শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯
Thursday, 18 Apr, 2019 08:14:50 pm
No icon No icon No icon

বখাটেদের কারণে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে মীম

//

বখাটেদের কারণে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে মীম

টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : বাগেরহাট জেলার চিতলমারী উপজেলার চরশৈলদাহ গ্রামের নবম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী সানজিদা আক্তার মীম ওরফে তিথি (১৪) বখাটেদের উত্যক্ততার কারণে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে। পরবর্তীতে আসামিদের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে থানা মামলা গ্রহণ না করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের ৩য় তলায় আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে মীমের স্বজনরা এই দাবি করেছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে মীমের বাবা মো. ইউনুস আলী শেখ জানান, তার মেয়েকে গত এক বছর ধরে নাজিরপুরের চরমাটিভাঙ্গা গ্রামের মো. ওমর শেখের পুত্র বাধন শেখ তার বন্ধুদের নিয়ে মীম বিদ্যালয়ে যাতায়াতের পথে প্রায়ই উত্যক্ত করতো। বখাটেদের অত্যাচারে এবং শারিরিক নিগৃহের কারণে সে উক্ত স্কুলে যাতায়াত অসম্ভব হয়ে পরলে তার মা রমিচা বেগম বখাটে বাধন শেখের অভিভাবকদের বিষয়টি অবহিত করেও কোনরূপ সমাধান না পেয়ে স্কুল শিক্ষকদেরও অবহিত করেছিলেন এতে বখাটে বাধন শেখ ক্ষিপ্ত হয়ে আরো বেশি উত্যক্ত করতে থাকে। এমতাবস্থায় মিমের পরিবার কোন উপায়ান্ত না পেয়ে ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে মীমের জীবন রক্ষার্থে তার দাদাবাড়ি বাগেরহাট জেলার চিতলমারী থানার হিজলা ইউনিয়নের মুক্তবাংলা চারিপল্লী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে (পাঙ্গাসিয়া বিদ্যালয়) নবম শ্রেনীতে ভর্তি করে দেয়। মীমকে মুক্তবাংলা চারিপল্লী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে (পাঙ্গাসিয়া বিদ্যালয়) ভর্তি করার পরে বখাটে বাধন ও তার সহযোগীরা আরো বেশি বেপরোয়া হয়ে বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকিসহ উত্যক্ত করতে থাকে। 
মো. ইউনুস আলী শেখ আরো জানান, গত ৪ এপ্রিল তারিখে মীম স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে পূর্ব পরিচিত খাদিজা আক্তার বয়স ১৯ বছর মীমকে বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে একটি অটো রিক্সায় ওঠায়, অটো রিক্সা কিছুদূর যাওয়ার পর খাদিজা পথিমধ্যে তার বন্ধু বখাটে বাধনসহ অন্যন্য বন্ধুদের অটো রিক্সায় ওঠায়। সেখানে বাধন ও তার বন্ধুরা মীমের সাথে অশোভন আচরণ করতে থাকে। এক পর্যায়ে মিমের আত্মচিৎকারে স্থানীয় লোকজন বখাটেদের বাধা দিয়ে আটকে রাখে। বিষয়টি এলাকায় রটে যায়। ফলশ্রæতিতে সমাজ, লোকলজ্জার এবং ভবিষ্যতে আবারও বখাটেদের আক্রমনের শিকার হওয়ার আশংকায় গত ৫ এপ্রিল শুক্রবার আনুমানিক সকাল ৯ টায় দাদার বাড়িতে বসতঘরের আরার সাথে গলায় ওরনা পেচিয়ে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়। যেহেতু স্কুল ও জেলা পরিবর্তন করেও উক্ত বখাটে বাধন শেখের উত্যক্ত থেকে রেহাই পায়নি তাই সে আত্মহত্যার মাধ্যমে সে জীবন থেকে রেহাই নিয়েছে।
সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়, এ বিষয়ে প্রতিবাদে সহপাঠী শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন, নীরবতা পালন ও মানববন্ধন করেছে। বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ, এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি এবং মীমের পরিবার এই প্রতিবাদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন। এ বিষয়ে প্রশাসন ও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। 
মুক্তবাংলা চারিপল্লী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলক চন্দ্র মন্ডল জানান, এই হত্যার প্রতিবাদ জানাই। এ বিষয়ে থানায় মামলা করতে গেলে থানা কর্তৃপক্ষ আসামিদের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে মামলা গ্রহণ করেনি। অগত্যা বাধ্য হয়ে মিমের পিতা ইউনুস আলী শেখ বাগেরহাট আদালতে মামলার আবেদন করে। আবেদনের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত চিতলমারি থানাকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এমননি প্রেক্ষপটে মীমের স্বজনরা আশংকা করছে তারা ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হতে পারে। #

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK