রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮
Thursday, 13 Sep, 2018 06:07:36 pm
No icon No icon No icon
মুন্সিগঞ্জ ও গজারিয়ায় গণসংযোগ করছেন

গজারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা


গজারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : মুন্সিগঞ্জ ও গজারিয়ার বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করছেন গজারিয়া উপজেলা পরিষদের সফল চেয়ারম্যান মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা। তারুণ্যের অহংকার, অত্যন্ত মেধাবী এবং দুঃসাহসিক এক নাবিক। মহাসমুদ্রের ঘুর্ণিঝড়েও হাল ধরতে জানেন তিনি। লক্ষভ্রষ্ট কখনোই হননি। বরং সব সময় দুঃসাহসিক অভিযাত্রায় সফল হয়েছেন বার বার। তারই ধারাবাহিকতায় আজ তিনি গজারিয়া উপজেলা পরিষদের সফল চেয়ারম্যান। তারুণ্য দীপ্ত রেফায়েত উল্লাহ খান এক নাগারে ১০ বছর চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে অর্জন করেছেন গজারিয়াবাসীর হৃদয়। গজারিয়াবাসীর সুখ দুঃখের সাথী তিনি। বিগত দিনে যারা বিভিন্ন সময় জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে গজারিয়াবাসীকে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন, কিন্তু কখনও বাস্তব রূপ দিতে পারেননি। সহজ সরল মানুষকে জিম্মি করে জনপ্রতিনিধি হয়ে তারা আর পাশে দাঁড়াননি। এরকম নজির স্থাপন করতে চান না মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা। তিনি গজারিয়াবাসীকে স্বপ্ন দেখিয়েছেন এবং সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নও করেছেন। প্রশাসন থেকে শুরু করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও তা জানেন। নিজের শ্রম, মেধা ও অর্থ দিয়ে হলেও প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছেন। তিনি কখনোই নিজের সুখ দুঃখের কথা চিন্তা করেননি। তিনি দৃঢ়তার সাথে বলেছেন, গজারিয়ার সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক। একই আত্মার আত্মীয় আমরা। সুখে দুঃখে তাদের পাশে থেকে আজীবন সেবা করতে চাই। আমি কখনোই ক্ষমতার কাঙাল নই। সাধারণ মানুষের কাতারে থেকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে গজারিয়াকে নতুন করে সাজাতে চাই।
মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা বিভিন্ন কর্মী সমাবেশ ও সাধারণ মানুষের সাথে গণসংযোগে বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গজারিয়ার মানুষের প্রতিনিধি হিসেবে সংসদ নির্বাচনে মুন্সিগঞ্জ-৩ আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন এবং তা অবশ্যই আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক নিয়ে। তিনি বলেছেন, ১৯৭০ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নৌকা প্রতীক দিয়েছিলেন। সেইবার আমরা পাশ করেছিলাম। ১৯৭৩ সালেও জাতির জনক আমাদের নৌকা প্রতীক দিয়েছিলেন। সেবারও আমরা নৌকা উপহার দিতে পেরেছিলাম। পরবর্তীতে এ পর্যন্ত ৭বার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আমরা মাত্র ২বার এ আসন জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে পেরেছি। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, গজারিয়াবাসীর প্রাণের দাবী, মনের দাবী, জনগণের দাবী এবং আমার দাবীÑ গজারিয়া উপজেলাবাসীর দাবী আমাকে নৌকা প্রতীক দিলে এবং আমি প্রার্থী হলে অবশ্যই জননেত্রী শেখ হাসিনাকে এই আসন উপহার দিতে পারবো। তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে প্রার্থী হিসেবে নৌকা দেন আমি নির্বাচনে অংশ নেব, নির্বাচনে আরো বিপুল পরিমাণ ভোটে জয়ী হবো এবং গজারিয়াবাসী সেই আশায় বুক বেঁধে জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণার অপেক্ষায় আছে।
আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনে দলীয় মনোনয়ন চান গজারিয়া উপজেলা পরিষদের সফল চেয়ারম্যান রেফায়েত উল্লাহ খান (তোতা)। রাজপথের ত্যাগী ও পরিক্ষিত নেতা মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে যিনি আজীবন আওয়ামী লীগের অঙ্গ-সংগঠন যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের পতাকাতলে থেকে নিভৃতে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি আগামী দিনে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার জন্য সর্বসাধারণের প্রতি আহবান জানান। মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা দীর্ঘদিন ধরে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের সাথে যুক্ত। তিনি দলের বিভিন্ন কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত ছিলেন। এখনও তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখতে ও সোনার বাংলা গড়তে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও রাজাকারমুক্ত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে এবং উন্নয়ন অগ্রগতি অব্যাহত রাখার স্বার্থে শেখ হাসিনার সরকার পুনরায় আসা প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন। ইতোমধ্যে তিনি গজারিয়া উপজেলার জনপ্রিয় আওয়ামী লীগ নেতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, আধুনিক গজারিয়া রূপকার ও উপজেলা পরিষদের সফল চেয়ারম্যান এলাকার মানুষের সুখে দুঃখে সব সময় পাশে থেকেছেন। একজন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে নয়, এলাকার একজন মানুষ হিসেবে তিনি দলমত নির্বিশেষে সকল মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন। বিশেষ করে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নৈতিকতা ও শিষ্ঠাচার বিষয়ে বিশেষভাবে নজর দেয়া হয়। মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতার একক প্রচেষ্টায় মাদকসহ অনৈতিক কর্মকান্ড নির্মূল হয়েছে। সাধারণ মানুষ আশা করেনÑ নিবেদিত প্রাণ এই মানুষটি যেন মুন্সিগঞ্জ-৩ আসন থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কা পেয়ে তাদের দীর্ঘদিনের আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটাবেন।
এ প্রসঙ্গে মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার জনগণের কল্যাণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তার সময়োচিত পদক্ষেপ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে আজ স্বপ্নের পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের পথে। রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় ফ্লাইওভার,  স্বপ্নের মেট্রো রেলের কাজ শুরু হয়েছে। রাস্তা-ঘাট ও অসংখ্য সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট চালু হয়েছে। অর্থনীতি আজ বিকশিত হয়েছে। সবই সম্ভব হয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনার কারণে। তিনি বলেন মহাজোট সরকারের সময়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা হয়েছে। যারা মানবতাবিরোধী অপরাধের সাথে যুক্ত ছিলেন তাদের কর্মের ফল হিসেবে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও ফাঁসি কার্যকর হয়েছে।
গজারিয়াবাসী এই মুহুর্তে জনপ্রতিনিধি হিসেবে জাতীয় সংসদে দেখতে চান মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতাকে। তারা সমস্বরে এই দাবী বাস্তবায়নে একজোট হয়েছেন। অতীতের কথা স্মরণ করে তারা মন্তব্য করেছেন, মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনে তারা গজারিয়ার সন্তানকেই চান। কেননা মেঘনার কোল জুড়ে নানা ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্যে দিয়ে গজারিয়া তার আপন গতিতে চলছিল। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। গজারিয়া এখন একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্প অঞ্চল। আর এ অঞ্চলের মানুষের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যিনি বরাবরই স্বোচ্চার তিনি হলেন মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা। কেননা তিনি মেধা আর মননে তরুণ বয়স থেকেই সংগ্রাম করে আজ প্রতিষ্ঠিত। তিনি একজন তরুণ শিল্পপতি ও শিল্প উদ্যোক্তা। বর্তমান সময়ে বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশের মধ্যে শিল্প বাণিজ্য প্রসারে তার প্রতিষ্ঠান বরাবরই অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছেন। একজন এমপি হিসেবে তিনি নির্বাচিত হলে গজারিয়া হবে ঢাকার বুকে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শিল্প অঞ্চল। তিনি জানেন কিভাবে মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা যায়। তাই দলাদলি নয়, বিরোধ নয়, সত্যিকারের দেশপ্রেমিক হিসেবে গজারিয়াবাসী মো. রেফায়েত উল্লাহ খান তোতাকে এমপি হিসেবে দেখতে চায়।

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK