শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯
Wednesday, 20 Mar, 2019 11:14:50 am
No icon No icon No icon

ঢাকায় বাসচাপায় ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী নিহত: ফের সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ


ঢাকায় বাসচাপায় ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী নিহত: ফের সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: সু-প্রভাত পরিবহনের বাসচাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহম্মেদ চৌধুরী নিহতের ঘটনায় দ্বিতীয় দিনের মতো সড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রাজধানীর প্রগতি সরণিতে যমুনা ফিউচার পার্কের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন তারা। এর ফলে এ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। জানা গেছে, আজ সকাল থেকেই যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে জড়ো হতে থাকেন শিক্ষার্থীরা। পরে সাড়ে ৯টার দিকে তারা সড়কে নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন।
আন্দোলনে অংশ নেওয়া বিইউপির শিক্ষার্থী এহাসানুল হক বলেন, আমাদের দাবি আদায়ে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আজ (বুধবার) আবারও সড়কে অবস্থান নিয়েছে। শুধু প্রতিশ্রুতি নয়, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।’  এদিকে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শিক্ষার্থীদের পাশেই অতিরিক্ত পুলিশ অবস্থান নিয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার বাসচাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহত হওয়ার পর আজ বুধবার ছাত্র আন্দোলন ও পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের কড়াকড়ির কারণে গণপরিবহনের সংকট তৈরি হয়েছে।
সড়কে গণপরিবহনের সংখ্যা অত্যন্ত কম থাকায় বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে যাত্রীদের দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও কোনো গণপরিবহনের দেখা মিলছে না। ফলে অফিসযাত্রীরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং ব্যাংক-বীমায় কর্মরত হাজার হাজার মানুষকে অফিসে যাওয়ার জন্য সিএনজি ও ট্যাক্সির মতো ব্যয়বহুল পরিবহন কিংবা অন্য কোনো উপায়ের আশ্রয় নিতে হচ্ছে। দুয়েকটি বাস চললেও অতিরিক্ত ভিড়ের কারণে সেগুলোতে উঠতে পারছেন না।
চাহিদার তুলনায় সিএনজি অটোরিকশা ও ট্যাক্সির মতো যানবাহন কম থাকায় বেশি ভাড়া দাবি করা হচ্ছে। তারপরও অফিস ও গন্তব্যে পৌঁছাতে রাজি হচ্ছেন নগরবাসীরা। কিন্তু যাত্রীর চেয়ে যানবাহন কম হওয়ায় সেগুলোতেও জায়গা হচ্ছে না অনেকের।
প্রগতি সরণিতে বাস চাপায় এক শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর চেয়ারম্যান চিত্রতারকা ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি চালকদের আরো মানবিক হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বানও জানান। এক বিবৃতিতে তিনি কয়েকটি প্রশ্ন তুলেছেন। যেখানে তিনি প্রশ্ন করেন, চালকদের মানসিকতা পরিবর্তন করার দায়িত্ব যাদের তারা কেন এত উদাসীন? কেন চালকরা পাল্টাপাল্টিভাবে বেপরোয়া গাড়ি চালানোর মানসিকতা পোষণ করে? কেন তারা চালকদের দক্ষতা ও সচেতনতার প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন না? শহরে যান চলাচলের ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কেন আইনের কঠোর প্রয়োগ ঘটাতে পারছে না, এক্ষেত্রে এসব ত্রুটি কেন এতদিনেও চিহ্নিত করা যায়নি তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।
ইলিয়াস কাঞ্চন সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানান, চালকদের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর মানসিকতা পরিবর্তনে উদ্যোগ গ্রহণ করুন। তাদের আরও মানবিক হিসেবে গড়ে তুলুন।
সংশ্লিষ্টদের অবহেলার কারণে সড়কে রক্ত ঝরছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে তা সমাধানে কোনোই পদক্ষেপ নিচ্ছে না। মঙ্গলবার সংগঠনের প্রচার সম্পাদক এ কে এম ওবায়দুর রহমানের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এ বিবৃতি এসব কথা জানান।
ইলিয়াস কাঞ্চন আরও বলেন, গত বছর নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দালনের সময় শিক্ষার্থীদের দাবি ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের যে ১৭ দফা নির্দেশনা ছিল সেগুলো সে সময় সাময়িকভাবে নিতে দেখা গেলেও এখন আর সেগুলোর বিষয়ে কার্যকর উদ্যোগ নিতে দেখা যাচ্ছে না।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK