাদিক। ‘পল্লীবন্ধু’ এটি পত্রিকার মেকআপ দেয়ার কারখানা।

আর এই পল্লীবন্ধুর সাইনবোর্ডে লেখা রয়েছে, এখানে যত্নসহকারে মাসিক, দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকার মেকআপ দেয়া হয়। বিষয়টি হয়তো মন্দ নয় তবে এই পল্লীবন্ধুর মেকআপ মাস্টোরই আবার ‘আমার বাংলা টিভি’র জয়েন্ট এডিটর। আবার ‘দ্য ডেইলি বাংলার ধ্বনি’রও ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক।

এখানে তো আবার, বাংলা ভিশন হয়ে গেছে ভিশন বাংলা টুয়েন্টিফোর, সঙ্গে পুনরুত্থান নামের এক পত্রিকা। ভিজিটিং কার্ড মতে উনার নাম আসাদ্দুজামান। ইনি তো আবার ‘স্টার মিডিয়া’ নামের এক মিডিয়ার মালিক। মিডিয়া মোগল বললেও ভুল হবে না হয়তো। তার হয়েছে একটি অনলাইন-ক্রাইম নিউজ টুয়েন্টিফোর। দৈনিক গণ তদন্ত, সাপ্তাহিক সামাল, শুধু তাই নয়, চ্যানেল সিক্টিনেও কাজ করেন তিনি।


এ প্রসঙ্গে অবশেষে পরিচয় গোপন রাখার শর্তে কথা বলতে রাজি হলেন এক ম্যাকাপম্যান। তিনি বলেন, ‘আমি দিনে ২০/৩০টা পত্রিকার মেকআপ দিই। এর মধ্যে সাপ্তাহিক, দৈনিক, মাসিক সবই রয়েছে।’ কেমন লাগে এ কাজ? জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা ভাই টাকার জন্য কাজ করি।


এ সব পত্রিকার প্রসঙ্গে বলেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে মাঝে মধ্যে আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকার হলুদ সাংবাদিকতা নিয়ে অভিযোগ আসে। তাছাড়া আমি ব্যক্তিগতভাবে আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকার সমর্থন করি না। সরকারের উচিৎ এসব পত্রিকাগুলো মনিটর করা। তাদের অনুমোদন দেয়ার পর মানগুলোও যাচাই করা দরকার।’

 

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK