demo
Times24.net
তিনদিনের মাথায় ধর্ণা তুলে নিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী
Wednesday, 06 Feb 2019 00:20 am
Times24.net

Times24.net


টাইমস ২৪ ডটনেট, ভারত: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ কমিশনারের বাসায় কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার (সিবিআই) হানার প্রতিবাদে কোলকাতার মেট্রো চ্যানেলের ধর্ণা-অবস্থান প্রত্যাহার করে নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।মঙ্গলবার সন্ধ্যায় অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডুকে পাশে নিয়ে ধর্ণা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা দেন তিনি। তৃণমূল নেত্রী বলেন, "মহাজোটের অনুরোধ মেনেই তিনদিনের মাথায় সত্যাগ্রহ কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হলো। ভারতের গণতন্ত্রকে বাঁচানোর লক্ষ্যে ছিল এই ধর্ণা। এই ধর্ণা কোনোভাবেই রাজনৈতিক ধর্ণা ছিল না। এই ধর্ণা ছিল ভারতকে রক্ষার উদ্দেশে। সেভ ইন্ডিয়া ব্যানারে এই ধর্ণা ছিল আইপিএস ও আইএএসদের সম্মান রক্ষার জন্য।"মমতা বলেন, "সব বিরোধীরা সমর্থন জানিয়েছেন এই ধর্ণায়। বহু সরকারি সংগঠন, সোশ্যাল ওয়ালফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন এই ধর্ণাকে সমর্থন জানিয়েছেন। পাশে থাকার জন্য ধর্ণা প্রত্যাহারের মুহূর্তে সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানাই।"একইসঙ্গে, পরবর্তী কর্মসূচির কথাও ঘোষণা করেন মমতা।মমতা জানান, ১৩ বা ১৪ ফেব্রুয়ারি দিল্লিতে বিরোধীদের সভা হবে। তার পরই পরবর্তী কর্মসূচি নির্ধারণ করা হবে।এসময় মমতা বলেন, মোদির এক নায়কতন্ত্রের প্রতিবাদে আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তিনি। আগামী ১৩ ও ১৪ ফেব্রুয়ারি দিল্লিতে ধর্ণা কর্মসূচি করবেন তিনি। সেই ধর্ণায় সামিল হবেন মহাজোটের সব রাজনৈতিক দল। 
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা সাফ জানিয়ে দেন, মোদিকে পদ থেকে হঠাতেই হবে। দেশে গণতন্ত্র নয়, একনায়কতন্ত্র চলছে। এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে সব রাজনৈতিক দলগুলোকে একজোট হওয়ার বার্তা দিয়ে দিল্লির মঞ্চ থেকে মোদিবিরোধী আন্দোলন আরো জোরদার করার ডাক দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
গত রোববার সন্ধ্যায় চিটফান্ড তদন্তে কোলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়িতে জেরা করতে যায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। সেই সময় সিবিআইয়ের সদস্যদের বাধা দেয় কলকাতা পুলিশ। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। যার জেরে সিবিআই কর্মকর্তাদের আটক করে কলকাতা পুলিশ। তার পরই ঘটনাস্থলে এসে ক্ষোভ প্রকাশ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই ঘটনার প্রতিবাদে রোববার রাত ৮টা ৪০ মিনিট থেকে কলকাতার মেট্রো চ্যানেলে নেতা ও সমর্থকদের নিয়ে সত্যাগ্রহ আন্দোলন শুরু করেন মমতা। আজ সন্ধ্যায় অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডুকে পাশে নিয়ে ধর্ণা প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা দেন তিনি।

সূত্র: পার্সটুডে।