মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) কে যাও তুমি পথ ধইরা একবার ফিরা চাও এক ফুটা পানির তরে, বুক ফাইটা যায় কবরের বাইরে যে , পানির নহর একটু দিয়া যাও।

কত পানিতে গোসল

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) হে সৃষ্টিকর্তা, হে মহান কত নিয়ামত, কতই দান।

দেখিয়েছে সত্যপথ, বারণ যেতে বিপথ মুমিন মুসলমান, দেখে তোমার পথ।

এক সৃষ্টিকর্তা, এক আল্লাহ মনের গভীরে ভেসে আসে, বিসমিল্লাহ।

মহান প্রভু

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) মনের গভীরে, স্বপ্ন তিমিরে আলিঙ্গনের বাসনায়, স্বপ্নবোনা স্বপ্নের সুতাগুলোর, স্থায়িত্ব এত কম বাস্তবে, কেবলই অচেনা।

বাস্তবের আয়নাটা, এত স্বচ্ছ অতি সহজে, সব দেখা যায় অপ্রাপ্তির বেদনায়, প্রাপ্ত কষ্ট ক্ষণে, ক্ষণে,

এমএবি সুজন পা‌পের ঠু‌লি চো‌খে প‌ড়ি উড়ি ঘু‌ড়ি জনম দায় ব‌নের বা‌ঘে ছোঁয়না আমায় ম‌নের বা‌ঘে খায় বা‌ঘে খায়! বা‌ঘে খায় মানবকু‌লে জন্ম নিলাম মানু‌ষের মাঝে বসবাস মানব আবার দানব হ‌লে ‌নিত্য সর্বনাশ হাহুতাশ হয় যে ‌বিরক্ত সহবাস ওসে মানুষ‌তো মু‌খোশধারী বাঁচার

এমএবি সুজন হায়াত মউত রি‌যি‌ক দৌল‌ত আওলা‌দ শানশওকত সম্মান মানমর্যাদার মসনদ আশরাফ আতরাফ যত শ্রেণী সংগ্রাম কর্মগুণ কর্ম‌দো‌ষে আরাম আর ব্যারাম জ্ঞান বিজ্ঞান সৃ‌স্টি আকাশ ধ্বংস নাশ পৃ‌থিবীর আলো আঁধার যত অ‌বিনাশ সর্বস‌মেত আয়ু বায়ু পা‌নি পাক

লুপা তালুকদার পুরুষ তোমার সৌন্দর্যে বিভোর আমার  প্রেমময় দৃষ্টি সমুদ্দুর। তোমার অঙ্গষোষ্ঠব ভাজের বাহুবলী উষ্ণতায় জনমে জনমে আমি মাতাল সারাবেলা।

পুরুষ তুমি প্রেমমাদকের উত্তপ্ত ঝড়, তোমার রোমাঞ্চকর বাহু আর  গোলাবো ঠোঁটের বিদ্যুৎবাহী স্পর্শ  নেশেলী নাগের বিষক্ত ছোবল। 

পুরুষ তোমার

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) কি আনন্দ, কি যে মজা কার্টুন ছবিতে, সবই সোজা।

দাঁত বের করে, কুকুর হাসে বাচ্চা ছেলে ও মেয়েরা, হাসে, সাথে, সাথে।

শক্ত কথা, মিষ্টি করে সহজে বুঝে, মনে

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) সূর্যি মামা অত কৃপণ নয় ঠিকই তাপ নিয়ে দেখা দিয়েছে ভোর বেলা মখমলে গরম বিছানায় ঘুম ভাঙ্গেনা কিছু লোকের খোলা আকাশের নিচে দরিদ্ররা, পাচ্ছে যে শীতে

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) মাগো আমরা চিড়িয়াখানায় যামু সারাটাদিন, বান্দর, বেজি, কুমির, সাপ আর বাঘ ভাল্লুক দেখমু।

বাঘের আছে চারটি পা সাথে আছে ধারালো দাঁত হাতি মামা, বিশাল দেহে সুর নিয়ে এসে, যেন

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা)

কি জীবন মধ্যবিত্তের রে ভাই কি জীবন চাকুরীজীবির মাস শেষ হতেই চায় না যে আর বেতনের তরেই সে অধীর।

যত সামান্য হাতে জোটে যা চলে যায় সংসার কর্তৃর

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) ও ফড়িং ও ফড়িং কেন করিস এমন তিরিং বিড়িং।

দারুন রোদে ভরদুপুরে হাটি হাটি পায়ে তোর পিছনে।

দু আঙ্গুলের টিপ্পনির কৌশলেও ধরতে পারিনা তোরে অমন সুন্দর তোর ডানা দুটিরে।   রঙিন ডানা তোর সাথেতো

লেখক: মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) সবাই তোমরা ব্যতিব্যস্ত আমন্ত্রন বলে কথা ধনবানের সদাই কদর দীনহীনের বুঝবে কে ব্যথা।

আত্মীয় পরিজন, পরিবেষ্টিত সমাজে সবাইকেই স্বাগতম জানাতে হয় গরিব দুঃখী, আত্মীয়কে একটু বেশি মূল্যায়ন করবে এতেই অনুষ্ঠানের শোভা,






Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK