শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯
Monday, 08 Apr, 2019 12:07:48 pm
No icon No icon No icon

প্রখ্যাত কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর এই সময়ের একগুচ্ছ শ্রেষ্ঠ "কবিতা-পট"

//

 প্রখ্যাত কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর এই সময়ের একগুচ্ছ শ্রেষ্ঠ


কবি~ বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর একগুচ্ছ কবিতা-পট     

আমার কথা                                                                                                                                                                                                                                                                           এক সময় এই কবিতা লেখার জন্য ঘরে ও বাহিরে নানান কথা অর্থাৎ অপমান জনক কথা আমাকে শুনতে হয়েছে ! বিশেষ করে আমার বাড়িতে , বাবা ও বড়দা-র কাছে ! তখন খুবই ছোট ছিলাম বছর ১৬ কি ১৭         হবে । বাড়ির নিজের লোকেদের ধারণা ছিল তাঁদের ছেলে এই "কবিতা-টবিতা" লিখে উচ্ছন্নে যাচ্ছে ! প্রায় প্রতিদিন ওই সময়ে  এই আমাকে উদ্দেশ্য করে বাড়িতে তুমুল অশান্তি হোতো ! আমার বেশ মনে আছে       এক-এক দিন অশান্তি এমন জায়গায় গিয়ে দাঁড়াত , যে রাতের খাবার টুকু আমার ভাগ্যে জুটতো না ! আমি লক্ষ করেছিলাম , আমি না খেলে আমার করুণা নির্ঝরিণী জননীর চোখে জল ঝরতো ! আমার বাবা ও           দাদার আমার প্রতি এই আচরণের ফল স্বরূপ পাড়া-প্রতিবেশীরা-ও সুযোগ পেয়ে যেতো এবং  আমাকে নানান উপদেশ , জ্ঞান , ঠাট্টা-তামাশা ইত্যাদি করতো-টোরতো ! আমি তখন থেকেই মনে ও প্রাণে এক         কঠিন ব্রত-কে অন্তরের অন্তঃস্থলে লালন-পালন করতে লাগলাম । সেটা হোলো , নিজেকে অনেকের থেকে নামী ও দামী করে সমাজের প্রতিষ্ঠিত একজন মানুষ হিসাবে দাঁড় করানো ! এখন এই ৫৩ বছর-তো         বয়স আমার হয়েছে , যারা এক সময় আমাকে আমার কবিতাকে নিয়ে ঠাট্টা ও তামাশা করতেন তারাই এখন বলেন আমারা কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর পাড়াতে থাকি ! যাই হোক , অতীতের স্মৃতি ভাবলে দুই চোখে       জল এসে যায় ! আবার এটা ভেবে আনন্দ হয় , আমি আজ এই কবিতা লেখার জন্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছি --- বিদ্যুৎ ভৌমিক ( ভারত , পশ্চিমবঙ্গ , শ্রীরামপুর , হুগলী )                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                       "কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর কবিতামালা"                                                                                                                                                                                                                                                                                      
                    ¤¤ ~কথা চরিত্র~ ¤¤
        
                                
                                                 
         নষ্ট কালবেলায় হাতের মুঠোয় জীবনবোধের ইঙ্গিত 
         সেই লেখাটার মন খারাপ হলে আমিও ডুবি এই ভাবেই 
         এটা একটা অন্য ভাবের খেলা  ; অন্য রকম কবিতার 
         নির্মাণ হওয়ার ছল ! 
         কথা চরিত্রের 
         আগুন পোড়া মাটি 
         শব্দ ও অক্ষরের মধ্যে         হারানোর   মিথ্যে নাটক  ! 
         যদিও আমি একান্ন ভাগ      মৃত এবং দুর্বিনীত 
         মন পদ্যের মধ্যে থেকে অনেকটাই আলাদা ভিন্ন আমি । 
         নষ্ট নষ্ট গন্ধ কানে নিয়ে 
         আড়ি পাতি অন্য কোন পথে , —
         এসব কথা           বলতে গিয়ে  মন পুড়ে  যায় 
         তুই কিন্তু লিখিয়ে নিয়েছিস সেই ক~বি~তা 
         আবার কেন অন্য ভাবে অন্য কিছু চাই-তে  এলি নবনীতা ? 
         এবার আর-একটু থাক , বেঁচে থাকার কথা ভেবে 
        শেষ স্তবকের শব্দ গুলো ভীষণ অশ্লীল 
         তুই এবার নগ্ন হতে পারিস !!                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
             
                             ¤¤ ~ছেঁড়া পৃষ্ঠা~ ¤¤
            
                                       
         কাল থেকে সারারাত ধরে কত পৃষ্ঠা ছিঁড়েছি , অথচ শব্দ 
         আসেনি ! নষ্ট বেলার অথৈ বর্ষণে একটানা সময় ধরে আমি 
         যেন হাত পেতে আছি ; যদি একটা কবিতার নির্মাণ করা 
         যাবার স্বপ্ন দেখা যেত , —
         এখানে কেউ একজন ঈশ্বরের রূপ ধরে দাঁড়িয়ে ছিলেন , 
         ওই অবাক দর্শনটুকু আমি ও আমার দর্পণের আমি ছাড়া 
         কেউ দেখেনি একবারও  ! এটাও এক ধৈর্য বলা যায় , 
         কিম্বা না লিখতে পারার শোক প্রকাশ নয় ****
         সাদা পৃষ্ঠায় জটিল কিছু এসে হাজির হয়না বলেই ; আমি 
         নিজের ভাবমূর্তিকে তুলে রাখি অপরিচিত আকাশে  ! 
         মহৎকবির লক্ষণই উল্টো দর্পণের ঘসা জায়গার  চিহ্ন 
         নির্ভুল প্রমাণ করা । এই প্রেরণা-ই ঈশ্বর কবির পাওনা , —
         বেশকিছু না লেখা কবিতার প্রত্যন্ত অভাববোধ  !!                                                                                                                                                                                                                                              
                          
                                 ¤¤ ~চেনা বৃষ্টি ও অচেনা মেঘ~ ¤¤
                         
                                                   
         সেই কারণেই হাত বাড়িয়ে বৃষ্টি ধরতেই চোখ গেল ভিজে 
         শেষ পর্যন্ত পাতা মেলে শূন্য থেকে লাফিয়ে পড়েছে সেই 
         এক স্মৃতির টুকরো *****
         ইচ্ছে ধুলো উড়িয়ে দিয়েছে ভাসমান সময় , — কোথাকার 
         তল থেকে স্মৃতির কঙ্কাল জেগে ওঠে পৃথিবীর তাবৎ কথা 
         উদ্ধার করতে  ! এই যে আমি এই বৃষ্টিতে কি ভাবে ভিজে 
         ভিজে নেতা-নেতা হয়ে গেছি  । 
         কোথাও মৃত্যুর নতুন গন্ধ নিয়ে মরি কতবার , আবার নতুন 
         জেগে উঠি জন্মের লগ্ন থেকে একান্ন ভাগ এভাবেই । 
         অচেনা সেই মেঘ আমাকে ডেকেছে অনির্দিষ্টকালের জন্য । 
         ভিজিয়েছিল সহজ স্বপ্ন গুলো , এরকম নির্লজ্জ ভিজে ওঠা 
         কবিতার রাত-দিন নষ্ট করে আমি এবং অন্য এক আকাশে-
         র সাথে একা এবং একক  !!                                                                                                                                                                                                                                                                                                       
                    
                              ¤¤ ~সমীপেষু-দের~ ¤¤
                         
                                        
         ব্যর্থতার আর এক নাম প্রতিষ্ঠা ; সেই থেকে আমার চিন্তার 
         জট ফুরিয়ে গেছে কালবেলায় অমৃতলোকে । 
         মহৎ কিছু সত্য কথা না বলে অন্য দিকে মুখ তুলে তাকালে 
         আড়ি কিম্বা ভাবের হিসেব সম্মোহনী চোখের মধ্যে একটা 
         পৃথিবীকে আবিষ্কার করে বসে অকারণেই  ! 
         বেশ কিছু প্রিয়জনের মৃত্যুর বিয়োগ যন্ত্রণা অচিরেই দংশন 
         করে আমৃত্যু একটানা এভাবেই , — অথচ সমীপেষু-দের 
         চিনে নিতে শেষ পর্যন্ত এই পাতাটির যাবতীয় তথ্য আমিও 
         হৃদয়তান্ত্রিক হয়ে লিখতে লিখতে ফুরিয়ে গেছি এভাবেই  !                                                                                                                                                                                                                                                                                                                
         **************************
        বিদ্যুৎ ভৌমিক 
        ৬৫ /১৭ , ফিরিঙ্গি ডাঙা রোড , মল্লিকপাড়া , 
        শ্রীরামপুর , হুগলি , সূচক ৭১২২০৩ 
        পশ্চিমবঙ্গ , ভারতবর্ষ।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK