বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯
Thursday, 04 Jan, 2018 11:37:12 am
No icon No icon No icon

মায়ের ক্রন্দন

//

মায়ের ক্রন্দন


লেখক : মো: জাহাঙ্গীর হোসেন (সাবেক সেনা কর্মকর্তা)
কষ্ট আহা কি যে কষ্ট
আষ্টে পিষ্টে করে রেখেছে আড়ষ্ট ।

খোকা তুই কত আদরে বড় হলি
রাত দুপুরে আমার কাপড় ভিজালী।

শীতের রাতে মাতৃত্বের স্বাদে
কাপড় বদলাই তবুও খোকা কাঁদে।

ধীরে ধীরে তুই বড় হলি
স্কুল পেরিয়ে কলেজ ছাড়লি।

ভার্সিটি ভর্তি হয়ে কি তোর উচ্ছাস
মায়ের মনে যে কিসের সুভাষ।

গর্ব ভরে একে ওকে বলি
খোকা মোর আজ ডক্টরেট হলি।

ছোট্ট সংসার বড়ই অভাব
তুই বড় হয়েছিস থাকবে কি আর।

বিয়ে দিয়ে তোকে সংসারী করলাম
মায়ের আসনটি কি আমি হারালাম।

অর্থ বৈভব সবইতো এসেছে
আমার খোকা যে দুরে সরে গেছে।

কত আদরে কত সোহাগে
বৌমাকে আনলাম, কি হল ভাগ্যে।

মায়ের সম্মানকে, সম্মান দেয়নি বৌমা
কি করে ওকে আমি করব ক্ষমা।

কেন যে খোকা বড়লোক দুষ্ট বৌমা আনল
আমার ঘরের সুখ পালাল।

খোকার বাবা কবেই গত হয়েছে
খোদা ওর ভাগ্য ভালই করেছে।

ছোট খাট কত কথা বলে বৌমা
দুঃখ ভরে মনে রাখি না জমা।

পুরানো আসবাবের মত কি আমার 
ঘরের বাইরে জায়গা হবেনাতো আবার।

এই বয়সে ক্লান্ত শরীরে
হারিয়ে যাব কি আঁধারে।

কি যে ব্যথা, কি যে আকুতি
আহা ! খোকার পাশেই যেন রাখে এই মিনতী।

তরমুজের ভেতরে লাল
ওর চেয়ে আমার লাল যে, ভিতরে বেশী আজকাল।

বিদীর্ণ চিৎকারে বুক ফেটে যায়
দুমরে মুচরে থাকি, খোকা না শুনতে পায়।

নাতির আহ্লাদে আকরে থাকি
নাইবা পেলাম মাতৃত্বের প্রকৃত স্বাদ, থাকনা কিছু বাকি।

সমাজ সংসারে, কত চাওয়া না পাওয়া
সবাই সব পাবে, এমনটি যায় না চাওয়া।

শূন্য হৃদয়ে তবুও মেঘ বাসা বাঁধে
অঝোর বর্ষণে ধরাতলে সে কাঁদে।

মাতৃত্বের কান্দন বড় কঠিন রে বাবা
পরাক্রমায় তোরাও যে কাঁদবি না, বলবে কেবা।

মা, বাবা, গুরুজন কি চায়, কখনো অমঙ্গল
খারাপ কর্মই করে জীবনকে বিফল, বিশৃঙ্খল।

মনের কোনে রোপন করনা আজই বীজ
মা, বাবা, গুরুজনকে মাথার উপর রেখে বারাব তাদের সাজ।

**************************

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK