demo
Times24.net
মিথ্যা মামলা ও জীবন রক্ষায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপের দাবি
Wednesday, 31 Jul 2019 16:30 pm
Times24.net

Times24.net


খন্দকার হানিফ রাজা, বিশেষ প্রতিনিধি, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: সন্ত্রাসী মাদক ব্যবসায়ীদের হামলা থেকে বেঁচে গিয়েও তাদের হাত থেকে জীবন বাঁচাতে স্বপরিবারে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। তাদের ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা থেকে রেহাই পেতে ও জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের আইজিপির জরুরী হস্তক্ষেপের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী রনি সরকার। ৩১ জুলাই বুধবার সকালে সেগুনবাগিচার ক্রাইম রিপোর্টার্স বহুমূখী সমবায় সমিতি মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে তদন্তপূর্বক কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে এই আবেদন জানান তিনি। লিখিত বক্তব্যে রনি সরকার জানান, মাদক ব্যবসায়ী ও হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী সবুজের নির্দেশনায় ইন্টারনেট ও ডিস ব্যবসা দখল করতে স্থানীয় সন্ত্রাসী টিএন্ডটি মনির, রহিম, ভাড়াটিয়া খুনি রবিন সর্দার তাকে হত্যার পরিকল্পনা করে। এ উদ্দেশ্যে গত ১৮ জুলাই প্রকাশ্য দিবালোকে দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে ৪০/৫০ জন সন্ত্রাসীসহ তার তেলিপাড়া এলাকার বাড়ীতে হামলা চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা গুলি বর্ষণ ও ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্কের সৃষ্টি করে, যাতে এলাকাবাসী এগিয়ে আসার সাহস না পায়। তারা আতঙ্ক সৃষ্টি করতে বাড়ীর পাশের হোমিও কলেজে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। পরে পুলিশ ও র‌্যাবকে ঘটনাটি জানালে তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় তিনি স্থানীয় বাসন থানায় মামলা করেন। এর ২দিন পর মামলার ৮নম্বর আসামীর পিতা কাউন্টার হিসেবে তার নামে একটি মিথ্যা চাঁদাবাজি মামলা করেন। যে মামলায় বর্তমানে তিনি জামিনে রয়েছেন। 
তিনি আরো জানান, সন্ত্রাসী সবুজ ও তার সহযোগীরা প্রায় ২বছর পূর্বে তার নির্মাণাধীন বাড়ীতে দুইটি পিস্তল রেখে পুলিশ ডেকে তাকে গ্রেফতার করায়। ওই সময় তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজারকে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। পরবর্তীতে গাজীপুরের সাবেক এসপি হারুন অর রশীদের নির্দেশনায় তদন্তে প্রকৃত সত্য বেরিয়ে আসে এবং সবুজসহ তিন জনের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে অস্ত্র মামলা দেয়। বিষয়টি তৎকালীন সময়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। কিন্তু সন্ত্রাসীরা প্রভাবশালীদের মদদে থাকায় এখন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়নি। এতে সবুজের সন্ত্রাসী বাহিনী বেপরোয়া হয়ে তার ইন্টারনেট ও ডিস ব্যবসা দখল করার জন্য তাকে হত্যার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। 
তিনি জানান, তারা এলাকায় মাদক ছড়িয়ে যুব সমাজকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছে। প্রকাশ্যেই নিজেরা একত্রিত হয়ে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এলাকা ভাগাভাগি করে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় সন্ত্রাসী মাদক ব্যবসায়ীরা তাকে হত্যার চেষ্টা চালাচ্ছে। তাকে মামলা তুলে আপোষ মীমাংসার জন্য ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে, তানা হলে সবাইকে হত্যার হুমকি দেয়া অব্যাহত রেখেছে। এছাড়াও তাকে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে অপরাধী বানানোর চেষ্টা করছে। বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের আইজিপির হস্তক্ষেপের দাবি জানান তিনি।