শনিবার, ২৫ মে ২০১৯
Wednesday, 13 Mar, 2019 01:08:10 am
No icon No icon No icon

বিশ্বব্যাপী হুমকির মুখে বোয়িং, নিরাপদ বলছে যুক্তরাষ্ট্র

//

বিশ্বব্যাপী হুমকির মুখে বোয়িং, নিরাপদ বলছে যুক্তরাষ্ট্র


টাইমস ২৪ ডটনেট, আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ছয় মাসের মধ্যে ইথিওপিয়া ও ইন্দোনেশিয়ায় বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের দুটি বিমান ভেঙে পড়ায় সার্বিকভাবে দুশ্চিন্তা দেখা দিয়েছে৷ বোয়িং বিমানের বিষয়ে নেতিবাচক সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বিভিন্ন দেশ। তবে বোয়িং সেভেন হান্ড্রেড থার্টি সেভেন ম্যাক্স উড্ডয়নের জন্য নিরাপদ বলে জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ইন্দোনেশিয়ায় বিধ্বস্ত হওয়ার কয়েক মাসের মধ্যেই সম্প্রতি ইথিওপিয়ায় ভেঙে পড়ে বোয়িং সেভেন হান্ড্রেড থার্টি সেভেন ম্যাক্স সিরিজের বিমান। এ ঘটনার পর ইথিওপিয়া বোয়িং বিমান চলাচলে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। ইথিওপিয়ার পাশাপাশি চীনও সেদেশে বোয়িংয়ের এই বিশেষ মডেলের সব ফ্লাইট বাতিল করেছে৷ অন্য কয়েকটি দেশও একই সিদ্ধান্ত নেবে বলে অনুমান করা হচ্ছে৷
চীনের বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তা সংক্রান্ত দুশ্চিন্তা দূর হওয়া পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত কার্যকর রাখতে চায়৷ চীন এই মডেলের বিমানের বড় ক্রেতা৷ মোট ৯৬টি বিমান সেদেশে চালু রয়েছে৷ এ কারণে সোমবার ২৯টি ফ্লাইট বাতিল করতে হয়েছে বিভিন্ন চীনা এয়ারলাইন্সগুলোকে। এছাড়া ইন্দোনেশিয়াও বোয়িং সেভেন হান্ড্রেড থার্টি সেভেন ম্যাক্স মডেলের বিমান নিষিদ্ধ করেছে।
চীন, ইথিওপিয়া, ইন্দোনেশিয়ার পর বোয়িংয়ের এই বিশেষ মডেলের বিমান ব্যবহার বন্ধ ঘোষণা করেছে সিঙ্গাপুর।মঙ্গলবার দেওয়া এক বিবৃতিতে দি সিভিল এভিয়েশন অথরিটি অব সিঙ্গাপুর (সিএএএস) জানিয়েছে, 'পাঁচ মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে ‘বোয়িং সেভেন হান্ড্রেড থার্ট সেভেন ম্যাক্স এইট’ মডেলের বিমানের দু’টি মারাত্মক দুর্ঘটনার জেরে আমরা এর সব ধরনের চলাচল সাময়িকভাবে বাতিল করছি। অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক সব ধরনের ফ্লাইটের ক্ষেত্রেই এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশ যখন নিরাপত্তার নিয়ে দুশ্চিন্তার কারণে এই মডেলের বিমান বাতিল করছে তখন এটিকে উড্ডয়নের জন্য নিরাপদ ঘোষণা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।  এ পরিস্থিতিতে সোমবার রাতে মার্কিন কেন্দ্রীয় বিমান চলাচল প্রশাসন (এফএএ) ‘অব্যাহত উড্ডয়নযোগ্যতা বিজ্ঞপ্তি’ ইস্যু করে বোয়িং সেভেন হান্ড্রেড থার্টি সেভেন ম্যাক্স এইট চালানো এয়ারলাইন্সগুলোকে এর উড্ডয়ন নিরাপদ বলে আশ্বস্ত করেছে।
বিজ্ঞপ্তিতে এফএএ জানায়, তারা বিধ্বস্ত উড়োজাহাজের তথ্য সংগ্রহ করছে ও আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে এবং কোনো নিরাপত্তা ইস্যু শনাক্ত হলে তাৎক্ষণিকভাবে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
ইঞ্জিনের মান নিয়ে দুশ্চিন্তার কারণে বোয়িং কোম্পানি ২০১৭ সালের মে মাসে সেভেন হান্ড্রেড সেভেন ম্যাক্স মডেলের পরীক্ষামূলক উড়াল বন্ধ রেখেছিল৷ ফ্রান্স ও অ্যামেরিকার দুই কোম্পানির যৌথ উদ্যোগে সেই ইঞ্জিন তৈরি হয়৷ কিন্তু তারপর থেকে গোটা বিশ্বের বিমান সংস্থাগুলিকে এই মডেলের বিমান সরবরাহ করা হচ্ছে৷ ২০৩২ সাল পর্যন্ত বোয়িং কোম্পানির মোট উৎপাদনের ৬৪ শতাংশ এই মডেলের জন্য নির্ধারিত রয়েছে৷ ফলে নিরাপত্তা সংক্রান্ত সংশয় দূর না হলে কোম্পানি সংকটে পড়তে পারে৷

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK