সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
Wednesday, 12 Sep, 2018 01:01:31 pm
No icon No icon No icon

রাশিয়ার বিশাল সামরিক মহড়ায় চীন কেন


রাশিয়ার বিশাল সামরিক মহড়ায় চীন কেন


টাইমস ২৪ ডটনেট, আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাশিয়ায় শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী বিশাল সামরিক মহড়া। এই মহড়া সোভিয়েত আমলের পর দেশটির সবচেয়ে বড় সামরিক প্রদর্শনী। পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যেই এই মহড়া শুরু হয়েছে পূর্ব সাইবেরিয়াতে। রুশ মহড়ায় প্রথমবারের মতো চীনা সেনারও অংশ নিচ্ছে, যা দুই দেশের মধ্যে গভীর বন্ধুত্বের চিহ্ন হিসেবে দেখা হচ্ছে।রাশিয়া বলছে, দেশটির ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বড় সামরিক মহড়া। মহড়াটির নাম দেওয়া হয়েছে ভস্তক-১৮। বিবিসির খবরে জানানো হয়, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের আমলে বড় ধরনের যেসব সামরিক মহড়া হয়েছে, এবারের তুলনায় সেগুলো কিছুই নয়। পাঁচ দিনের এই মহড়ায় সেনা, বিমান ও নৌবাহিনীর তিন লাখেরও বেশি রুশ সেনা ছাড়াও এই মহড়ায় অংশ নিচ্ছে ৩৬ হাজার সামরিক যান, এক হাজারের বেশি জঙ্গিবিমান ও ৮০টি রণতরী। রাশিয়া এই প্রথমবারের মতো এ ধরনের মহড়ায় অংশ নিতে সাবেক সোভিয়েত মিত্রদের বাইরের কোনো দেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। রাশিয়ার ওপর দীর্ঘদিনের নিষেধাজ্ঞা ও পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে দেশটির উত্তেজনা যখন বাড়ছে, ঠিক তখনই চীনা সেনাদের অংশগ্রহণে এই মহড়া অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর একজন মুখপাত্র বলছেন, ‘এই মহড়া প্রমাণ করছে, তারা (রাশিয়া) বড় ধরনের সংঘাতের দিকে মনোযোগ দিচ্ছে।’ প্রেসিডেন্ট পুতিনের একজন মুখপাত্রের দাবি, ‘মস্কোর প্রতি আন্তর্জাতিক দৃষ্টিভঙ্গিও আগ্রাসনমূলক এবং বন্ধুত্বপূর্ণ নয়। আর সে কারণে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা শক্তিও দেশটির জন্য অত্যন্ত জরুরি।’
চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, নানা ধরনের নিরাপত্তা হুমকি মোকাবিলার জন্য তারা রাশিয়ার সঙ্গে সামরিক সহযোগিতা বাড়াচ্ছে। কিন্তু এই সামরিক হুমকি কাদের দিক থেকে, সেটা পরিস্কার করে বলা হয়নি।রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শুইগো অবশ্য বলেছেন, ‘মধ্য এশিয়ায় রাশিয়ার জন্য বড় হুমকি হচ্ছে ইসলামী জঙ্গিবাদ।’
পর্যবেক্ষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাব খর্ব করতেই চীন ও রাশিয়া নিজেদের মধ্যে সামরিক যোগাযোগ বাড়াচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র যখন চীনের সঙ্গে বাণিজ্যযুদ্ধে লিপ্ত, তখন চীন আরও বেশি করে রাশিয়ার সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে চাইছে। রাশিয়া এখন চীনে সবচেয়ে বেশি তেল সরবরাহ করে। দেশটির সবচেয়ে বড় জ্বালানি কোম্পানি গাজপ্রম পূর্ব সাইবেরিয়া থেকে চীন সীমান্ত পর্যন্ত তিন হাজার কিলোমিটার দীর্ঘ গ্যাস পাইপলাইন তৈরির কাজ শুরু করেছে।
অন্যদিকে পুতিনের সঙ্গে চীনের নেতা শি জিনপিংয়ের সম্পর্কও বেশ উষ্ণ। শি জিনপিং রুশ নেতা পুতিনকে তার সবচেয়ে ‘ভালো ও ঘনিষ্ঠ বন্ধু’ বলে বর্ণনা করেছেন।
এদিকে রাশিয়ার এই বিশাল সামরিক মহড়ার ওপর সতর্ক নজর রাখছে ন্যাটো। জোটের এক মুখপাত্র বলেন, ‘প্রত্যেক দেশের সামরিক মহড়া চালানোর অধিকার আছে। কিন্তু এটা করতে হবে স্বচ্ছভাবে।’
২০১৪ সালে রাশিয়া যখন ইউক্রেনে সামরিক হস্তক্ষেপ করে, তারপর থেকে ন্যাটোর সঙ্গে দেশটির সামরিক উত্তেজনা বাড়ছে। ওই ঘটনার পর ন্যাটো রাশিয়ার প্রতিবেশী বাল্টিক দেশগুলোতে চার হাজার অতিরিক্ত সেনা পাঠায়।অন্যদিকে রাশিয়া ন্যাটোর এই পদক্ষেপকে সামরিক উসকানি হিসেবে দেখেছে।

সূত্র:  এএফপি।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK