শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯
Wednesday, 19 Dec, 2018 11:09:36 am
No icon No icon No icon

সহিংসতার স্মৃতি: 'যারা পেট্রোল বোমা মারে তাদের চাই না'


সহিংসতার স্মৃতি: 'যারা পেট্রোল বোমা মারে তাদের চাই না'


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: 'আমরা আমাদের শরীর থেকে মাংস খসে পড়তে দেখেছি। কী যন্ত্রণা নিয়ে পার করেছি রাতের পর রাত বোঝানো যাবে না। পেট্রোল বোমা মেরে যারা ক্ষমতা দখল করতে চায়, তাদের ভোট চাওয়ার কোনো অধিকার নেই। যারা মানুষের মুখ ঝলসে দিতে পারে, তাদের ভোট চাওয়ার অধিকার নেই।' কথাগুলো বলছিলেন বিএনপি-জামায়াতের পেট্রোল বোমায় আহত আইনজীবী খোদেজা আক্তার নাসরিন হোসেন। এখনও তিনি বয়ে বেড়াচ্ছেন সেই দুঃসহ স্মৃতি। ২০১৩ সালের ২৮ নভেম্বর রাজধানীর শিশু পার্কের কাছে বাসে বোমা হামলায় আহত হয়েছিলেন তিনি। তারপর হাসপাতালের আইসিইউতেই কেটেছে দীর্ঘদিন।
২০১৪ সালের ২৩ জানুয়ারি কাপাসিয়ার জমির উদ্দিন ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে ভয়াবহ পেট্রোল বোমা হামলার শিকার হন। তার সঙ্গে হামলার শিকার হয়েছিলেন আরও ২৯ জন। কেউ কেউ মারাও গেছেন। সেই ঘটনায় আহতদের সবার মুখেই একই রকম কথা। তারা বলেন, আমরা পেট্রোল বোমার মতো হত্যাকাণ্ডের রাজনীতি বাংলাদেশে চাই না। স্বাধীন দেশে এমন ঘটনা ঘটতে পারে না। ৩০ ডিসেম্বর ভোটের মাধ্যমে এসব সন্ত্রাসীকে প্রতিহত করতে হবে। এখনও প্রতিমাসে চিকিৎসা নিতে হয়। এ অবস্থা যেন আর কোনো রাজনৈতিক দল তৈরি না করে- এমন আহ্বান জানান আহতরা।
কেবল ঢাকায় নয়, সে সময় বিএনপি-জামায়াত বোমা হামলা করেছিল ঢাকার বাইরেও নানা জায়গায়। আবার ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকায় এসেও ভয়াবহতার মধ্যে পড়েন অনেকে। তেমনই একজন কাপাসিয়ার জমির উদ্দিন। ২০১৪ সালের ২৩ জনুয়ারি তিনি ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে ভয়াবহ পেট্রোল বোমা হামলার শিকার হন। জমিরের শরীরের বিভিন্ন অংশে এখনও পোড়া আর ঝলসে যাওয়া ক্ষত। একই ঘটনায় আহত মো. খোকন তার স্বাভাবিক চেহারা হারিয়ে ফেলেছেন। খোকন বলেন, আমাদের মতো যারা বিনা অপরাধে এই জীবন পেয়েছি, তারাই জানি কী যন্ত্রণা বয়ে বেড়াচ্ছি। যারা এর জন্য দায়ী, তারা এখন ভোটের মাঠে নেমে আবারও ক্ষমতায় আসার চেষ্টা করছে। আমরা এর প্রতিবাদ জানাই।
যশোরের ঝিকরগাছার নারগিস আক্তার তার স্বামী হারিয়েছেন। তিন সন্তানের জননী নারগিস জানেন না, তার জন্য ভবিষ্যতে কী আছে। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, আমার জীবনে যে অন্ধকার নেমে এসেছে তা আর কাটবে না। আমি তাদের উচিত শাস্তি চাই। যারা জীবন্ত মানুষের গায়ে আগুন দিতে পারে, তারা মানুষ নয়।
বোমা হামলায় আহত রুবেল হোসেন তার দুঃসহ স্মৃতি উল্লেখ করে বলেন, চট্টগ্রাম থেকে গাড়ি নিয়ে আসছিলাম, আমার সঙ্গে গরুর রাখালসহ আরও তিনজন ছিল। পেট্রোল বোমায় সবাই মারা গেছে। মুখে কাপড় বাঁধা একটা লোক বোমা মেরেছিল। আমি চলতি গাড়ি থেকে লাফ দিয়েছিলাম বলেই বেঁচে গেছি। আমি চাই না আপনারা এদের আবার নির্বাচিত করে আনেন। এ বড় কষ্টের।
বগুড়ার সাজু মিয়া বলেন, আমি কাজ থেকে ফেরার পথে পেট্রোল বোমা হামলার শিকার হই। আমাদের দেশে আর যাতে কেউ এ ধরনের ঘটনার শিকার না হয়।
পেট্রোল বোমায় আহত ফুরকানের প্রশ্ন- ক্ষমতার পালাবদলে কেন তার মতো মানুষকে হাতিয়ার হতে হয়। বিএনপি-জামায়াতের কাউকে যেন মানুষ ভোট না দেয়, সে আহ্বান জানান তিনি। 
ঢাকার ইডেন কলেজের ছাত্রী সাথি এখন কোনো অনুষ্ঠানে যেতে পারেন না। তার বাবা খোকন মিয়া বলেন, আমার মেয়ে ঘরের মধ্যেই নিজেকে বন্দি করে রাখে। কী তার অপরাধ? মেয়ে তো পরীক্ষা দিতে যাচ্ছিল। খোকন মিয়া বলেন, যাদের নিয়ে জোট গড়েছেন, তারা যে আর কোনো দিন পেট্রোল বোমা মারবে না- ড. কামাল হোসেন কি তার নিশ্চয়তা দিতে পারেন?
এবারের নির্বাচনে আগুন সন্ত্রাসীদের বিষয়ে জানতে চাইলে বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, ৩০ ডিসেম্বর ভোটের মাধ্যমে বিএনপি-জামায়াত জোটকে প্রতিহত করতে হবে। নির্বাচনে সাঈদী-সাকার পুত্ররা নির্বাচিত হলে তা হবে জাতির জন্য লজ্জাজনক। তারা সংসদে এলে সংসদের অবমাননা হবে।
সূত্র:সমকাল।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK