শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Tuesday, 03 Jul, 2018 12:22:34 am
No icon No icon No icon

নেইমারের নৈপুণ্যে শেষ আটে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিল


নেইমারের নৈপুণ্যে শেষ আটে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিল


সহিদুল ইসলাম রেজা, হারুন অর রশিদ, শামীম চৌধুরী, টাইমস ২৪ ডটনেট, স্পোর্টস ডেস্ক: এ যেন ফেবারিটদের পতনের বিশ্বকাপ! ইতিমধ্যে বিদায় নিয়েছে সাবেক তিন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি, আর্জেন্টিনা ও স্পেন। বিদায়ঘণ্টা বেজেছে শক্তিশালী পর্তুগালের। স্বাভাবিকভাবেই চোখ ছিল পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিলের দিকে। দ্বিতীয় রাউন্ডে মেক্সিকোর সামনে অগ্নিপরীক্ষায় পড়ে তারাও। তবে শেষমেশ সেই পরীক্ষায় পাস করেছে সেলেকাওরা। সেরা ছাত্র নেইমারের কাঁধে চড়ে মেক্সিকানদের ২-০ গোলে পরাজিত করে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গেছে তারা। এক গোল করার পাশাপাশি অপর গোলেও অবদান রেখেছেন সাম্বা প্রাণভোমরা। কোয়ার্টারে ওঠার লড়াইয়ে সামারা এরিনায় মুখোমুখি হয় মেক্সিকো-ব্রাজিল। আক্রমণাত্মক শুরু করে ব্রাজিলিয়ানরা। সেখানে রক্ষণাত্মক সূচনা করে মেক্সিকানরা। নেইমারদের মুহুর্মুহু আক্রমণ রুখে দেয় তারা। এ অর্ধে যেন চীনের প্রাচীর হয়ে উঠেন মেক্সিকো গোলরক্ষক ওচোয়া। দুর্দান্ত সব সেভে ব্রাজিলের নিশানা লক্ষ্যভ্রষ্ট করেন তিনি। মাঝে মাঝে কাউন্টার অ্যাটাকে উঠেছে মেক্সিকো। তবে ভালো ফিনিশারের অভাবে গোল পায়নি তারা। অবশ্য তাতে বড় ভূমিকা ছিল ব্রাজিল রক্ষণভাগের। ফলে গোলশূন্য অবস্থায় শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা।


বিরতির পরও আক্রমণের গতি সচল রাখে ব্রাজিল। এবার আর বিমুখ হতে হয়নি তাদের। ৫১ মিনিটে সফল নিশানাভেদে দলকে এগিয়ে দেন নেইমার। তিনি গোল করলেও এর রূপকার ছিলেন উইলিয়ান। বিশ্বকাপে এটি বিশ্বের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড়ের দ্বিতীয় গোল।

নেইমার,
৫৬ মিনিটে আবারো গোলের সুযোগ পান নেইমার। তবে তার শটটি গোলবার ঘেঁষে চলে যায়। ৫৯ মিনিটে নিশ্চিত গোল বাঁচান ওচোয়া। ডি বক্সের বাইরে থেকে পাউলিনহোর শট অসামান্য দক্ষতায় সেভ করেন গোটা ম্যাচে অনন্য নৈপুণ্য প্রদর্শন করা এ গোলকিপার।


এরপর গোল পরিশোধে মরিয়া হয়ে উঠে মেক্সিকো। ঘন ঘন আক্রমণে উঠে তারা। ৬২ মিনিটে গোলও পেয়ে যাচ্ছিল। তবে কার্লস ভিলার শট অসাধারণ দক্ষতায় রুখে দেন এলিসন। পরক্ষণেও গোল আদায় করতে পারেনি বিশ্বকাপে ১৬ বারের মতো খেলা দলটি।


৮৬ মিনিটে পুরো ম্যাচে নিষ্প্রভ কুতিনহোকে তুলে রবার্তো ফিরমিনোকে নামান ব্রাজিল কোচ তিতে। এতে তাৎক্ষণিকভাবে খেলায় গতি বাড়ে। ফলে আরেকটি গোল পেয়ে যায় তারা। ৮৮ মিনিটে ঠিকানায় বল পাঠান ফিরমিনো। তবে এর কারিগর ছিলেন নেইমার। মাঝমাঠ থেকে বলটি তৈরি করে দেন ব্রাজিল যুবরাজই। শেষ পর্যন্ত নেইমারের নৈপুণ্যে ২-০ গোলের জয় মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। দিনের অপর ম্যাচে বেলজিয়াম ও জাপানের মধ্যকার জয়ী দলের সঙ্গেই কোয়ার্টার ফাইনালে লড়বে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।


সূত্র জানায়, খেলা শুরুর বাঁশি বেজে উঠতেই শুরু হয়ে যায় ধুন্ধুমার লড়াই। মনে হচ্ছিল যেন খেলা বেশ আগেই শুরু হয়েছে, সময় স্বল্পতা থাকায় এখনই গোল দিতে হবে। দুই মিনিটেই আক্রমণে যায় মেক্সিকো। আন্দ্রেস গুয়ার্দাদোর ক্রস ফিরিয়ে দিয়েও ব্রাজিলকে বিপদমুক্ত করতে পারেননি গোলরক্ষক অ্যালিসন। ফিরে আসা বলে শট হাঁকান হার্ভিং লোজানো। এ যাত্রায় কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা পায় ব্রাজিল।

তিন মিনিট পর ব্রাজিলের পাল্টা আক্রমণ। বেশ দূর থেকেই শট নেন নেইমার। কিন্তু গুইলের্মো ওচোয়া দাঁড়িয়ে যান দেওয়াল তুলে। যদিও বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেননি তিনি। তবে শটটি ফিরিয়ে মেক্সিকোকে বিপদমুক্ত করেন তিনি। এরপর একটু বিরতি। কোনো দলই সেভাবে প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগে সেভাবে হানা দিতে পারেনি। ১৫ মিনিটের সময় দারুণ সুযোগ তৈরি করে মেক্সিকো। কিন্তু ব্রাজিলের ফাঁকা ডি-বক্সে লোজানোর বাড়িয়ে দেওয়া বল ধরতে পারেননি জাভিয়ের হার্নান্দেজ।

প্রথম ১৫ মিনিট দাপিয়ে খেলেছে মেক্সিকো। বল পেলেই সোজা ব্রাজিলের রক্ষণভাগে হানা দিচ্ছিলেন হার্নান্দেজ-লোজানোরা। এ সময় বল দখলের লড়াইয়ে মেক্সিকোই দাপট দেখাচ্ছিল। ২২ মিনিটে ব্রাজিলের ডি-বক্সের মধ্য থেকে শট নেন হেক্টর হেরেরা। কিন্তু ব্রাজিলের ডিফেন্ডার ফিলিপে লুইসের বাধায় সফল হতে পারেননি হেরেরা।

২০ মিনিট পেরোতেই চেহারা বদলে যায় ব্রাজিলের। ছন্দে ফিরতে থাকে নেইমার-কোটিনহোদের পায়ে। ২৫ মিনিটে গিয়ে নেইমার জাদু। শরীরে ধোঁকায় মেক্সিকোর ডিফেন্ডারদের বোকা বানিয়ে ঢুকে পড়েন ডি-বক্সে। বাঁ পায়ে দারুণ একটি শটও নেন। কিন্তু আবারও ওচোয়া বাধা। মেক্সিকোর গোলপোস্টের অতন্দ্র এই প্রহরী ফিরিয়ে দেন নেইমারের শট।

এর দুই মিনিট পরই ফিলিপে কোটিনহোর দূরপাল্লার শট উপর দিয়ে চলে যায়। এর আগে অবশ্য শট নেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। কিন্তু তিনিও মেক্সিকোর রক্ষণভাগ ভেদ করতে পারেননি। ৩০ মিনিটে লম্বা পাসে বল পান কার্লোস ভেলা। কিন্তু কোটিনহোর মতো মেক্সিকোর এই ফরোয়ার্ডের শটও অনেক উপর দিয়ে চলে যায়।

সময় যত গড়িয়েছে ব্রাজিল তত ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। কিন্তু প্রতিবারই তাদের সামনে দেওয়াল তুলে দাঁড়িয়েছেন মেক্সিকোর গোলরক্ষক গুইলের্মো ওচোয়া। এরই ধারাবাহিকতায় ৩৩ মিনিটে জেসুসের শট থেকে আরও একবার দলকে রক্ষা করেন ওচোয়া। ৪১ মিনিটে আবারও হানা দেয় ব্রাজিল। ক্রস করেন উইলিয়ান। আরও একবার ঝাঁপিয়ে পড়ে বল নিয়ন্ত্রণে নেন ওচোয়া।

একদিকে ওচোয়া একাই লড়ে গেছেন, অন্যদিকে মেক্সিকোর আক্রমণভাগ বারবার ব্যর্থ হয়েছে। আগের তিন ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও একজন ফিনিশারের অভাবে ভুগেছে মেক্সিকো। প্রথমার্ধে দারুণ ফুটবল খেলা মেক্সিকানরা পাল্টা আক্রমণে বেশ কয়েকটি ভালো সুযোগ তৈরি করেও গোল আদায় করে নিতে পারেনি। ব্রাজিলের ডি-বক্স থেকে খালি হাতে ফিরতে হয়েছে তাদের।

প্রথমার্ধ খেলায় টিকে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে গিয়ে আর পারেনি মেক্সিকো। ৫১ মিনিটে উইলিয়ানের ক্রসে পা লাগিয়ে বল মেক্সিকোর জালে জড়িয়ে দেন ব্রাজিলের প্রাণভোমরা নেইমার। এবার আর দলকে রক্ষা করতে পারেননি ওচোয়া। অবশ্য এর দুই মিনিট আগেই কোটিনহোর একটি শট ফিরিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু নেইমারের আলতো ছোঁয়ার বল তার ধরা-ছোঁয়ার বাইরে চলে গিয়েছিল।

নেইমার,

১-০ গোলে এগিয়ে গিয়ে ব্রাজিল আরও দুর্বার হয়ে ওঠে। বল নিয়ে মেক্সিকোর রক্ষণভাগে আছড়ে পড়তে থাকেন নেইমার, কোটিনহো, উইলিয়ান, জেজুসরা। একজন ওচোয়া থাকায় রক্ষা পেয়েছে মেক্সিকো যে আরও গোল হজম করতে হয়নি তাদের। ৫৯ মিনিটে পলিনহোর শট ফেরানো ওচোয়া ৬৩ মিনিটে উইলিয়ানের বিদ্যুৎগতির শট থেকে মেক্সিকোকে রক্ষা করেন। বাকিটা সময়েও তাকে কম পরীক্ষা দিতে হয়নি। রক্ষণভাগের সতীর্থরা তাকে সেভাবে সাহায্য করতে পারেননি।

পিছিয়ে থাকা মেক্সিকো হন্যে হয়ে গোলের সন্ধানে থাকলেও ব্রাজিলের জালের ঠিকানা করতে পারেনি। উল্টো ম্যাচ শেষ হওয়ার কয়েক মিনিট আগে আরও একটি গোল হজম করে নেয় তারা। দুই মিনিট আগেই বদলি হিসেবে মাঠে নেমেছেন রবার্তো ফিরমিনো। এই দুই মিনিটেই নেইমারের সঙ্গে রসায়নটা জমে যায় তার।

নেইমার

বাম পাশ দিয়ে বল নিয়ে ছুটলেন নেইমার, ডান পাশে ফিরমিনো। নেইমার বল এগিয়ে দিতেই সেটা জালে জড়িয়ে দিলেন ফিরমিনো। ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে মেক্সিকো আর কোমর সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। এদিনটা নিয়ে সবচেয়ে বেশি আফসোস হয়তো ওচোয়ারই থাকবে। ব্রাজিলের ডজনখানেক আক্রমণ ফিরিয়েও দলকে হার থেকে বাঁচাতে পারলেন না তিনি।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK