রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯
Thursday, 30 May, 2019 11:56:24 am
No icon No icon No icon

ভারসাম্যহীন উপার্জন সামাজিক বৈষম্যতার প্রধান অন্তরায়..!

//

ভারসাম্যহীন উপার্জন সামাজিক  বৈষম্যতার প্রধান অন্তরায়..!


এস.এম নাহিদ, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : বর্তমানে টিভি কিংবা পত্র-পত্রিকা খুললেই  চোখে পড়ছে হিংসা, বিদ্বেষ, নিয়ন্ত্রণহীন বাজার ব্যবস্থা, চাহিদার তুলনায় কর্মক্ষেত্রের ঘাটতি, বেঁচে থাকার জন্য নিম্ন আয়ের মানুষদের কঠোর সংগ্রাম, ব্যক্তি ক্ষমতার দম্ভ, স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন, সন্তানের হাতে পিতা খুন, মায়ের হাতে নবজাতকের হত্যা, ভাইয়ের হাতে ভাই খুন, প্রেম প্রত্যাখানের জেরে প্রেমিকাকে খুন, গ্যাং রেপ,অজ্ঞাত মৃতদেহ উদ্ধার, নৃশংস হত্যাকান্ড কিংবা আত্মহত্যা ইত্যাদি ইত্যাদি। সামাজিক অপরাধের মাত্রা সীমা অতিক্রম করেছে অনেক আগেই। তবে একটি বিষয় দেশের গোটা সমাজ ব্যবস্থাকেই সংক্রামক ব্যধির মত শুধুই গ্রাস করে চলেছে দিনের পর দিন। 
সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অটুট বন্ধনে থেকেও বৈষম্যতার নিষ্ঠুর  রূপ ক্রমশই আমাদের সমাজ ব্যবস্থাকে ভয়ংকর সামাজিক অপরাধের দিকে ধাবিত করছে। তার পরেও আমরা কেন এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টিকে ওভারকাম করতে পারছি না? এসবের দায়ভার কার? দ্রব্য মূল্যের উধ'গতিতে দেশের নীম্নআয়ের মানুষ এখন দিশেহারা। এসব বড় বড় সমস্যা গুলো যতদিন না সমাধান হবে,সামাজিক কিংবা যেকোন ধরনের অপরাধ ক্রমান্বয়ে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা থেকে যায় জনমনে। আমাদের সমাজ মূলতঃ উচ্চ বিত্ত, মধ্য বিত্ত, নীম্ন-মধ্য বিত্ত এবং দরিদ্র এই চারটি শ্রেণিতে বিভক্ত ছিল। বর্তমান সময়ে বাস্তবে কি আসলে তাই? ধনী ও গরীব এই দুইটি শ্রেণি ছাড়াতো অন্য কোন শ্রেণি-পেশার মানুষ চোখে পড়ছে না। আর একটু গভীরে গেলে দেখা যায় - বর্তমানে মধ্য বিত্ত শ্রেণির মানুষেরা জীবন পরিচালনায় হিমসিম খাচ্ছে প্রতিটি মুহুর্তেই। ফলে কেউ কেউ অনেকটা হতাশা কিংবা লোক লজ্জায় কঠোর বাস্তবতা থেকে ডুব দিচ্ছেন। আবার অল্প সময়ের মধ্যেই জীবনের পরিপূর্ণতা আনতেও অনেকে পরিবার তথা আপনজনদের নিকট থেকে বিছিন্ন হয়ে জড়িয়ে পড়ছেন নানা ধরনের অপরাধে। 
দায়িত্ববোধ এবং দেশপ্রেম একই সুতোঁয় গাঁথা। যার মধ্যে দেশপ্রেম থাকে তার মধ্যে দায়িত্ববোধও থাকে নিঃসন্দেহে। আর দায়িত্ববোধ থেকেই তৈরি হয় কর্মক্ষেত্র। আর এভাবেই ধীরে ধীরে ধর্য্যের সাথে সামাজিক বৈষম্যতার প্রাচীর ভেঙ্গে সুস্থ্য ও সুন্দর জীবনের লক্ষ্যে একজন ব্যক্তি পারে তার জীবনের কাঙ্খিত লক্ষ্য স্থানে যেতে। তবে এক্ষেত্রে আয় এবং ব্যয়ের মধ্যকার বিশাল অসংগতি এবং নিত্য পণ্যের উর্দ্ধমূখী আগ্রাসন রোধ করাটা রাষ্ট্রের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। উপার্জনের তারতম্যটা স্বাভাবিক না থাকলে সামাজিক অপরাধের প্রবণতাও থেকে যায় জনমনে। দেশের প্রচলিত আইন যেমন পরাজিত আত্মহননের কাছে - তেমনি দিনের পর দিন সামাজিক বৈষম্যতাও অসহায় হয়ে পড়েছে ভারসাম্যহীন উপার্জনের কাছে। 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK