সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯
Friday, 19 Jul, 2019 10:59:49 pm
No icon No icon No icon

বন্যার গ্রাসে ২৪ জেলা

//

বন্যার গ্রাসে ২৪ জেলা


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: যমুনা নদীর পানি জামালপুরের বাহাদুরাবাদ ও গাইবান্ধার ফুলছড়ি এবং তিস্তার পানি ডালিয়া পয়েন্টে গত ৫০ বছরের সব রেকর্ড ভেঙে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ী, ফরিদপুর ও মুন্সীগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা করা হয়েছে। অনেক জায়গায় পানি কমতে শুরু করলেও বিভিন্ন নদীর পানি এখনও বিপদসীমার ওপরে রয়েছে। আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দেশের মধ্যাঞ্চলের নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কার কথা জানিয়েছে বন্যা সতর্কীকরণ ও পূর্বাভাস কেন্দ্র। আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের মধ্যাঞ্চলের আরও চার জেলা প্লাবিত হতে পারে। ফলে দেশের ২৪ জেলা বন্যায় প্লাবিত হয়ে পড়বে। শীতলক্ষ্যা ও বালু নদীর পানি বাড়তে থাকায় রাজধানীর আশপাশের নিচু এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। দুই সপ্তাহের বন্যায় আমনের বীজতলা, বিভিন্ন ফসলের জমি তলিয়ে গেছে। ভেসে গেছে পুকুরের মাছ। বানের পানি প্রবেশ করায় সারাদেশে প্রায় পাঁচ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে আছে। বন্যাদুর্গত এলাকায় লাখো মানুষ দুর্ভোগে। বিশুদ্ধ পানি ও ত্রাণের সংকট প্রকট হয়ে উঠছে। বন্যায় প্লাবিত এলাকাগুলোকে 'দুর্গত' এলাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন সংগঠন।
কলমাকান্দার উন্নয়নকর্মী মানিক সরকার কলমাকান্দা-দুর্গাপুর ও হাওরাঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানান। তিনি বলেন, এসব এলাকার পানিবন্দি মানুষ ত্রাণের দেখা পায়নি। গরু-ছাগল নিয়ে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে।
বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, শুক্রবার সকালে যমুনার পানি বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে বিপদসীমার ১৬০ সেন্টিমিটার, সারিয়াকান্দিতে ১২৬, কাজীপুরে ১২১ ও সিরাজগঞ্জে ৯৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। গঙ্গা-পদ্মা অববাহিকায় নদ-নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদ, জামালপুর এবং পদ্মা নদীর পানি সুরেশ্বর পয়েন্টে বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে। জামালপুরের বকশীগঞ্জে বন্যার পানিতে ডুবে শুক্রবার আবু বক্কর নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। কুড়িগ্রামের উলিপুরে মারা গেছে সিমু নামের দেড় বছরের এক শিশু।
রেললাইন তলিয়ে যাওয়ায় জামালপুর-দেওয়ানগঞ্জ, জামালপুর-তারাকান্দি হয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু লাইনে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। মাদারগঞ্জের চর নাদাগাড়ীতে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে নতুন করে ৩০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। শেরপুরে বাঁধ ভেঙে নতুন নতুন এলাকা তলিয়ে গেছে। পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় শেরপুরে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। শেরপুর-জামালপুর মহাসড়ক তলিয়ে যাওয়ায় শুক্রবার সকাল থেকে শেরপুর থেকে জামালপুর হয়ে রাজধানীসহ উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। টাঙ্গাইলের ভুয়াপুরে দুটি বাঁধ ভেঙে নতুন করে আরও ২০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।
শুক্রবার পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, তাদের ৯৩টি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের মধ্যে ৪৫টি পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমায় পৌঁছে যাচ্ছে। আর ৪৭টি পয়েন্টে পানি সমতল হ্রাস পাচ্ছে। ২২টি পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে। অপরিবর্তিত আছে একটি পয়েন্টে।
পাউবোর বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, যমুনা এবং গঙ্গা-পদ্মা ছাড়া দেশের সব প্রধান নদ-নদীর পানি সমতল হ্রাস পাচ্ছে। উজানে ভারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা নেই। তবে ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। গঙ্গা ও পদ্মা অববাহিকায় আগামী ২৪ ঘণ্টা পানি বাড়বে। শীতলক্ষ্যা নদী লাখপুরে শনিবার বিপদসীমা অতিক্রম করবে। তিনি বলেন, এ বছর বাংলাদেশ ছাড়াও ভারতের আসাম, মেঘালয়, ত্রিপুরা, বিহার, নেপাল ও মিয়ানমারে একই সময়ে বৃষ্টিপাত ও বন্যা হওয়ায় বন্যার প্রকোপটা বেশি দেখা যাচ্ছে।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK