বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
Saturday, 01 Jun, 2019 06:30:37 pm
No icon No icon No icon

ভোগান্তি সঙ্গে নিয়েই শেকড়ের টানে বাড়িতে ছুটছে মানুষ

//

ভোগান্তি সঙ্গে নিয়েই শেকড়ের টানে বাড়িতে ছুটছে মানুষ


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে ভোগান্তি নিয়েই ছুটছে মানুষ। শিডিউল অনুযায়ী শনিবার দ্বিতীয় দিনের মতো ছেড়ে যায়নি কোন ট্রেন। এর ফলে ঢাকা রেলস্টেশন ও বিমানবন্দর স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে ক্রমে বাড়ছে অপেক্ষা মানুষের ভিড়। শিডিউল অনুযায়ী ট্রেন না ছাড়ায় হতাশা প্রকাশ করেন যাত্রীরা। ঈদ আসলেই টিকিটপ্রাপ্তি থেকে শুরু করে বাড়ি পৌঁছা পর্যন্ত পথে পথে ভোগান্তি পোহাতে হয় ঘরমুখো মানুষদের। তবুও ঘরে ফেরাতেই যেন সব আনন্দ। একঘেয়েমি জীবনের সাময়িক বিরতি দিয়ে কর্মজীবী এসব মানুষের সামনে আসে প্রিয়জনের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয়ার মুহূর্ত। প্রিয়জনের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয়ার ঐতিহ্য বাঙালির দীর্ঘদিনের। তাইতো শত ভোগান্তি-বিড়ম্বনা উপেক্ষা করে মানুষ ছুটে চলেছেন শেকড়ের টানে টানে।
শনিবার সকাল থেকেই কমলাপুর স্টেশনে সব ট্রেনগুলো ঘরে ফেরা মানুষের ভিড়ে ঠাসা। তবে অন্যান্য ট্রেনের তুলনায় উত্তরবঙ্গগামী ট্রেনেগুলোতে মানুষের উপস্থিতি ছিল অনেক বেশি। শনিবার সকাল থেকে কিছুটা বিলম্বে ট্রেন ছেড়ে গেলেও চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ৩ ঘণ্টা বিলম্বে ছাড়েছে। ট্রেনটি ছেড়ে যাওয়ার নির্ধারিত সময় সকাল ৮টা হলেও ১০টা ৫৫ মিনিটে প্ল্যার্টফর্মে পৌঁছায়। রংপুর এক্সপ্রেস সকাল ৯টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও তা একঘণ্টা বিলম্বে ১০টার পরে ছেড়ে যায়। রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি গত শুক্রবার প্রায় ৭ ঘণ্টা বিলম্ব স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে পৌঁছায়। ফলে অতিরিক্ত একটি ট্রেনকে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের নামকরণ করে শনিবার কমলাপুর ছাড়ে গেছে। এতে করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা। ট্রেনটিরা বলেন, গত ২৩ মে দীর্ঘ ১৪ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে ট্রেনটির এসি টিকিট পেয়েছিলাম। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বাড়ি যাচ্ছি কিন্তু রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের এসি সিট আর এই এসি সিট এক নয়। তাহলে আমার এত ভোগান্তি সহ্য করে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কেটে কী লাভ হলো? তিনি আরও বলেন, ওই ট্রেনে এসির যতগুলো সিট এই ট্রেনে ততগুলো নেই। কর্তৃপক্ষ প্রথম শ্রেণি-এসি মিলিয়ে ওই ট্রেনের যাত্রীদের এই ট্রেনে বসিয়েছে।
খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেসের শনিবার সকাল ৭টা ১৯মিনিটে ছাড়ার কথা থাকলেও ছেড়েছে ৮টা ২০ মিনিটে। সকাল সোয়া ৮টায় ছাড়ার কথা থাকলেও উত্তরবঙ্গগামী একতা এক্সপ্রেস দুই ঘণ্টা দেরিতে সকাল ১০টায় ছেড়েছে। এছাড়া অগ্নিবীণা এক্সপ্রেসও নির্ধারীত সময়ের চেয়ে দুই ঘণ্টা দেরিতে প্ল্যাটফর্ম-৭ ছেড়েছে। চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস প্রায় ৩ ঘণ্টা দেরিতে ছাড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক যাত্রীরা। ছেড়ে যাওয়া অর্ধশতাধিক ট্রেনের প্রায় সবগুলোই দেরিতে ছেড়ে গেছে। ট্রেনের যাত্রীরা বলেন, একবার ১২ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কাটব, আবার ট্রেন লেটের কারণে স্টেশনে বসে কাক্সিক্ষত ট্রেনটির জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনতে হবে। আসলে আমাদের সিস্টেমই খারাপ। বিশ্বের কোনো দেশে মনে হয় ঈদে বাড়ি ফেরার জন্য মানুষকে এভাবে ভোগান্তি পোহাতে হয় না। ভোগান্তি নিরসনে এক অ্যাপ বানানো হলো, কিন্তু যাত্রীরা আশানুরূপ সুফল পেল না। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রমজান মাসে দীর্ঘক্ষণ স্টেশনে ট্রেনের জন্য অপেক্ষার চেয়ে বড় বিড়ম্বনা আর কিছু থাকতে পারে না ।
এ বিষয়ে কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার আমিনুল হক বলেন, গত শুক্রবার ট্রেনটি ব্যাপক লেট ছিল, সেই গ্যাপটা পূরণ করতে আমরা অন্য একটি ট্রেনকে রংপুর এক্সপ্রেস নামকরণ করে আজকের মতো পাঠিয়েছি। তবে আগামীকাল (রোববার) থেকে রংপুর এক্সপ্রেস মূল ট্রেনটিই চলাচল করবে। যাত্রীরা যেন নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরতে পারেন সেজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ছাড়াও রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনী দায়িত্ব পালন করছে জানিয়ে আমিনুল হক বলেন, যেকোনো ধরনের যাত্রী হয়রানি দেখা গেলেই তা প্রতিরোধ করা হবে।
ট্রেন বিলম্বে ছেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যে ট্রেনগুলো দেরিতে কমলাপুরে পৌঁছেছে, সেই ট্রেনগুলোই ছাড়তে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। তবে আমরা চেষ্টা করছি ট্রেন ছাড়তে যেন আর বিলম্ব না হয়। সঠিক সময়ে যাতে সব ট্রেন ছেড়ে যেতে পারে তার চেষ্টা করছি।
এদিকে, ঈদুল ফিতরের সময় দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ৮ জোড়া বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে। তবে বিশেষ ট্রেনের টিকিট অ্যাপের মাধ্যমে কাটা যাবে না। দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল (এক জোড়া) ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা রুটে চলবে। চাঁদপুর ঈদ স্পেশাল (২ জোড়া ট্রেন) চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রুটে চলবে। মৈত্রীর রেক দিয়ে খুলনা ঈদ স্পেশাল ট্রেন ঢাকা-খুলনা-ঢাকা; ঈশ্বরদী স্পেশাল ঢাকা-ঈশ্বরদী-ঢাকা, লালমনি ঈদ স্পেশাল ট্রেন লালমনিরহাট-ঢাকা-লালমনিরহাট রুটে চলাচল করবে। দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল ও চাঁদপুর ঈদ স্পেশাল ট্রেন ঈদের আগে ২, ৩ ও ৪ জুন এবং ঈদের পর ৬-১২ জুন চলাচল করবে। খুলনা ঈদ স্পেশাল ৩ জুন দিবাগত রাতে একটি ট্রিপ চলবে। ঈশ্বরদী স্পেশাল ও লালমনি ঈদ স্পেশাল ট্রেন ঈদের আগে ২, ৩ ও ৪ জুন চলবে। এ ছাড়া ঈদের দিন শোলাকিয়া স্পেশাল-১ (ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার) এবং শোলাকিয়া স্পেশাল-২ (ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ) চলাচল করবে।
অপর একটি সূত্র জানায়, টঙ্গী থেকে জয়দেবপুরের চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত চালক ও যাত্রীদের ভোগান্তি কমাতে কাজ করে যাচ্ছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। গতকাল সকাল থেকেই ১২ কিলোমিটার সড়কের বোর্ড বাজার, চেরাগআলী, বড়বাড়ি, এরশাদ নগর, স্টেশন রোড এলাকায় পুলিশ ও সিটি করপোরেশনের কর্মীরা কাজ করছেন। ঈদ উপলক্ষে মহাসড়কের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বন্ধ রাখা হয়েছে।
গাজীপুর মেট্রোর ট্রাফিকের দায়িত্বে থাকা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এসএসপি) থোআই অংপ্রু মারমা জানান, এবার লম্বা ছুটির কারণে মহাসড়কে চাপ পড়বে না। চালক ও যাত্রীদের যেকোনো ধরনের ভোগান্তি এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক নিয়োজিত রয়েছেন। তবে সড়কে ভোগান্তি এড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে গাজীপুর সিটি করপোরেশন। টঙ্গী থেকে গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার সড়কে বিআরটি প্রকল্পের কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের নির্বিঘ্নে যাতায়াত করা এবং রাস্তার কারণে যেন কোনো যানজট সৃষ্টি না হয়, সেজন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিশেষ নজর রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন সিটি মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম।

 

 

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK