সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯
Monday, 28 Jan, 2019 06:44:28 pm
No icon No icon No icon
সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ

মিরপুরে নূরুন নাহারের জমি দখল করে নিয়েছে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মানিক

//

 মিরপুরে নূরুন নাহারের জমি দখল করে  নিয়েছে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মানিক

টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : মিরপুরের চিহিৃত ভূমিদস্যু ও ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর (উত্তর) কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক এবং তার চাচা হারুন আর রশিদ মিলে জোরপূর্বক মোসাম্মদ নূরুন নাহারের ৯ কাঠা জমি দখল করে অন্য মানুষের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। উক্ত ঘটনায় মোসাম্মদ নূরুন নাহার আদালতে মামলা করলে ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসীদের গডফাদার কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক ক্ষিপ্ত হয়ে নূরুন নাহার ও তার পরিবারের সদস্যদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। বর্তমানে সন্ত্রাসীদের হুমকি নূরুন নাহার ও তার পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। সোমবার দুপুর ১২টার দিকে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনে সাংবাদিক সম্মেলনে ভুক্তভোগী মোসাম্মদ নূরুন নাহার এইসব অভিযোগ করেন। এ সময় সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ওমর মোল্লা জিতু ও নাজমা বেগম।  
সাংবাদিক সম্মেলনে ভুক্তভোগী মোসাম্মদ নূরুন নাহার লিখিত বক্তব্যে বলেন, পল্লবী থানার ৫ নং পলাশনগরে মৃত অহিদ মোল্লার মেয়ে হচ্ছে নূরুন নাহার। তিনি ৫নং পলাশনগরের স্থায়ী বাসিন্দা। তার পলাশ নগরে রেকর্ড মহানগর খতিয়ান নং ১৬৫১, দাগ নং-১৫৬৪২, জমির পরিমান ৩৩ শতাংশ বা ২০ কাঠা জমি রয়েছে। চিহিৃত ভূমিদস্যু ও ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর (উত্তর) কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক এবং তার চাচা হারুন আর রশিদ মিলে জাল দলিল তৈরি করে জোরপূর্বক নূরুন নাহারের ৯ কাঠা জমি দখল করে নিয়েছে। পরে ভ‚মিদস্যু কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক বিভিন্ন মানুষের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। এর মধ্যে শাপলা সমিতির কাছে ৮০ লাখ টাকায় ৫ কাঠা জমি, আকলিমা বেগমের কাছে ৪০ লাখ টাকায় ২ কাঠা জমি, মুফতি মাওলানা শেখ রেজাউল করিমের কাছে ৪০ লাখ টাকায় ২ কাঠা জমি বিক্রি করে দিয়েছে। উক্ত ঘটনায় নূরুন নাহার কোটে একটি মামলা করেছে। পিটিশন মামলা নং ৬৪৩/২০১২ যা কোর্টে তার পক্ষে রায় দিয়েছে। কোর্টের রায় নূরুন নহারের পক্ষে থাকার পরেও ৯ কাঠা জমি না ছেড়ে উল্টো বাকি জমি দখল করে নেয়ার জন্য তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়েছে। এছাড়াও মিথ্যা মামলায় হয়রানি করছে। চিহিৃত ভ‚মিদস্যু কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক ও তার চাচা হারুন আর রশিতের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট দফতর ও থানায় অভিযোগ থাকার পরেও পুলিশ তাকে গ্রেফতার করছে না। 
কাউন্সিলর কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক নিজেকে সরকারী দলের একজন নেতা ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের উত্তরের সহ-সভাপতি পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন মানুষের জমি দখল, ফুটপাতে চাঁদাবাজি ও মাদক ব্যবসায়ীদের শেল্টার দিচ্ছে। উক্ত ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আইজিপি, পুলিশ কমিশনার, ডিবি ডিসি, র‌্যাব সদরদফর ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একাধিক অভিযোগ জমা পড়ার পর, সে সবাইকে বলে উপরে কেউ তাকে কিছু করতে পারবে না। সে সব সময় বিভিন্ন নেতার কথা বলে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে হুমকি দেয় এবং সাধারণ মানুষে জমি দখল করে অন্য মানুষের কাছে বিক্রি করে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এছাড়াও মিরপুর ১০ নম্বর এলাকায় ফুটপাত থেকে মাসে কোটি টাকা চাঁদাবাজি করছে কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক ও তার লোকজন। বর্তমানে কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক মিরপুরে সন্ত্রাসীদের গডফাদার। কেউ তার বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায় না। তার কাছে কেউ গেলে সে বিচার না করে উল্টো তার সম্পত্তি ও বাড়িঘর দখল করে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। 

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK