বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Wednesday, 12 Jun, 2019 06:20:28 pm
No icon No icon No icon

লিডারশীপ এর খুঁটিনাটি!

//

লিডারশীপ এর খুঁটিনাটি!

জাকিরুল আলম জাকির: নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতা সকলের থাকে না। হাতেগোনা কিছু মানুষের মধ্যে এই ক্ষমতাটি থাকে। এজন্য প্রাচীনকালে মনে করা হতো, নেতা যারা হতে পারে তারা জন্ম থেকেই এই ক্ষমতাটি অর্জন করে , অনেকেই আছে যারা নিজেদের প্রবল প্রচেষ্টার মাধ্যমে অনেকের মধ্য থেকে নিজেকে নেতা হিসেবে তুলে ধরে।কিন্তু কী উপায়ে একজন মানুষকে একজন যোগ্য নেতা হিসেবে গড়ে তোলা যায় এবং নেতৃত্বদানের ক্ষমতাটিকে কীভাবে নিজের মধ্যে সৃষ্টি করবে???

১. শিক্ষনীয় বই পড়ার পাশাপাশি আমাদের চারপাশের পরিবেশ আর মানুষ থেকে শেখার অনেক কিছুই আছে। একজন যোগ্য নেতা এই সুযোগটির পুরোপুরি সদ্ব্যবহার করে ,কিন্তু একজন নেতা হতে হলে আপনাকে অনেক দিকেই দৃষ্টি দিতে হবে।
অন্যের অভিজ্ঞতার মাঝে যদি শেখার কিছু থাকে তাহলে সেখান থেকেও শিক্ষা নিতে হবে। শিখতে যদি দ্বিধা করো তাহলে আপনি কোনদিন নেতৃত্ব দেয়ার গুণটি ফুটিয়ে তুলতে পারবেন না।
আপনি যত বেশি শিখবেন, নানারকম অবস্থার সাথে আপনি ততই খাপ খাইয়ে নিতে পারবেন। আপনি যত বেশি শিখবেন তত ভালোভাবে মানুষ চিনতে পারবেন। তাই নিজেকে একজন নেতা হিসেবে গড়ে তুলতে চাইলে যে কোন কিছু থেকে শিক্ষা নিতে দ্বিধা করবেন না........

২. একজন নেতা হিসেবে আপনাকে অনেক মানুষের সাথে কাজ করতে হবে। তারা হতে পারে সহকর্মী, হতে পারে ঊর্ধ্বতন বা অধীনস্থ কেউ। যোগ্য নেতা হয়ে উঠতে চাইলে মানুষকে বুঝতে পারার ক্ষমতাটি থাকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।
একজন মানুষের আবেগ-অনুভূতি বুঝতে পারা ও সেই অনুযায়ী তার সাথে কাজ করা, কারো ভেতরের সুপ্ত প্রতিভা গুলোকে বুঝতে পারা আর সেই ক্ষমতাকে কাজে লাগানোর জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করা এগুলো একজন নেতার নিজের যোগ্যতাকেই ফুটিয়ে তোলে।
যদি মানুষকে বুঝতে চান তাহলে মানুষের সাথে নিঃস্বার্থভাবে মিশতে হবে, তাদের সাথে কথা বলা, তাদেরকে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা জরুরি। তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন কখন কার সাথে কীভাবে কথা বলতে হবে বা কাকে কীভাবে মূল্যায়ন করতে হবে.....

৩. নেতার কাজ হচ্ছে তার সাথে যারা কাজ করে তারা কোন কাজে ভালো তা তাদের সামনে তুলে ধরা এবং সেগুলো কাজে লাগাতে সাহায্য করা। সেই সাথে তাদের দুর্বলতাগুলো চিহ্নিত করে সেগুলোকে শক্তিতে পরিণত করার উপায় দেখিয়ে দেয়া
এর ফলে অনেকভাবেই লাভ হয়। প্রথমত, সবাই বুঝতে পারে তাদের কথা আলাদা করে ভাবা হচ্ছে। এতে করে তাদের উদ্যম বেড়ে যায়।
দ্বিতীয়ত, এর মাধ্যমে সবাই আপনাকে অন্যদের চেয়ে আলাদা চোখে দেখা শুরু করবে। তৃতীয়ত, তাদের সামর্থ্যের জায়গাগুলো আপনাকে কাজে লাগাতে পারবে। এতে করে একটি সুন্দর ভারসাম্যপূর্ণ টিম গড়ে উঠবে,আপনার আশেপাশে সহকর্মী কিম্বা সহযোদ্ধা রয়েছে তাদের এই বিষয়ে সাহায্য করতে পারেন। নানা বিষয়ে তাদের পরামর্শ দিয়ে আস্থা তৈরি করে নিতে পারেন।

৪. একজন নেতার অনেকগুলো গুণের মধ্যে একটি হচ্ছে, একটা জিনিসকে বিভিন্ন দিক থেকে বিভিন্নভাবে ভাবতে চিন্তাভাবনা করা, একটি ঘটনা বিভিন্ন কারণে ঘটতে পারে। আপনি যেটি ভাবছেন সেটি কারণ নাও হতে পারে। যখন আপনি একটি ঘটনাকে বিভিন্ন দিক থেকে বিচার করবে তখনই আপনি আসল কারণ বুঝতে পারবেন। আর এর মাধ্যমে কারণ আর কার্যকারণ সম্পর্কে ধারণা বাড়বে। তাই নেতা হিসেবে গড়ে উঠতে চাইলে এখন থেকেই সবকিছু ঠান্ডা মাথায় পর্যালোচনা করার চর্চা শুরু করতে হবে।  এতে করে শেখা হবে আর যাচাই করার ক্ষমতাও বাড়বে।

৫. একটু অন্যভাবে চিন্তা করে নতুন কিছু করার চেষ্টা করাটা একজন নেতার বৈশিষ্ট্যকেই ফুটিয়ে তোলে। অনেক সময় ধরে চলে আসা একটি সাধারণ কার্যপ্রণালী মেনে চলার বদলে কীভাবে তা পরিবর্তন করে আরো ভালো ফল পাওয়া যায়- একজন নেতার মাথায় এই চিন্তা থাকাটা খুবই জরুরী, পৃথিবীর বড় বড় নেতাদের জীবনী পড়লে আমরা এই জিনিসটি দেখতে পাই। হোক রাজনীতি অথবা ব্যবসা অথবা খেলাধুলা, তারা সবাই কোন না কোন পরিবর্তনের কথা ভেবেছেন যেটি সবার জন্য ভাল হবে। নিজেকে যদি নেতা হিসেবে গড়ে তুলতে চাও তাহলে তোমাকেও একটু অন্যভাবে চিন্তা করার চেষ্টা করতে হবে। কোন কিছুতে একটি সাধারণ কার্যপদ্ধতি মেনে চলা উচিত, কিন্তু সেই সাথে এটাও চিন্তা করা উচিত যে কীভাবে কাজ করলে আরো ভালো ফল আসবে। তাই দেরি না করে নতুন কিছু করার চেষ্টা শুরু করো আজ থেকেই,একজন নেতার বৈশিষ্ট্য মাত্র এই পাঁচটি জিনিসই নয়।

একজন নেতা সবসময় চেষ্টা করে কীভাবে নিজেকে আরো ভালোভাবে গড়ে তোলা যায়, কীভাবে নতুন কিছু জানা যায়, কীভাবে নতুন কোন সুযোগ বের করা যায়, কীভাবে কোন কিছুকে আরো সহজবোধ্য করে তোলা যায়। তবে উপরের এই পাঁচটি অভ্যাস চর্চা করলে বাকি অনেক কিছুই আস্তে আস্তে আয়ত্বে আসে। নেতৃত্ব শুধু রাজনৈতিক কোন ব্যাপার নয়, এটি আরো অনেক বিস্তৃত একটি ধারণা। যে কোন ক্ষেত্রেই নিজেকে আর দশজনের চেয়ে আলাদা করে প্রমাণ করতে পারলে তাকে নেতা বলা যায়। নেতা হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে চাইলে ঠিকভাবে কাজ করে সহকর্মীদের আস্থা আর বিশ্বাস অর্জন করতে হবে। আর তাহলে মানুষই তোমাকে নেতার আসনে বসিয়ে দেবে।
সর্বোপরি সমষ্টিগতভাবে কার্যপ্রণালী সম্পাদন করতে চেইন অফ কমান্ড অবশ্যই মানতে হবে, দলনেতার রাজনৈতিক বিভিন্ন কৌশলগত কারণ অবশ্যই থাকবে সেটা যদি নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে হয় সেগুলো মানার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে, তাহলে নিজের মাঝে সৃষ্টি হবে নেতৃত্তের মত বিশাল একটি গুণ আর এই গুণ পরবর্তীতে নিজেকে নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

লেখক: সিনিয়র সদস্য, আহবায়ক কমিটি, সিলেট মহানগর যুবলীগ।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK