শুক্রবার, ১৩ জুলাই ২০১৮
Monday, 02 Jul, 2018 12:28:00 am
No icon No icon No icon

টাইব্রেকারে স্পেনকে কাঁদিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়া


টাইব্রেকারে স্পেনকে কাঁদিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়া


টাইমস ২৪ ডটনেট, স্পোর্টস ডেস্ক: টাইব্রেকারে স্পেনকে কাঁদিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়া। টাইব্রেকারে রাশিয়ার কাছে ৪-৩ গোলে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিল সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। অধিকাংস সময় বল পায়ে থাকল, স্কিল মুগ্ধ করল, আক্রমণের পসরা সাজালো। তবু জয় পেল না স্পেন। গোটা ম্যাচে দুর্দান্ত খেলল স্প্যানিশরা, অথচ হেরে মাঠ ছাড়তে হলো তাদের। এর আগে মূল সময়ের পর অতিরিক্ত সময়েও ম্যাচের নিষ্পত্তি হয়নি। ফলে ১-১ গোলে সমতা নিয়ে টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচটি। মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় স্পেন-রাশিয়া। হট ফেভারিটের তকমা গায়ে সেঁটে খেলতে নামে স্প্যানিশরা। আর বাড়তি শক্তি হিসেবে রুশরা পায় ৮০ হাজার দর্শকের সমর্থন। ফলে শুরু থেকেই আক্রমণ পাল্টা আক্রমনে জমে উঠে খেলা। ম্যাচের ১২ মিনিটে এস ইগনাশেভিচের আত্মঘাতী গোলে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় স্পেন। পিছিয়ে পড়ে খেলায় ফেরার আপ্রাণ চেষ্টা করে রাশিয়া। এতে স্বাগতিকদের খেলায় গতি আসে। ঘন ঘন আক্রমণে প্রতিপক্ষকে ব্যতিব্যস্ত করে তোলে তারা। ফলে সাফল্যও আসে।
৪১ মিনিটে তাদের ভয়ঙ্কর অ্যাটাক সামলাতে গিয়ে ডি বক্সে হ্যান্ডবল করেন জেরার্ড পিকে। এতে পেনাল্টি পায় রাশিয়া। তা থেকে বল জালে জড়াতে মোটেও ভুল করেননি আর্তেম দিয়াবা। এতে খেলায় ফিরে স্তানিস্লাভ চেরচিয়েসোভের শিষ্যরা।


বিরতি থেকে ফিরে আক্রমণের গতি বাড়ায় স্পেন। অধিকাংশ সময় বল দখলে রাখে তারা। পাশাপাশি মুহুর্মুহু আক্রমণ দাগায়। তবে গোলমুখ খুলতে পারেনি। ৬৭ মিনিটে ডেভিড সিলভাকে তুলে ইনিয়েস্তাকে নামায় স্পেন। মিনিট তিনেক পর নাচোর বদলে কারভাহালকে নামান কোচ হিয়েরো। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি।মাঝে মাঝে কাউন্টার অ্যাটাকে উঠে রাশিয়া। কিন্তু তারাও গোল আদায় করতে পারেনি তারাও। ফলে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা ১-১ সমতায় শেষ হয়।এতে খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। এ সময়ে রুশ দূর্গে একের পর এক আক্রমণ হানে স্পেন। তবে রাশিয়ার জমাট রক্ষণ ভাঙতে পারেনি সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ফলে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে ৪-৩ গোলে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয় তাদের।

ম্যাচে জয়ের নায়ক রাশিয়ান গোলকিপার ইগুর আকিনফিভ। ছবি: এএফপি
রাশিয়া বিশ্বকাপে এটা রেকর্ড ১০তম আত্মঘাতী গোল। ১৯৬৬ বিশ্বকাপের পর প্রথম দল হিসেবে স্বাগতিকেরা এবার একের অধিক আত্মঘাতী গোল হজম করলেও প্রথমার্ধে তারা হাল ছাড়েনি। বিরতির আগে গোলোভিন-সামেদভ-জিউবারা ৫টি আক্রমণ করেছে স্প্যানিশ রক্ষণে। এই ধারাবাহিকতাতেই পেনাল্টি আদায় করে নেয় রাশিয়া।
ডান প্রান্ত থেকে আসা ক্রস ‘ক্লিয়ার’ করতে লাফিয়ে উঠেছিলেন জেরার্ড পিকে। বলটি তিনি পাননি। পেছন থেকে করা হেডে বল লাগে তাঁর হাতে। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে হলুদ কার্ড দেখেন পিকে। সে যা–ই হোক, স্পটকিক থেকে রাশিয়াকে সহজেই সমতায় ফিরিয়েছেন আরতিয়ম জিউবা।

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে স্পেনের বিদায়
ফার্নান্দো হিয়েরোর শিষ্যরা বিরতির আগে ছোট ছোট পাসে খেলা সাজানোর চেষ্টা করলেও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে তা ছিল উদ্দেশ্যহীন। এই ভুল থেকে তাঁরা শিক্ষা নিয়েছেন দ্বিতীয়ার্ধে। এ সময় তাঁরা লম্বা পাসে খেলার সঙ্গে বেশ কিছু ক্রস ফেলেছেন রাশিয়ার বক্সে। গোল পেতে মরিয়া স্পেন কোচ হিয়েরোও ৬৭ মিনিটে ডেভিড সিলভাকে তুলে মাঠে নামান আন্দ্রেস ইনিয়েস্তাকে। এর তিন মিনিট পর রক্ষণভাগে নাচোকে তুলে দানি কারভাহালকেও মাঠে নামান হিয়েরো।
এরপর স্পেনের খেলার ধার বাড়লেও তা সেভাবে চোখে পড়ার মতো ছিল না। নব্বই মিনিটে সাড়ে সাত শর ওপরে পাস খেলেছে স্পেন। অথচ আসল কাজটাই হয়নি। রাশিয়ার গোলমুখ খুলতে পারেননি হিয়েরোর শিষ্যরা। ৮৫ মিনিটে বক্সের সামনে থেকে জোরালো শট নিয়েছিলেন ইনিয়েস্তা। আকিনফিয়েভের ঝাঁপিয়ে পড়ার দিকে বল থাকায় স্কোরলাইনটা পাল্টায়নি। নব্বই মিনিটের মাথায় দুটি কর্নার পেয়েছিল স্পেন। রাশিয়ান খেলোয়াড়দের উচ্চতার জন্য তারা একটাও কাজে লাগাতে পারেনি।

সূত্র: এএফপি।
ছবি: রয়টার্স।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK