বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯
Monday, 18 Mar, 2019 05:12:16 pm
No icon No icon No icon

চাংখারপুল মোড়ের অসহনীয় যানজট ও জনদুর্ভোগ

//

চাংখারপুল মোড়ের অসহনীয় যানজট ও জনদুর্ভোগ

আশিফুল ইসলাম জিন্নাহ: ঘনবসতিপূর্ণ ঢাকা ও অন্যান্য শহরের ক্ষেত্রে সরকার ও সিটি কর্পোরেশান কর্তৃপক্ষের উচিত যেকোন স্থানে যেকোন সরকারী বৃহৎ/মধ্যম ভবন/অবকাঠামো/স্থাপত্য নির্মাণ করার পূর্বে/সময় পার্শ্ববর্তী চারপাশের সড়কের দিকে কিছু জায়গা ছেড়ে সড়ক প্রশস্ত করার পরিকল্পনা প্রণয়নের উপর সর্বাধিক অগ্রাধিকার দিতে হবে। কারণ এত বড় বড় সরকারী প্রশাসনিক ভবন/মার্কেট/স্থাপনা দিয়ে কি হবে যদি অত্র এলাকার স্থানীয়/আমরা সাধারণ জনগণ এইসব ভবন/মার্কেট/স্থাপনার পাশের একটু প্রশস্ত রাস্তা দিয়ে স্বাচ্ছন্দ্যে চলতে ফিরতে নাই পারি। 

প্রথমত হানিফ ফ্লাইওভারের ঢালু পলাশী মোড়ের দিকে না নামিয়ে তার পূর্বে পুরান ঢাকার অন্যতম জনবহুল, ব্যস্ত যানজট প্রধান এলাকা চাংখারপুল মোড়ের দিকে নামানোর ফলে চাংখারপুল মোড় সংলগ্ন চারপাশের বিভিন্ন রাস্তার যানজট স্থায়ীভাবে প্রকট আকার ধারন করেছে এবং পুরান ঢাকার মানুষের জনদুর্ভোগ আরো আরো বেড়েছে। 

সারা ঢাকার প্রধান পাইকারী ব্যবসার আদি কেন্দ্র চকবাজার, ইমামগঞ্জ, মিডফোর্ড যেতে ও বেরুতে প্রধানত চাংখারপুল মোড়ের নাজিমুদ্দীন রোড দিয়ে সাধারণত অধিকাংশ  ঢুকতে এবং বেরুতে হয়। বিশেষত নব্বই দশকের পর পুরান ঢাকার সব এলাকার জনসংখ্যা ও ঘনবসতি বহুগুণ বেড়েছে।

দ্বিতীয়ত হানিফ ফ্লাইওভারের ট্রাফিক সিগনাল ও জ্যাম ছাড়াও নাজিমুদ্দিন রোড এবং শহীদুল্লাহ হল বরাবর রোডের দুই পাশের সংকীর্ণ রাস্তাও চাংখারপুল মোড়ের নিত্যদিনের অসহনীয় জ্যামের অন্যতম/দ্বিতীয় প্রধান কারণ। 

তৃতীয়ত চাংখারপুল মোড়ের দুই পাশের একপাশে মানে নাজিমুদ্দীন রোডের প্রবেশ মুখের ডানপাশে বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. এ. আজিজ সুপার মার্কেট নির্মিত হচ্ছে এবং অপরদিকে মানে শহীদুল্লাহ হল রোডের প্রবেশ মুখের বামপাশের শেখ হাসিনা বার্ণ এন্ড সার্জারী ইন্সটিটিউট ভবনটি উদ্বোধন করা হয়েছে এবং এর সামনে ঢাকা মেডিকেল ও বঙ্গবাজার বরাবর রাস্তাটি খুলে দেয়া হয়েছে। কিন্তু অদূর ভবিষ্যতে যখন এই দুই বৃহৎ প্রতিষ্ঠান ও মার্কেট ভবন পরিপূর্ণভাবে চালু হবে তখন চাংখারপুল মোড়ের চারপাশের সব রাস্তার যানজট আরো ভয়াবহ রূপ ধারন করবে নিশ্চিতভাবে। এই ব্যাপারটিকে কি সরকার ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশান কর্তৃপক্ষ কখনো দূরদর্শিতার সাথে ভেবে দেখেছেন?

বর্তমান এবং ভবিষ্যতের কথা বিবেচনায় রেখে সরকার এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশানের উচিত চাংখারপুল-শহীদুল্লাহ হল মোড়ের দুই পাশের সংকীর্ণ রাস্তাকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দ্রুত প্রশস্ত করার উদ্যেগ গ্রহন এবং বাস্তবায়ন করার উপর গুরুত্বারোপ করা। তারা চাইলে, আন্তরিক হলে পরিকল্পিতভাবে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন করে স্বল্প খরচে এবং সাধ্যের মধ্যেই চাংখারপুল মোড়ের নিত্যদিনের অসহনীয় যানজট সমস্যা ও জনদুর্ভোগের সুষ্ঠু স্থায়ী সমাধান করতে পারে এবং এ থেকে পুরান ঢাকার অত্র এলাকার মানুষকে মুক্তি দিতে পারে। এজন্য তারা নাজিমুদ্দিন রোডের মুখ সংলগ্ন নির্মানাধীন বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ আজিজ সুপার মার্কেটের জমি থেকে(৫)পাঁচ ফিট জমি এবং শহীদুল্লাহ হল রোডের মুখ সংলগ্ন বার্ণ ও সার্জারী ইন্সিটিটিউটের জমি থেকে(৫)পাঁচ ফিট জমি চাংখারপুলের দুইপাশের রাস্তার দিকে ছেড়ে দিয়ে চাংখারপুলের দুই পাশের রাস্তা প্রশস্ত করার ব্যবস্থা করতে হবে। 

এতে করে-প্রথমত এক সিগনালে একেক পাশ থেকে পূর্বের তুলনায় দ্বিগুণ যান চলাচল করতে পারবে এবং সামগ্রিকভাবে চাংখারপুল মোড় সংলগ্ন রাস্তাগুলোতে নিত্যদিনের অসহনীয় যানজট অনেকটা কমে আসবে/সহনীয় হবে। দ্বিতীয়ত চাংখারপুল মোড়ের বরাবর নাজিমুদ্দীন রোড ও শহীদুল্লাহ হল রোডের দুই রাস্তা প্রশস্ত হওয়ায় এর সুফল পুরান ঢাকার অত্র এলাকাগুলোর জনগণ পাবে/ভোগ করবে। তৃতীয়ত অত্র এলাকার স্থানীয় জনগণের কাছে সরকার এবং দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশান কর্তৃপক্ষের ইতিবাচক ইমেজ/ভাবমূর্তি বাড়বে/বৃদ্ধি পাবে। ভাল লাগলে লাইক, কমেন্ট, শেয়ার করুন। 

[email protected]

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK