বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯
Sunday, 24 Mar, 2019 10:43:05 am
No icon No icon No icon

মানিকগঞ্জে শিশু হত্যায় দুটি মামলায় ৯ জন গ্রেফতার


মানিকগঞ্জে শিশু হত্যায় দুটি মামলায় ৯ জন গ্রেফতার


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: মানিকগঞ্জে শিশু সুজয় দেবনাথের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ ও সুজয়ের মামা রুমন দেবনাথ পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করেন। এ দুই মামলায় তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। এদিকে গ্রেফতার আতংকে ওই এলাকা ৪টি গ্রাম পুরুষ শুন্য হয়ে পড়েছে। পুলিশের উপর হামলা ও গাড়ি ভাংচুরের অভিযোগে মানিকগঞ্জ সদর থানার এসআই মানবেন্দ্র বালো বাদি হয়ে অজ্ঞাত ২/৩ শ লোকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় একজন মেম্বারসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ওই শিশুকে হত্যা করে তার লাশ পুকুরে ফেলে দেয়ার অভিযোগে সুজয়েরে বড় চাচা রঞ্জিত দেবনাথ এবং তার বড় চাচী স্ত্রী নিপা দেবনাথ ও কলেজ পরুয়া চাচাতো বোন রিতু দেবনাথকে আসামি করে মামলা করেছে নিহত সুজয়ের মামা রুমন দেবনাথ। ৫ বছরের ব্যাবধানে দুটি সন্তানকে হারিয়ে সুজয়ের মা বাক রুদ্ধ হয়ে গেছে। কারো সাথে কথা বলছেনা।
মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার ভারাড়িয়া ইউনিয়নের কাকুরিয়া গ্রামের ইতালী প্রবাসী সঞ্জয় দেবনাথের পাঁচ বছর বয়সী ছেলে সুজয় দেবনাথ ১৮ মার্চ সোমবার দুপুর নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। ২১ মার্চ বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশে পুকুর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে সম্পত্তির লোভে সুজয়কে তার কাকা কাকি তাকে আটক রেখে নির্যাতন করে হত্যা করেছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে জনতার হাতে আটকে থাকা পাঁচজনকে উদ্ধার করে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে গেছে। আটককৃতরা হলো রনজিত দেব নাথ, তার মা মায়া দেবনাথ, স্ত্রী নিপা দেব নাথ, মেয়ে রিতু দেব নাথ ও ছেলে নিলয় দেবনাথ। নিহত সুজয় মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার ভারাড়িয়া ইউনিয়নের কাকুরিয়া গ্রামের ইতালি প্রবাসী সঞ্জয় দেবনাথের ছেলে।
নিহত সুজয়ের বড়বোন সুস্মিতা দেবী এই প্রতিনিধিকে জানান, পূর্ব শত্রæতার জের ধরেই তার ভাই সুজয়কে ওরা মেরে ফেলেছে। তিনি জানান, গত ৫ বছর আগে তার আরেক বোন সংগীতা দেবীকে ধাক্কা দিয়ে পুকুরে ফেলে দিয়ে হত্যা করে। সেই থেকে  তাদের সাথে প্রতি নিয়তই ঝগড়া লেগেই থাকতো। তার বাবা ইাতালি থেকে দেশে এসে মানিকগঞ্জ শহরে ৭০ লাখ টাকা দিয়ে একটি জায়গা কিনে। ১৫ দিন আগে সঞ্জয় দেবনাথ আবার ইতালি চলে যায়। এর পর থেকেই কাকা কাকি ও কাকাতো ভাই বোনেরা তাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করতো।
সঞ্জয় দেবনাথ ইতালি থেকে তার ভাই রঞ্জিত দেব নাথের কাছেই টাকা পাঠাতো এবং সেই সংসারের দেখভাল করতো। সঞ্জয় দেব নাথ বড় ভাই রঞ্জিত দেব নাথকে খুব বিশ্বাস করতো। কিন্তু ৭০ লাখ টাকার সম্পত্তি একার নামে দলিল করার পরই প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে সুজয়কে অপহরণ করে মেরে গুম করে লুকিয়ে রাখে। দুর্গন্ধ বের হওয়ার ভয়ে রাতের আঁধারে বাড়ির পাশে পুকুরে ফেলে দেয়।
নিহত সুজয়ের বেড়বোন সুস্মিতা দেবী আরো জানান, তার মা বাসন্তী দেবনাথ ১৮ মার্চ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে পুকুরে গোসল করতে যায়। সেখান থেকে ফিরে সুজয়কে বাড়িতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। গ্রামসহ আশেপাশের এলাকায় খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করা হয় ও কাকা রঞ্জিত দেব নাথ মানিকগঞ্জ সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পুলিশ এসে এলাকায় প্রতিটা বাড়িতে ঘর তল্লাশিও চালায়।
এলাকাবাসী জানান, ২০ মার্চ বৃহস্পতিবার সকালে রাস্তার পাশে পুকুরে একটি লাশ ভাসতে দেখে চিৎকার করতে থাকেন। এক এক করে হাজার হাজর মানুষ জড়ো হয়ে যায় এবং ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে ওই বাড়িটিও ঘেরাও করে দরজা জানালা ভেঙে ঘরে ঢুকে মারধর করে আটকে রাখে। বিক্ষিপ্ত জনতার হাত থেকে পাঁচজনকে উদ্ধার করে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
স্থানীয় জনতা পুলিশের দেরী দেখে পুলিশের গাড়িতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে ও ভাঙচুর চালায় । পুলিশ দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে পরিস্থিতি শান্ত করে। এদিকে একমাত্র শিশুকে হারিয়ে তার মা বাসন্তী দেব নাথ পাগল হয়ে গেছেন। সস্তান হারিয়ে তিনি বারবার মুর্ছা  যাচ্ছেন।

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK