শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮
Wednesday, 31 Oct, 2018 01:06:29 am
No icon No icon No icon

বয়স হলে মানুষ প্রবীণ হয় মেয়াদউত্তীর্ণ নয়


বয়স হলে মানুষ প্রবীণ হয় মেয়াদউত্তীর্ণ  নয়

ফিরোজ বাবু: যারা যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর সাথে নিয়মিত জড়িত তারা অবশ্যই জানেন, কিছুদিন আগে যোগাযোগ মাধ্যমে "মেয়াদউত্তীর্ণ" নামে এই কথাটি কম বেশি অনেকের কাছে আনন্দ সহকারে গ্রহনযোগ্যতা পায়।  কথাটি বেশ ভাইয়ালও হয়ে যায়। কিন্তু প্রতিউত্তরে কেউ কিছু বলেনি। বা বলার সাহস রাখেনি। যেমনটি আমিও। কিন্তু কেন? কেন এর উত্তর হয়ত আপনারা বুঝে  গেছেন। তবে এই কথাটির মাঝে কত ব্যাথা আর কত কষ্ট লুকিয়ে আছে তা কেউ অনুভব করেনি। যা আমাকে কষ্ট দিয়েছে। তাই সুয়োগ পেয়ে আজকে লেখা।

মেয়াদউত্তীর্ণ কথাটি বলা হয় বৃদ্ধদের উদ্দ্যেশ্য করে। কথাটি কতটা যুক্তিসংগত তা ভাবার বিষয়। বয়স্কদের মেয়াদউত্তীর্ণ বলা অপমান আর অপদস্থ করা ছাড়া আর কিছু নয়। ধরে নেয়া যাক একটা মানুষ দোষী, সে অপরাধী। তার জন্য দেশে আইন আছে। আইনের মাধ্যমে বিচার আছে। কিন্তু আমরা তা না করে আমাদের দেশের অতি উৎসাহী কিছু মানুষ বিচারের আগেই রায় দেয়। নির্বিধায় বয়স্কদের বলে দেয় মেয়াদউত্তীর্ণ। আসলে বয়স হলে মানুষের কি মেয়াদউত্তীর্ণ হয়? না বয়স হলে মেয়াদউত্তীর্ণ  হয় না। বয়স হলে মানুষ প্রবীণ হয়।
বয়সের ভারে ভারাক্রান্ত হয়ে সবাইকে এই প্রবীনের কাতারে আসতে হবে। আজ অথবা কাল। কারন তারুণ্য কারো সারা জীবন থাকে না। তা ধরেও রাখা যায় না। শুধু সময়ের অপেক্ষা। তাই বয়স্ক বলে কাউকে অবহেলা করা ঠিক না। কারন এই বয়সের তালিকায় একদিন সবাইকে যেতে হবে।

পরিবারের বয়স্কের তালিকায় রয়েছে কারো বাবা,কারো দাদা, কারো নানা, কারো মা, কারো নানী। কিন্তু এরা কারো না কারো বাবা কারো মা। এরা কিন্তু পরিবারের কাছে প্রিয়জন।
তাই বয়স্ক বলে বয়স্কদের আমরা যে মেয়াদউত্তীর্ণ বলে সম্বোধন করছি তাতে নিজেরা তৃপ্তি পেলেও মনোকষ্টে ভূগছেন সকল প্রবীনেরা।
আজ বয়স্কদের মেয়াদউত্তীর্ণ বলে কথাটা প্রচলন করলে আজকের প্রজন্মরা তা শিখে আগামীতেও বয়স্কদের মেয়াদউত্তীর্ণ বলে সম্বোধন করবে। যা শুনতে কতটা বিব্রতকর তা বলে অথবা লিখে প্রকাশ করার ভাষা আমার নেই।

কারন মেয়াদউত্তীর্ণ বলতে আমরা যা বুঝি সেটা হল বাতিলযোগ্য। শুধু পন্যের গায়ে নির্দিষ্ট টাইম দিয়ে মেয়াদ দেয়া থাকে। যা অতিক্রম করলে সেটা আমরা বাতিল বলে ডাস্টবিনে ফেলে দেই।

মানুষ কোন পন্য নয়। যে মেয়াদউত্তীর্ণ হবে। আর  তাকে ডাস্টবিনে ফেলে দিতে হবে। মানুষের দেহে যতক্ষণ প্রান আছে ততক্ষণ সে মানুষ হয়ে বেঁচে থাকে। জীবিত কোন মানুষকে কখনো মেয়াদউত্তীর্ণ বলা যাবে না।

কথার একটা কথা আছে, কথাটি যদিও সত্য।
কথাটা না বললে নয়। শুনতে অবশ্য খারাপ লাগে। তবু বলতে হয়, উপর দিকে থু দিলে সেটা নিজের গায়ে পরে। তাই আজকে বয়স্কদের নিয়ে যে উপহাস, ঠাট্টা করি তার জন্য প্রস্তুত থাকুন একসময় নিজেকেও উপহাসের বিষয় হতে হবে।
তাইতো গুনীজনদের মতে, ধইনচার গাছ লাগালে  
ধইনচা পাওয়া যায়, আঙ্গুর ফলের কখনো আশা করা যায় না।
তাই বিবেক বুদ্ধিটাকে বিক্রি না করে এখনেই কাজে লাগিয়ে সংশোধিত হওয়ার চেষ্টা করুন। আর চোখ কান খোলা রেখে দেখুন এবং শুনুন। কেউ না কেউ আপনাদের  সেই উপহাসের  মানুষগুলোকে ডাকে, সম্মান ও শ্রদ্ধা করে  ভালবাসে। তাদের মনের কথা শুনতে চায়। বয়স্ক বলে দুরে ফেলে দেয় না। 
প্রবীণদের কিভাবে সম্মান এবং ভালবাসা দিতে হয় সেই মহৎ মানুষের কাছ থেকে শিখুন।

লেখক: ফিরোজ বাবু, লেখক ও সাংবাদিক।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK