বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮
Sunday, 08 Jul, 2018 12:39:50 am
No icon No icon No icon

বিএফইউজে নির্বাচন


 বিএফইউজে নির্বাচন


বাবলুর রহমান: বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-(বিএফইউজে) এর নির্বাচন ছিল ৬ জুলাই, ২০১৮ শুক্রবার। আদালতে এক রিটে ভোটার তালিকায় (২৬+২০০) ২২৬ জনের বিষয়ে অনিয়মের কথা বলা হয়। সে কারণে এ নির্বাচনটি 'স্থগিত' হয়ে গেছে। তবে, নির্বাচন 'বাতিল' বা 'বন্ধ' হয়নি। কিন্তু, তা নিয়ে, সাংবাদিক মহলে নানা ধরনের আলোচনা, নিন্দা, জল্পনা-কল্পনা, সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ, প্রার্থী, সাংবাদিক সদস্যবৃন্দের অনেকের মধ্যে বিরাগ, বিলাপই শুধু নয়, আবার এক ধরনের মাতম আর হতাশাও দেখা যাচ্ছে! অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে, যেনো ---বাংলাদেশে এই প্রথম কোনো নির্বাচন স্থগিত হলো। কিন্তু, না। সম্প্রতি গাজীপুর সিটি নির্বাচন স্থগিত হয়েছে, তারপর সে নির্বাচন সম্পন্নও হয়ে গেলো। জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনে বিভিন্ন দল ও প্রার্থীর এজেন্টরা যেমন উচ্চবাচ্য আর আচরণ করে থাকেন, সাংবাদিক সম্প্রদায়ের মর্যাদাসম্পন্ন সর্বোচ্চ পর্যায়ের এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করেও তেমনি দেখা যাচ্ছে--- যা মোটেও শোভন বলে মনে হচ্ছে না। যাহোক, এক্ষেত্রে ভাবা দরকার ছিল যে--- বিএফইউজে নির্বাচন স্থগিত হওয়া মানে মহাভারত অসুদ্ধ হয়ে যাওয়া নয়; তরী একেবারে ডুবে যাওয়া নয়। যে কারণে রিট হয়েছে, তা ঠিকঠাক করার মাধ্যমে এ নির্বাচন ফের সম্পন্ন করা যাবে এবং সেটি দ্রুত করা প্রয়োজন। এখন, সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলের মনোযোগী ও তৎপর হওয়া দরকার। কিন্তু, তার বদলে, দু:খজনক হলেও সত্য যে-- এ নিয়ে সাংবাদিক সমাজের মধ্যে একে অপরের বিরুদ্ধে চরম নেতিবাচক, অশোভন আর অসহিষ্ণু মতামত বের হয়ে আসছে। আগে, 'তাহাদের' সম্পর্কে এতোসব ডেটা-উপাত্ত, তথ্য এতো সহজে জানা যেতো না। এখন, ফেসবুকের কল্যাণে 'তাহাদের' অনেকের 'ছুরতহাল রিপোর্ট' জনসন্মুখে চলে আসছে। যা সাধারণ সাংবাদিকদের কাছে মোটেও সুখকর নয়, কাম্যও নয়। বলা হচ্ছে, আদালত যাওয়া হলো কেনো ? ডিইউজে'র কাছে সদস্য বা ভোটার তালিকা সংশোধনের জন্য জানালেই তো চলতো। কিন্তু রিটকারিরা সেই সহজ তরীকার দিকে না যেয়ে অন্য পথে গিয়েছেন, যে পথটি শীর্ষদের পছন্দ হয়নি। বলা হচ্ছে, ২২৬ জনের জন্য বাকি ৪০০০ সদস্যের 'আনন্দ-উৎসব' সব ভন্ডুল হয়ে গেলো। সাংবাদিকদের নির্বাচনের সাথে সম্ভবত এই প্রথম 'উৎসব' কথাটি শোনা যাচ্ছে! হ্যা, 'উৎসব' মনে হতে পারে কারো কারো কাছে, যারা সরাসরি ও নানাভাবে ইনভলভ। কিন্তু সাধারণ সাংবাদিকদের কাছে নির্বাচনকে 'উৎসব' বলে মনে হওয়ার কোনো কারণ নেই। তাঁরা নির্বাচনের মাধ্যমে আসা নতুন নেতাদের দ্বারা বেতন বোর্ড, বকেয়া বেতন, অনিয়ম, চাকরি বিধি, বেকারত্বের সমস্যা সমাধানের প্রত্যাশা করেন। কিন্তু বার বার আশাহত হন! 'উৎসব' করবেন ৪০০০ সন্মানিত সদস্য; ২২৬ জন কেনো 'উৎসব' থেকে বঞ্চিত হবেন? বলা হচ্ছে, এদের অনেকে নাকি ---'অন্য' পরিবারভূক্ত। ঠিক আছে, সেই বিষয়টি সংশোধন করতে ডিজিটাল পদ্ধতিতে কতদিন লাগতে পারে! এসব ছোটখাটো ঝামেলা ঝুলিয়ে রাখে কারা? কী স্বার্থে? গণতান্ত্রিক রীতিতে তো ভোটের অধিকার ও মূল্য ১ জনের যা, আর বাকি ৪০০০ জনেরও তা, মানে সমান সমান। কিন্তু, এ ক্ষেত্রে বিষয়টি অগ্রাহ্য করার চেষ্টা হচ্ছে! এটি অন্যায্য। এখন এসব কিছু দেখে-শুনে মনে হচ্ছে, রিটের কারণে যেনো একটা 'এক্সপ্রেস ট্রেন মিস' হয়ে গেলো! আর কোনো সুযোগ নেই, বা 'ট্রেন' নেই! ফলে, যারা নির্বাচনী ট্রেনে চড়ে সাংবাদিকদের জন্য 'দুধের নহর' বহিয়ে নিয়ে আনতে একদম রেডি হয়ে ছিলেন, তাদের অযথা দেরি হয়ে গেলো। আমজনতার মত সাধারণ সাংবাদিকদেরও হয়তো এতে আশাভঙ্গ হতে পারে, এবং এটা দু:সংবাদও বটে! কিন্তু, যারা বছরের পর বছর নির্বাচন দেখছেন আর ভোট দিচ্ছেন, তাঁদের অভিজ্ঞতাটা দিনের আলোর মত পরিস্কার, এবং সর্বজনবিদিত। ফলাফল---থোড় বড়ি খাড়া, আর খাড়া বড়ি থোড়! তদুপরি, এতোসব কিছুর পরেও একটা পেশাজীবী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিএফইউজে'র মর্যাদা পুন:প্রতিষ্ঠার প্রয়াসে সকলেরই দায়িত্বশীলতার সাথে এগিয়ে আসা উচিৎ। এটাই সাংবাদিক সমাজ আর ওয়াকেবহাল সুহৃদ মহলের প্রত্যাশা।

লেখক: বাবলুর রহমান, প্রধান সম্পাদক-টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা:

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK