সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
Saturday, 13 Oct, 2018 12:04:19 pm
No icon No icon No icon
সুনামগঞ্জ-২ আসনে নৌকার হাল ধরছেন কে?

ড. জয়া সেনগুপ্তা নাকি দীপক চৌধুরী


ড. জয়া সেনগুপ্তা নাকি দীপক চৌধুরী

টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে এখন পর্যন্ত সুনামগঞ্জ -২ (দিরাই-শাল্লা) আসনে দলীয় প্রার্থীর মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়নি।  কিন্তু  একটি মহল থেকে প্রচার করা হচ্ছে আওয়ামী লীগের উচ্চমহল থেকে ‘অমুক’কে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। ফলে তৃণমূলের ভোটারদের মধ্য নানাপ্রশ্নের উদ্রেক হয়েছে। তারা বিভ্রান্ত হচ্ছেন।  তবে অনুসন্ধানে জানা গেছে,  বিশিষ্ট সাংবাদিক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক দীপক চৌধুরী ও বর্তমান সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্তার মধ্যেই একজনকে বেছে নেওয়া হতে পারে বলে বলে জানা গেছে। জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, চূড়ান্ত হয়নি। এগুলো শুধুই গুজব আর কিছু নয়। কাকে প্রার্থী দেওয়া হবে এটা কেবল দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানেন। খ্যাতিমান সাবেক ছাত্র নেতা ও  এই সময়ের কর্মীবান্ধব এবং পরিশ্রমী নেতা কাদের বলেন, সারাদেশে নৌকার জোয়ার। সুতরাং প্রার্থীর যোগ্যতা, আনুগত্যতা,  প্রার্থীর ব্যাপারে নেতাকর্মী পুরোপুরি সন্তুষ্ট কিনা তাও দেখা হবে। 
প্রবীণ রাজনীতিবিদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত দীর্ঘকাল এই আসনের এমপি ছিলেন। তিনি মারা গেলে গতবারই উপনির্বাচনে জয়া সেনগুপ্তা স্বামীর আসনে জয়লাভ করেন। এর আগে তিনি কখনো রাজনীতিতে ছিলেন না। জানা গেছে,  দিরাই-শাল্লার মানুষের সাম্প্রতিক ধারণা আগামী নির্বাচনে এই আসনে অপেক্ষাকৃত তরুণ বুদ্ধিদীপ্ত ও সাংবাদিক দীপক চৌধুরীই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন লড়াইয়ে এগিয়ে আছেন। তিনি এ সময়ের তারুণ্যের মডেল। অপরদিকে ব্র্যাকের একজন কর্মকর্তা হিসেবে সুদীর্ঘকাল চাকরি করেছেন জয়া সেনগুপ্তা। বয়সের ভারে  এখন   বর্তমান এমপি কাবু। এছাড়া নিজেও তিনি মনোনয়ন পেয়ে গেছেন বলে দাবি করেননি। শাল্লায় একটি অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যে বক্তৃতায় তিনি নিজে ‘মনোনয়ন প্রত্যাশী’ বলে দাবি করেছেন। এলাকাবাসীর সঙ্গে আলাপে জানা গেছে, প্রবীণ পার্লামেন্টারিয়ানের স্ত্রী হিসেবে রাজনীতির প্রতি  তার ন্যূনতম আগ্রহ বা আকর্ষণও ছিল না। রাজনীতি সচেতন মানুষ ও  নির্ভীক সাংবাদিক দীপক চৌধুরী ২০১৭ খ্রীস্টাব্দে উপনির্বাচনে দিরাই-শাল্লায় আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। গত বছরের ফেব্রæয়ারিতে মনোনয়ন দানের জন্য গঠিত  ইন্টারভিউ বোর্ডে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সাংবাদিক হতে রাজনীতিতে আসার উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করেন তিনি। দীপক চৌধুরীর বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী  মনোযোগের সঙ্গে শুনেন। কিন্তু বিশেষ কারণে তিনি শেষপর্যন্ত  ড. জয়া সেনগুপ্তার নৌকার পক্ষে উপনির্বাচনে কাজ করেছেন।  নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের সভাপতিমণ্ডলীর একাধিক সদস্য মনে করেন, এই আসনটি  কোনোভাবেই যাতে সাম্প্রদায়িক শক্তি  বিএনপির হাতে না যেতে পারে তা চিন্তা করা হচ্ছে। কেউ কেউ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার জন্য ‘বোল’ পাল্টাচ্ছেন ও ডিগবাজির রাজনীতি শুরু করেছেন। এই খবরও আছে।  অশুভ শক্তি ও জঙ্গিরা অতীতে বিভিন্ন সময় দিরাই-শাল্লায় অবস্থান নিতে আপ্রাণ চেষ্টা করেছে।  জাগ্রত জনগণের কারণে প্রতিরোধের মুখে তা পারেনি।  তাই ভাটি অঞ্চলের এই এলাকাটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে আছে। বিশেষ করে সম্ভাব্য দুজন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম নানা যোগ্যতায় বিবেচিত হচ্ছে এই আসনে। তাঁরা হচ্ছেন প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্তা ও বিশিষ্ট সাংবাদিক দীপক চৌধুরী। এছাড়াও দলের বিষয়ে কার কী ‘কন্ট্রিবিউশন’ রয়েছে তাও মনোনয়ন যোগ্যতায় বিবেচনা করা হবে। 

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK