শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮
Sunday, 20 May, 2018 12:05:11 pm
No icon No icon No icon

তিন জেলায় মাদকবিরোধী অভিযানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ জন নিহত


তিন জেলায় মাদকবিরোধী অভিযানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ জন নিহত


হারুন অর রশিদ, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: ময়মনসিংহ, ফেনী ও বরিশাল জেলায় মাদক বিক্রেতাদের ধরতে পুলিশের অভিযানের সময় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন যুবক নিহত হয়েছেন। শনিবার দিবাগত রাতে ময়মনসিংহ নগরীর মাসকান্দা গনশার মোড় এলাকায়, রোববার ভোরে ছাগলনাইয়া উপজেলার পাঠাননগর ইউনিয়নের পশ্চিম পাঠানগড় এলাকা এবং একই সময় শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের দক্ষিণ চরআইচা গ্রামের বটতলাবাজারে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। পুলিশের দাবি, নিহতরা মাদক বিক্রেতা ছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতি ও মাদক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি আশিকুর রহমান জানান, শনিবার দিবাগত রাত সোয়া ২টার দিকে নগরীর মাসকান্দা গনশার মোড় এলাকায় কয়েকজন ব্যক্তি মাদক ভাগাভাগি করছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পরে অন্যান্য মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে গেলেও গুলিবিদ্ধ হন বিপ্লব। পরে তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক বিপ্লবকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে ২০০ গ্রাম হিরোইন, ২০০ ইয়াবা, তিনটি গুলির খোসা ও দুটি চাকু উদ্ধার করেছে বলে জানান ওসি।
এদিকে ফেনীর ছাগলনাইয়া থানার ওসি এম মোর্শেদ বলেন, ছাগলনাইয়ার পশ্চিম পাঠানগড় এলাকায় মাদকের একটি বড় চালান যাওয়ার খবরে পুলিশের একটি দল সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি করে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থলে আলমগীরকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আলমগীরকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এ অভিযানে দেলোয়ার হোসেন ও মতিয়ার রহমান নামে পুলিশের দুই এএসআই আহত হয়েছেন এবং তাদের জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
নিহত আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া একজন ‘চিহ্নিত মাদক চোরাকারবারি’। তার বিরুদ্ধে ফেনী সদর, ফুলগাজী ও ছাগলনাইয়া থানায় ৯টি মামলা রয়েছে। নিহত আলমগীর পাঠানগড় গ্রামের আবদুস ছালামের ছেলে।ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি বন্দুক, তিন রাউন্ড গুলি, এক হাজার ইয়াবা ও শতাধিক ফেনসিডিল উদ্ধার করে।
অন্যদিকে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউনিয়া থানার ওসি নুরুল ইসলাম-পিপিএম জানান, গত কয়েক দিন আগে দক্ষিণ চরআইচা গ্রামের আ. হক হাওলাদারের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কাউনিয়া থানায় একটি মামলা হয়, যা তদন্ত করছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। এ ছাড়া ইতিপূর্বে বেশ কিছু ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে শায়েস্তাবাদে।এলাকায় আরও ডাকাতির ঘটনা ঘটতে পারে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শায়েস্তাবাদ এলাকায় পুলিশি নজরদারি বাড়ানো হয়। শনিবার রাত ৩টার দিকে শায়েস্তাবাদসংলগ্ন নদী থেকে আলো দেখতে পেয়ে ডিবি পুলিশের একটি দলের সন্দেহ হয়।
তারা কাছাকাছি এগিয়ে গেলে ডাকাত সদস্যরা ডিবি পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এ সময় ডিবি পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। কিছু সময় বাদে ডাকাত সদস্যরা পালিয়ে যায়।
পরে ঘটনাস্থলের পাশে একটি মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। যার বয়স আনুমানিক ৩৮ বছর হবে।ওসি বলেন, এ ঘটনায় ডিবি পুলিশের এসআই দেলোয়ার, কনস্টেবল রফিক ও হাফিজ আহত হন। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, একটি রামদা, একটি চাপাতি, ৮ রাউন্ড গুলির খালি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।
এদিকে শায়েস্তাবাদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আরিফুজ্জামান মুন্না জানান, নিহত ডাকাত সদস্যকে স্থানীয়রা কেউ চিনতে পারেননি। তবে কয়েক দিন আগে আ. হক হাওলাদারের বাসায় যে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে, সে সময় এ যুবককে তিনি দেখেছিলেন বলে জানিয়েছেন।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK