সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
Sunday, 14 Oct, 2018 08:05:54 pm
No icon No icon No icon

পদ্মারপাড় জনসমুদ্রে পরিণত


পদ্মারপাড় জনসমুদ্রে পরিণত


রতন বালো, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, ২৪ ডটনেট, ঢাকা : বাংলাদেশের মানুষের কাছে এক সময় পদ্মা সেতু ছিল স্বপ্নের, তা বাস্তবে রূপ পেতে চলেছে অচিরেই। শুধু পদ্মা সেতু নয়ই আজ সেতুর উপর দিয়ে চলবে রেলও। এই স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ৬০ শতাংশ কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। শুধু দক্ষিণাঞ্চলবাসীই নয়। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে এক বিশাল পদক্ষেপ। দেশের রেল খাতের নতুন দিগন্ত উন্মোচনে যুগান্তকারী পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার বিকেলে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ী ফেরিঘাট সংলগ্ন এলাকায় এক বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।প্রধানমন্ত্রী সেখানে উপস্থিত হলে এলাকায় বাঁধভাঙ্গা মানুষের ঢল নামে। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে স্বাগত জানিয়ে তারা নানা স্লোগান দিতে থাকেন। মানুষ সমাবেশস্থলকে মুখর করে তোলেন।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে যারা খুন করেছিল সেই খুনি মোশতাকদের পুনর্বাসন করেছিল জিয়াউর রহমান। 
আর ২১ আগস্ট আমাকে হত্যা করে আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব শূন্য করতে হামলা করেছিল খালেদা জিয়া। আইভি রহমানসহ অনেককে তারা খুন করেছে। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করতে গিয়ে দেশি-বিদেশি অনেক হুমকি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ষড়যন্ত্রও মোকাবেলা করতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এর আগে সকালে পদ্মা সেতু প্রকল্প পরিদর্শনে গিয়ে মাওয়ায় পৌঁছে তিনি সেতুর নামফলক উন্মোচনসহ  প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কয়েকটি কাজের উদ্বোধন করেন। মাওয়ায় এক সুধি সমাবেশে তিনি দেশের অন্যতম বড় এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে গিয়ে নানা বাধা-বিপত্তিতে পড়ার কথা তুলে ধরেন। পরে প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর মাওয়া টোল প্লাজার পাশের গোল চত্বরে আয়োজিত সমাবেশে অংশ নেন।
সমাবেশে দেয়া বক্তব্যে শেখ হাসিনা এই সেতু নির্মাণ করতে গিয়ে বিশ্ব ব্যাংকের সঙ্গে সৃষ্টি হওয়া জটিলতার প্রসঙ্গটি তোলেন। মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর নাম ফলক উন্মোচনকালে সুধি সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ড. মুহম্মদ ইউনূসের প্ররোচণায় বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু নির্মাণের অর্থায়ন বন্ধ করে দেয়। 
তিনি বলেন, শান্তিতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ মুহাম্মদ ইউনূসকে নিয়ম অনুযায়ী গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি পদ থেকে সরিয়ে দেয়ার প্রতিক্রিয়ায় বিশ্ব ব্যাংকসহ পশ্চিমা বিশ্বের কিছু নেতা পদ্মা সেতু নির্মাণে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল।
পদ্মা সেতু নির্মাণে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নের কথা থাকলেও সংস্থাটি দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুললে তা নিয়ে সরকারের সঙ্গে টানাপড়েনের সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে সরকার বিশ্ব ব্যাংককে বাদ দিয়েই কাজটি শুরু করে।
তিনি বলেছেন, ড. ইউনূস বেআইনিভাবে গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি পদে ছিলেন। তাকে বলার পরও তিনি সরলেন না। উল্টো সরকার ও বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা করলেন। মামলায় হেরে আমেরিকায় যান। সেখানে তার প্ররোচণায় তখনকার বিশ্বব্যাংক প্রধান এ প্রকল্পের অর্থ বন্ধে অর্ডার দিয়ে যান। 
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই মেগা প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে যারা বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ এবং উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক অগ্রগতি বাধাগ্রস্ত করতে চেয়েছেন তাদেরকে যথোপযুক্ত জবাব দেয়া হবে।
তিনি বলেন, এ সেতুর জন্য স্থানীয় ও বিদেশি ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে যে অপমান আমাদের সহ্য করতে হয়েছে তা দেশের মানুষের জানা প্রয়োজন। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে এমন কিছু মানুষ আছে যাদের কোন দেশপ্রেম ও জনগণের প্রতি আস্থা নেই তারাই এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী নিজস্ব অর্থে পদ্মা সেতু নির্মাণে তাঁর সিদ্ধান্তে জনগণের সমর্থন ও সাহস জোগানের জন্য দেশের মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, রাজনীতি থেকে আমার পাওয়ার কিছু নেই, আমি রাজনীতি করি বাংলাদেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য।
সুধি সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এ সময় স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেলমন্ত্রী মোঃ মুজিবুল হক। আর অন্যদের মধ্যে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদও বক্তব্য দেন।

 

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK