শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯

কোহিনূর আক্তার আমি সুখের নদীতে স্নান করি  দুখের চৌকাটে জ্বলিতে হৃদয় হয়েছে খড়ি । এ কেমন সুখ দুখের কপালে হীরার মুকোট ! এ কেমন অশ্রু অচেনা আঁখিতে সুখে স্বপ্ন  এ কেমন দিক মাঝ পথে তরীহীন

স্মৃতি-কাল সুমন কুমার সাহু মনের মাঝে আকাশ আছে, নদী আছে চোখে, দুকুল জুড়ে ঢেউ ভেঙে যায় একলা সময়ের মাঝে ! তবু কেন ভালবাসা ভোরের স্বপ্ন নিয়ে - শক্ত হাতে দাঁড় বেয়ে যায় হৃদয়ে চোরা স্রোতে । কবিতায় আমি

লেখক: মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) সেই পথগুলোতো অনেকটা তেমনি আছে সেই মেঠো পথ, আধাপাকা, ঢালাইকরা কোথাও পথের ধারের ছোট্ট গাছগুলো বেশ বড় হয়েছে জীবদ্দশায়, শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন কেউ কেউ।

জীবনের আঙ্গিনায় প্রৌঢ়ত্বের

লেখক: মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) মা মা বলে ডাকবই বাংলায় ছড়াবই ভালবাসা মাতৃভাষায় ভাষার উপরে, আঘাত হানতে চাইলে কেউ বিভৎস চেহারা, দেখবে অতিখি পাখি, নিষ্ঠুরতায়।

বাংলাভাষায়, গেথেছি বাংলাভাষার গান বুকে, বাংলার শিহরণ উর্দু ভাষার, আম্মিজানকে,

লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা) স্বাধীনতা মোর খোলা আকাশে দম ফাটিয়ে উল্লাস স্বাধীনতা সেতো মুক্ত আলোয় স্বপ্ন ডানা মেলার অভিলাস।

স্বাধীনতা মোদের মনের কোনে আলো আধারীর খেলা স্বাধীনতা যে বোনের কাছে ভাইয়ের ফিরে আসার মেলা।

স্বাধীনতা

দুই বাংলার জনপ্রিয় কবি বিদ্যুৎ ভৌমিকের সাক্ষাৎকার                 ¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤¤     দুই বাংলার কবিতার রাজপুত্র - বিদ্যুৎ ভৌমিক তাঁর প্রেম -         সম্পর্কে যথেষ্ট আস্থাবান

কবি হয়ে ওঠার আগে মানুষ হওয়া প্রথম প্রয়োজন      

            ************************************                       বিদ্যুৎ  ভৌমিক       

জনপ্রিয়ই তাঁর কবিতার শেষ কথা । আজ্ঞে হ্যাঁ , কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক যাকে                                     

এই সময়ের জনপ্রিয় কবি বিদ্যুৎ ভৌমিকের একটি            বহুশ্রুত ও বিখ্যাত দীর্ঘ কবিতা, যা আদ্যোপান্ত ভাবে            পাঠকবন্ধুদের বুঝিয়ে দেবে কবি বিদ্যুৎ তাঁর কবিতা   

সেলিম রেজা সাগর রাস্তার ধারে ফুটপাতে দেখি, কারা আছে ওরা শুয়ে ?  তারি মাঝে এক থুরথুড়ে বুড়ি, মাথাটাও গেছে নুয়ে।

কাছে গিয়ে বলি,কিগো বুড়ি মা?তুমি কেন বসে কাঁদো?  চোখের জ্বলে মুখখানা ধুয়ে, তুমি কি

কোহিনূর আক্তার হঠাৎ মুখোমুখি,  আমাকে দেখে চোখ থেকে পড়ে, ভেঙে গেল রাজা রামমোহন রায়ের চশমা। তবুও ভাঙা চশমাটা চোখে দিয়ে বললে , কেমন আছো তুমি মালতী ?

অনেক দিন পরে তোমার সাথে দেখা হলো তাই

বাবুল বিক্রমপুরী ছেলে আমার মস্ত মানুষ,মস্ত অফিসার  মস্ত ফ্ল্যাটে যায় না দেখা এপার ওপার।  নানান রকম জিনিস আর আসবাব দামী দামী  সবচেয়ে কম দামী ছিলাম একমাত্র আমি।  ছেলের আমার আমার প্রতি অগাধ সম্ভ্রম  আমার ঠিকানা তাই






Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK