শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮
Friday, 14 Sep, 2018 09:45:20 pm
No icon No icon No icon

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কবি বিদ্যুৎ ভৌমিকের একটি বিখ্যাত কবিতা


আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কবি বিদ্যুৎ ভৌমিকের একটি বিখ্যাত কবিতা


একেবারে জটিল তত্ত্বের দর্শন-কে উপজীব্য করে  যিনি তাঁর কবিতা-কে পাঠকের চোখ-পৃষ্ঠায় মেলে ধরেন, সেই বিখ্যাত কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর লেখা  এই রকমই একটি শ্রেষ্ঠ  দীর্ঘ কবিতা "উনপঞ্চাশ দিন কবিতারা হেঁটে ছিল"।                                                                                                                                                                                     
দুই বাংলার কবিতার আইকণ কবি~বিদ্যুৎ ভৌমিক-এর ~"বিশেষ দীর্ঘ কবিতা"~                                                                                                                                                                                                                 
    
       ¤¤ ~উনপঞ্চাশ  দিন  কবিতারা  হেঁটে  ছিল~ ¤¤
                 ===================
                            ¤ ~বিদ্যুৎ ভৌমিক~ ¤
                        ===================                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                            
  ঘর থেকে খোলা দরজার ওপাশে বিস্তর নীরবতা 
       ট্রামলাইন বৃষ্টির জল - কাদায় একান্তে মাখামাখি  ; কলঙ্ক - 
       আর পাপের ব্যক্তিগত সঙ্গী —
       চোখের ভেতর ছায়াহীন মৌন অভিমান গুলো 
       গল্পমন খুলে কাছে এগিয়ে এলে সড়কের বাতিগুলো 
       মধ্যরাতে আকাশ ছেটানো বৃষ্টিতে 
       একসাথে দুঃখ ভুলতে চায় ! 
       এই দিনটা ক'দিন আগেও এতটা উদাস ছিলনা ****
       প্রতিদিন দেরি হয়ে যায় চোখ বুজতে 
       প্রতিদিন এই দিনটার ভেতর নতুন অতীত অনায়াসে সত্যের 
       মত অবিশ্বাস্য হয়ে ওঠে !                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                   
       
  ঘর থেকে দরজা খুলে রাস্তা বেরিয়ে গেলে 
      পা থামেনা বিপরীত দর্পণে , —
       শেষবার মৃত্যুলিপ্ত জীবন শরীরহীন দ্রুত ছুঁটে এলে 
      বৃষ্টিতে ধুয়ে যায় শ্মশানযাত্রীর ঘুম ****
      ওই দিনটা কৃপণের মত অথই নির্জন ; সে জন্য চোখের ভেতর 
      থেকে ঝড়ের আহ্বান শোনা যায় ।
      এই ঘরে স্বপ্নের নির্ঘুম শরীর ছায়াময় অথচ নামহীন 
      এই কারণেই ভেতর থেকে আমার মতই আমি একা  !                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                              
       
  প্রতিদিন মগ্ন হয়ে থাকা বুকের ভেতর নিজের কাছে 
       বৃষ্টির গভীর থেকে এই রাত পৃথিবীর গাঢ় আলোচনা শোনে, —
       ঘরের ভেতর কতযে সিগারেট পোড়ে নীরব কৌশলে 
       অতল দুঃখে ছিন্নভিন্ন স্বপ্নগুলো অতিশয় অভিমানে 
       মুখ নীচু করে থাকে —
      একদিন এই শ্রাবণ এই ঘরে কত আনন্দ এনে দিয়েছিল 
      আধোঘুমন্ত চোখে একই স্বপ্ন দেখি ; আমি এবং আমার ছায়া 
      এখন শুধু বিস্মৃতির ভেতর থেকে আমি নামক মানুষটা 
     সুখ ভিক্ষা চেয়ে বসে বন্ধ দেওয়াল ঘড়িটার কাছে !                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                               
       
  নতুন করে জানা গেছে ভদ্রতাও মাঝেমধ্যে বেঁকে বসে 
      এ'কদিন গঙ্গার ব্রীজের নিচে চাঁদ হাসে অন্য খেয়ালে ।
      এই উনপঞ্চাশদিন কবিতারা হেঁটেছিল মেঝেতে - দেওয়ালে 
      মাঝরাতে মন খারাপের মত প্রভুত সত্যরা পাতাল খুঁজেছে 
      বন্ধ দরজার সামনে দীর্ঘশ্বাস ছিল দুস্তর প্রতীক্ষায় 
      সুতরাং একাজের ভেতর মৃত্যুর অস্তিত্ব বড়ই চোখে লাগে ****
      বৃষ্টির ভেতর ভিজে যায় সহজ নির্জনতা 
      মেঘ গর্জনে বিদ্যুৎ মন্ডলী ঘোরে আকাশ পিঞ্জরে 
     হাওয়ার আদেশ পেয়ে মৃত্যুর শিয়রে দাঁড়ায় নিশীথ প্রহর  !                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                        
      
 একবার মৃত্যু হলে রক্তের ভেতর ঘোরে এককালের স্মৃতিচিত্র 
      এই রাত শ্রাবণের গভীরে অমোঘ শীতল 
      শেষ কটা দিন দেওয়ালের পরিচিত দাগ গুলো সুচারু 
      কারুকাজ নিয়ে ইতস্তত হয়ত বা একা অন্তর্গত প্রবাহে 
      অগোছালো অপ্রমেয় গৌরব  ! 
      মনে থাকা এককালের স্মৃতি নির্ঘুম ম্যাজিকের সংখ্যাতীত 
      স্বপ্নে আদ্যোপান্ত নিথর *****
      স্পষ্টতঃবৃষ্টির মধ্যে করমচা ফুলের দোল 
      ভেতর থেকে বন্ধ দরজা ; পূর্বজন্মের চেনা স্বপ্নের কড়া নাড়া ।                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                          
      
  এখন সহজ স্বপ্নগুলো তালা বন্ধ 
      কোথাকার একদল দুঃখ শরীরহীন অপরিণত বেহায়া 
      এই বৃষ্টি সারারাতের ব্যথা নিয়ে ঘোরে অহর্নিশ 
      তবুও নির্ঘুম গাছের পাতারা, 
      তবুও জীবন শুনতে চায় 
      শেষ রাতের কবিতা  !                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
      ভুলে ছিলাম ; মৃত্যুর মত নীরব ঘুমন্তে 
      অথচ এই বৃষ্টির ভেতর চোখ দুটো আকাশ ঢেকেছে —
      মন কী মেনে নিতে পারবে , হাত বাড়িয়েছি দু'একটা স্মৃতি 
      যদি ধরতে পারা যেতো, — পথের আলাপে  !!                                                                                                                                                                                                                                                                                                                        
      ======================
     বিদ্যুৎ ভৌমিক ¤
     ৬৫ /১৭, ফিরিঙ্গি ডাঙা রোড, শ্রীরামপুর, হুগলি,  
     পোষ্ট — মল্লিকপাড়া,  সূচক ৭১২২০৩ 
     পশ্চিমবঙ্গ, ভারতবর্ষ, 
     মোবাইল~ ৬২৯০২৪৬৯৩২                                                                                                                                                                                                                                            

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK