শুক্রবার, ১০ আগস্ট ২০১৮
Friday, 10 Aug, 2018 02:18:12 pm
No icon No icon No icon

দেশকে ভালোবাসতে হলে গ্রামে যেতেই হবে


দেশকে ভালোবাসতে হলে গ্রামে যেতেই হবে


কামাল পাশা দোজা: গ্রামেই হচ্ছে দেশের প্রাণ।গ্রামে অামাদের শেকড় প্রোথিত আছে।ছোটকালে জেনেছি গড মেড দ্যা ভিলেজ এন্ড ম্যান মেড দ্যা টাউন।মানে আল্লাহ গ্রামকে সৃষ্টি করেছেন। আর মানুষ গড়ে তুলেছে শহর। আমার বেশ মনে আছে ৭ম কি অষ্টম শ্রেনীতে পড়ার সময় এক স্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতায় শহরে জীবন বনাম গ্রামীন জীবন বিষয়ের বিতর্কে আমি গ্রামের পক্ষে থেকে বিজয়ীর পুরুষ্কার পেয়েছিলাম।আসলেই গ্রাম এখনও সমৃদ্ধ।এখনো গ্রামের মানুষ বেশ সুখেই আছে।এখন গ্রামে আরো বেশী ধান উৎপন্ন হয়।পুকুর তো বটেই বিল ঝিল অার উন্মুক্ত জলাশয়েও এখন মাছের চাষ হচ্ছে।আর গোয়াল ভরা গরু না বলে এখন বলতে পারি ফার্মে বিদেশী গাভী পালন।প্রচুর দুধ দিচ্ছে সে সব গাভী।পাশাপাশি দেশী গাভীও অাছে।দেখুন না?এই যে অামি কামাল পাশা দাঁড়িয়ে আছি।এ জায়গাটাতে এক সময় চলতে গা ছম ছম করে উঠতো।বিকেল হলেই আমরা ছোটরা এখানে চলতে ভয় পেতাম।এটি আমার জন্মভূমি সাঘাটা উপজেলার বিশালাকায় বিল বিলবস্তা।অামি সেই ১৯৬৪ সালে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র থাকাকালিন সময় থেকেই বিলবস্তা বিলের পাশ দিয়ে হেঁটে কচুয়ায় যেতাম আমার ভগ্নিপতি হারু ভাইদের বাড়িতে।আমার বড় আব্বা হজরত মন্ডলের একমাত্র মেয়ে আমার বড় বোন মন্নু বুবুর তখন সবেমাত্র বিয়ে হয়েছে।ওর ভাই বোন নেই। আমিই ছিলাম ওর ভাই ওর বোন। তাই এলাকার অনেকেই আমাকে হজরত মন্ডলের ছেলে জানতো। বাট আমি তাঁর ভাতিজা। আমার বাবার নাম আবুল হোসেন মন্ডল।সময় সময় সপ্তাহে ৫ দিন আমি কচুয়ায় থাকতাম।বিলবস্তা বিলের পাশেই মানে সাথে লাগোয়া ছিল আমাদের পারিবারিক অাত্নীয় কচুয়ার পন্ডিতদের বাড়ি। বারি ভাই সামছু ভাই আমার আপন খালাতো ভাই।বলছিলাম বিলবস্তা বিলকে আমি সেই বুদ্ধি হওয়ার পর থেকেই দেখছি।অার ভুতুড়ে গা ছম ছমের কারন হলো বিলের দক্ষিন সাইডে হচ্ছে শ্মশান ঘাট।প্রায়শই দেখতাম সেখানে মরদেহ পোড়ানো হচ্ছে।অার গ্রামে সে সময়ে খুব বিপদে না পড়লে কেউ শ্মশান কিংবা কবরস্থানের ধারে দিয়ে হাটতো না,অন্তত:সন্ধ্যা বেলায়।
বলছিলাম গ্রামীন জীবন নিয়ে। সেই বিলবস্তা বিলে একন প্রচুর মাছ চাষ হচ্ছে। পাশাপাশি আওয়ারা প্রাকৃতিক মাছতো আছেই।তারপর বিলের শ্মশান এখন আরো আথুনিক অারো উন্নত হয়েছে।আমি গত ২ জুলা্ই ভাগ্নে সাংবাদিক জয়নালের মোটর সাইকেলে চেপে সকাল এগারোটার দিকে বিলবস্তায় গেলাম দেখতে।বাহ কি সুন্দর ছিম ছাম বিলের নয়নাভিরাম দৃশ্য। পাশে বিশাল পাকা রাস্তা। বিলের পাশে গাছ লাগানো হয়েছে।শ্মশান ঘাটেরও উন্নতি হয়েছে।দেখলাম একটি মর দেহ পোড়ানোর জন্য চিতা প্রস্তুত করা হচ্ছে। কিন্তু কি আশ্চর্য্য অামি অার ভয় পেলাম না?অামার ছোটকালের ভুঁতের ভয় যেন হারিয়ে গেছে। মনে হলো কামাল পাশা এখন বড় হয়েছে।এইতো আমার জন্মভূমি। অামি ভালোবাসি অামার গ্রাম বাংলা অার গ্রামের সহজ সরল মানুষগুলোকে।

লেখক: কামাল পাশা দোজা, সিনিয়র সাংবাদিক ও লেখক, ঢাকা।
[email protected]

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK