বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
Saturday, 24 Aug, 2019 01:30:08 am
No icon No icon No icon

ন্যাপপ্রধান অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ আর নেই

//

ন্যাপপ্রধান অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ আর নেই


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: প্রবীণ রাজনীতিবিদ ও ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ প্রয়াত হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইসমাইল হোসেন জানান, গত  ১৪ আগস্ট অধ্যাপক মোজাফফর ঠাণ্ডা লেগে বুকে কফ জমা ও মেরুদণ্ডে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত সোমবার তাঁকে আইসিইউতে নেন চিকিৎসকরা। আইসিইউ’তে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তার মৃত্যু হয়।
তাঁর পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, তিনি বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন। বেশ কয়েক বছর ধরেই অসুস্থ অবস্থায় রাজধানীর বারিধারায় মেয়ের বাসায় দিন কাটাচ্ছিলেন অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ।
অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিবনগর সরকারের ছয়জন উপদেষ্টার একজন ছিলেন। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতা যুদ্ধে তার ভূমিকা অবিস্মরণীয়। জীবন সায়াহ্নে এসে বারিধারার পার্ক রোডে মেয়ের বাড়িতে থাকতেন তিনি। 
প্রবীণ রাজনৈতিক অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে শোক ও গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে দেশের মহান স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ এবং বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনের ভূমিকার কথা স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ‘দেশের প্রগতিশীল রাজনীতিতে তার অবদান জাতি চিরদিন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।’ শোক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী মরহুমের পরিবারের শোকাহত সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান এবং বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।
এদিকে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে শোক ও গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
এ ছাড়া মওলানা ভাসানীর নেতৃত্বে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি ও মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া।
শোক বার্তায় তারা বলেন, বাংলাদেশের জাতীয় রাজনীতিতে কিংবদন্তিতুল্য এ নেতার মৃত্যুতে দেশ হারালো একজন অভিভাবক রাজনীতিককে।
জীবনে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ কখনও অন্যায়ের সঙ্গে আপস করেননি মন্তব্য করে ন্যাপ নেতারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধে অবদানস্বরূপ সরকার ২০১৫ সালে তাকে স্বাধীনতা পদকের জন্য মনোনীত করলেও তিনি সবিনয়ে তা ফিরিয়ে দেন। তার মতে, রাজনীতির অর্থ দেশ এবং মানুষের সেবা। পদ বা পদবির জন্য কখনও রাজনীতি করেননি তিনি। পদক দিলে বা নিলেই যে মানুষ সম্মানিত হয়, এ দৃষ্টিভঙ্গিতে তিনি বিশ্বাসী ছিলেন না।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশসহ বাম ও সাম্রাজ্যবাদবিরোধী রাজনীতিতে কিংবদন্তিতুল্য মোজাফফর আহমদ ১৯২২ সালের ১৪ এপ্রিল কুমিল্লার দেবিদ্বারের এলাহাবাদ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। মোজাফফর আহমদের রাজনৈতিক জীবনের শুরু ১৯৩৭ সালে। তিনি ১৯৫২ সালের মহান ভাষা আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। রাজনীতির পাশাপাশি তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা কলেজসহ বিভিন্ন কলেজে শিক্ষকতা করেছেন। ১৯৫৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপনা ছেড়ে দিয়ে সম্পূর্ণভাবে রাজনীতিতে যুক্ত হন। নিজেকে তিনি সবসময় ‘কুঁড়েঘরের মোজাফফর’ বলে পরিচয় দিতে পছন্দ করতেন। মুক্তিযুদ্ধে অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ তাঁকে ২০১৫ সালে স্বাধীনতা পদকের জন্য মনোনীত করা হয়, তবে তিনি তা ফিরিয়ে দেন। 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK