বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯
Tuesday, 16 Jul, 2019 04:08:32 pm
No icon No icon No icon

ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ ১০ জন নিহত

//

ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ ১০ জন নিহত

এস.এম.নাহিদ, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : মাইক্রোবাসে করে সবেমাত্র বিয়ে করে বাড়ি ফেরার পথে ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ ৯ জন এবং পরে হাসপাতালে আরও ১জন নিহত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঈশ্বরদী-ঢাকা রেলপথের উল্লাপাড়ার সলপ রেলস্টেশনের উত্তরের রেলগেটে ঘটনাটি ঘটেছে। জানা যায়, বর-কনেসহ মাইক্রোবাসটি উল্লাপাড়ার চরঘাটিনা থেকে সিরাজগঞ্জের কালিয়া কান্দাপাড়া যাওয়ার পথে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর পদ্মা এক্সপ্রেস টেনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সময় ট্রেনটি মাইক্রোবাসটিকে টেনে প্রায় আধাকিলোমিটার দূরে সাহিকোলা গ্রামের কাছে নিয়ে যায়। এ সময় গ্রামের লোকজন ট্রেনটি অবরোধ করে। দুর্ঘটনায় নিহত তিন জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- নববধূ সুমাইয়া খাতুন (২১), বর রাজন আহমেদ (২২) ও বরযাত্রী শরিফ শেখ (৩৬)। ঘটনার পরপরই উল্লাপাড়া মডেল থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।
দমকল বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, দুর্ঘটনার সময় মাইক্রোবাস থেকে ছিটকে পড়ে রেল গেটের কাছে দুই জন এবং সাহিকোলা গ্রামের কাছে অপর সাত জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেওয়ান কওশিক আহমেদ ও সলপ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার শওকত ওসমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘নিহতদের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট শেখ ফজিলাতুননেসা মুজিব হাসপাতাল মর্গে প্রেরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আহত অপর তিন যাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ১জন মারা গেছেন। জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহম্মদ জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং লাশগুলো জিআরপি থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। আহতদের চিকিৎসা করা হচ্ছে। নিহতদের সঠিক পরিচয় পাওয়া গেলে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হবে। তিনি আরও জানান, এলাকাবাসীর দাবি দ্রুত রেলক্রসিং স্থাপন করা। ইতিমধ্যে রেল মন্ত্রণালয়ে সুরক্ষিত রেলক্রসিং নির্মাণের বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK