বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯

লেখক: মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) সাদা ধবধবে মখমলে চাদরে  ঢেকে গেছে প্রান্তর শরৎ বলছে এমন কাঁশফুলে  ভরে গেছে অন্তর। ঋতুর আবর্তে, বর্ষার আমন্ত্রণে  বৃষ্টি পড়ছে এমন মন বিষাদে ঘরে বসে থাকব  সে কথা মনে নেই তেমন। স্যাঁতস্যাঁতে

লেখক: মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) মা মাটি আর দেশের কথা থাকলেও সুদূরে তবু হৃদয়ে গাঁথা। চাকচিক্য কি ভোগ বিলাশ বিদেশ বিভুই কি হবে বিকাশ। আধুনিকতার কত আছে ছোঁয়া মাতৃকুলের মত যাবে কি পাওয়া।

চিকেন ফ্রাই

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) তুমি মিষ্টি করে তাকাও যখন  মেঘলা আকাশে যেন বৃষ্টি ঝরে  তুমি দুষ্টুমিতে হাতটি যখন ধরো  মনটা যে কেমন করে । এ কেমন করার নামকে কি বলে  ভালোবাসা, ভালোবাসার

এমএবি সুজন সুজন এমএ‌বি খেয়া‌লে শু‌নি আমার ম‌নের আমিই খু‌নি বু‌কে জমাট কত আশা ম‌নে আবার ব‌ন্দিদশা ‌হতাশার বেদনারা নীল ব্যর্থ নিমাই স্বার্থপর নি‌খিল আগুন খেলনা ভাবনা মন‌পোড়া মরণ যাতনা।

......

         কথা চরিত্র          নষ্ট কালবেলায় হাতের মুঠোয় জীবনবোধের ইঙ্গিত           সেই লেখাটার মন খারাপ হলে আমিও ডুবি এই ভাবেই           এটা

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) নুপুরের ঐ তালে তালে মন যে আমার নাচে রে কালবৈশাখী ঝড় ঐ বুঝি এলোরে।

তোর ঐ নৃত্য নাচন সদ্য হাসন উল্লাস মনে যেন আনে রে বৈশাখের ঐ রৌদ্র ঝরে আকাশ

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) চঞ্চলও মন আনমনা হয় থাকনা তুমি পাশে যখন সারাক্ষণ কেন পাইনা তোমায় মন, করে কেন এমন।

ভালইতো ছিলাম, একা যখন ছিলাম পাশে কেন এলে তুমি পাশে যখন এলে, হাতটি

যাকে নিয়ে আমার কলম ধরা , তিনি এই মুহূর্তে বেঁচে থেকেও কিংবদন্তী আখ্যা পেয়ে গেছেন ! আজ্ঞে হ্যাঁ , আমি কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর সম্পর্কে কথা বলছি । ২০১৫ কলকাতা বইমেলা-য় এসে

হাসনা হেনা রানু তোমাকে ডেকেছি অরণ্য,এক অবাধ্য হলুদ বিকেলের অচেনা মায়ায় ---- তুমি আসবে তো ? কথা বলো মেঘ অরণ‍্য .. তুমি অনেকট রবিঠাকুরের " শেষের কবিতার " অমিতের মতো  আমার কবিতায় তুমি বারবার চলে

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) বৈশাখের ওই রুদ্র দুপুরে  যাক না উড়ে দুঃখ উরে  মোহন বাতাস দিক না সুভাষ  আম কাঁঠালের গন্ধ ভরে ।

জরাজীর্ণ আর কুটিলতা  হটিয়ে আনুক না সরলতা  মোহন সুরে আকুল

লেখক: মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) ও মাঝি তুমি নাও বাইওনা তোমার ঐ বৈঠার ফুরে মন যে আমার কেমন করে।

তোমার ঐ বাদাম তোলা পালে কাতাস খেলা করে মন আমার কেমনে থাকে ঘরে।

মাঝি ঐ ভাটিয়ালি

এমএবি সুজন অসম‌য়ে সুজন চেনা যায় সুসম‌য়ে চেনা দায় অসম‌য়ে সুজন চেনা যায়। ম‌রি একুল ওকুল সকল হারায় ভাব নমুনা উতলায় অসম‌য়ে সুজন চেনা যায়।

মরার আপদ জ্ব‌রে বিপ‌দে বা‌ড়ে বাঘ ম‌রে পিঁপড়ায় ক‌াম‌ড়ে রক্ত‌চো‌খে ল্যাংড়া কুকুর রাত পোহা‌লে কুড়ান






Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK