শনিবার, ১৯ মে ২০১৮
Friday, 09 Mar, 2018 10:17:41 pm
No icon No icon No icon

সম্মেলনপ্রত্যাশী কর্মীর মাথা থেঁতলে দিলো ছাত্রলীগ


সম্মেলনপ্রত্যাশী কর্মীর মাথা থেঁতলে দিলো ছাত্রলীগ


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: ছাত্রলীগের সম্মেলনপ্রত্যাশী এক কর্মীর মাথা ইটের অাঘাতে থেঁতলে দিয়েছে ছাত্রলীগের অপর কর্মীরা। এ ঘটনায় অারও দুইজনকে বেধড়ক পিটিয়ে অাহত করার অভিযোগ উঠেছে। ৯ মার্চ, শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন হলের সামনে ছাত্রলীগের সম্মেলন নিয়ে মল চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সম্মেলন না হওয়ার ঘোষণা আসার পরেই এমন ঘটনা ঘটল। আহতরা হলেন- সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের সাবেক শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক মিশকাত হোসেন ও সলিমুল্লাহ মুসলিম হল ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এস এম কামাল উদ্দিন এবং ছাত্রলীগের কর্মী স্যার এ এফ রহমান হলের সাগর রহমান। হামলায় মিশকাত ও সাগরের মাথা ফেটে যায়। এ ছাড়া কামালও আঘাতপ্রাপ্ত হন। গুরুতর অাহত দুজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকি একজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও অাহতরা জানান, শুক্রবার দুপুরে তিন বন্ধু মিশকাত, সাগর ও কামাল সূর্যসেন হলে মিশকাতের ১৬৯ নম্বর রুমে দুপুরে খাবার গ্রহণ করছিলেন। পরে হল থেকে বের হয়ে মল চত্বরে এলে প্রতিপক্ষ ২৫-৩০ জনের ছাত্রলীগের একটি গ্রুপ তাদের কাছ জানতে চায় মিশকাত কে? ‘তোরা সম্মেলন চাস, তোদের এত বড় সাহস’ বলেই কোনো কিছু বুঝে ওঠার অাগেই তারা মিশকাতের ওপর হামলা চালায়। সে সময় তার সাথে থাকা দুজন এগিয়ে এলে তাদেরও মারধর করা হয় এবং মিশকাতের মাথা ইট দিয়ে থেঁতলে দেয় হামলাকারীরা। মিশকাতের রক্তক্ষরণ ও বমি শুরু হলে তাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে, পরে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মিশকাত ও সাগরকে ভর্তি করা হয়। কামালকেও প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।


অাহত ছাত্রলীগ কর্মী মিশকাত অভিযোগ করেন, সূর্যসেন হলের উপ-দপ্তর সম্পাদক সাগর এবং উপ-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আসাদের হুকুমে মারধর করা হয়। তারা দুজন সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম সরোয়ারের অনুসারী। গোলাম সরোয়ার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসানের অনুসারী বলেও জানান মিশকাত।
প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ, হামলায় অংশ নেয় সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের উপদপ্তর সম্পাদক মো. ইমরান হোসেন সাগর (স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট), উপকর্মসূচি বিষয়ক সম্পাদক মো. রাসেল রানা সোহেল (টেলিভিশন, ফিল্ম অ্যান্ড ফটোগ্রাফি বিভাগ), উপক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মো. আসাদ আহমেদ (মনোবিজ্ঞান), সারওয়ারসহ (ব্যাংকিং) ছাত্রলীগের ২০-২৫ জন নেতাকর্মী। তারা সবাই সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সারওয়ার আহমেদের অনুসারী।অভিযোগের বিষয়ে মো. ইমরান হোসেন সাগর বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমি আজ সকাল থেকে ক্যাম্পাসে নেই। এখনো ক্যাম্পাসের বাহিরে আছি।’ 
অাহত কামালের ভাষ্য, তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের আইডিতে সম্মেলনের পক্ষে বিভিন্ন কথাবার্তা লিখেছএন। অন্যদিকে মিশকাত ও সাগর ফেসবুকে সম্মেলনের পক্ষে কথা বলেছেন। অাজ এ কারণে তারা তিন জনের ওপর হামলা করেছে।
কামাল উদ্দিন বলেন, ‘আমরা তিন বন্ধু মিলে খাওয়া-দাওয়া শেষে সূর্যসেন হল থেকে বের হচ্ছিলাম। এমন সময় এ হলের ছাত্রলীগের সভাপতি সারোয়ার আহমেদের অনুসারী ২০-২৫জন নেতাকর্মী সাগরের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। সাগরকে বাঁচাতে গেলে আমরাও আক্রমণের শিকার হই। সূর্যসেন হল গেট থেকে মারতে মারতে তারা মল চত্বরে নিয়ে আসে। এ সময় সাগর ও মিশকাতের মাথায় ইট দিয়ে বাড়ি দেয় হামলাকারীরা। এতে তাদের মাথা ফেটে যায়।’হামলা কেন করা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “কেন আমাদের ওপর হামলা করা হয়েছে তা জানি না। তবে তারা হামলার সময় শুধু বলছিলো ‘তোরা সম্মেলন চাস! সারওয়ার ভাইয়ের বিরুদ্ধে কথা বলিস?’ মোটকথা তারা সম্মেলনের বিষয়টাকে কোড করেই মারধর করেছে’।” 
এ বিষয়ে সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সারওয়ার আহমেদ বলেন, ‘আমরা বিষয়টি জেনেছি। আমার হলের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক (শাহীন আহমেদ) হলের বাইরে আছে। সে হলে আসলে আমরা তদন্ত কমিটি করব। তদন্ত করে আমরা দোষীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিব।’


এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান বলেন, ব্যক্তিগত রেষারেষি থেকে এ ঘটনা ঘটতে পারে। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের সুনাম নষ্ট করতে এ ধরনের ঘটনা ঘটানো হচ্ছে।তিনি বলেন, কেউ ছাত্রলীগের সুনাম নষ্ট করতে চাইলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ছাত্রলীগের কেউ এ ঘটনায় জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
গত ৪ জানুয়ারি ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনকে আওয়ামী লীগ সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩১ মার্চ সম্মেলন করার জন্য বলেন।এ ছাড়া গত ৭ মার্চ, বুধবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভার আগে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগকে ডেকে নিয়ে পূর্বনির্ধারিত সময় ৩১ মার্চে ছাত্রলীগের সম্মেলনের প্রস্তুতির তাগিদ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

পরে ৮ মার্চ বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করার পর সম্মেলন স্থগিতের ঘোষণা দেন। 

এসএম জাকির হোসাইন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘৩১ মার্চ সম্মেলন হচ্ছে না। তবে সময়মতোই ছাত্রলীগের সম্মেলন হবে। সম্মেলনের তারিখ পরবর্তীতে জানিয়ে দেওয়া হবে।’২০১৫ সালের ২৬ জুলাই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সম্মেলনের মাধ্যমে নেতৃত্বে আসেন সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী গত বছরের ২৬ জুলাই বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হয়।

 

সূত্র: প্রিয় ডটকম।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK