রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮
Friday, 08 Jun, 2018 01:04:19 pm
No icon No icon No icon

রাজধানীর মিরপুরবাসী ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্যে অতিষ্ঠ


রাজধানীর মিরপুরবাসী ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্যে অতিষ্ঠ


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: রাজধানীর মিরপুরে সংঘবদ্ধ একদল নামধারী/ভুয়া সাংবাদিকের দৌরাত্ম্যে সরকারী দপ্তর, বিভিন্ন ব্যবসায়ী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল ও সর্বস্তরের জনগণ অতিষ্ঠ ও অসহায় হয়ে পড়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। মাত্র পাঁচশত টাকা খরচ করলেই সাংবাদিক হওয়া যায় বলে অনেকেই আক্ষেপের সাথে অভিযোগ করেছেন। সম্প্রতি একটি বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেল ইন্ডেপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের অপরাধ অনুসন্ধানী প্রতিবেদন মূলক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান “তালাশ” এর প্রচারিত তথ্যানুযায়ী জানা গেছে, কোনো নির্দিষ্ট পত্র-পত্রিকা বা গনমাধ্যমে চাকরী না করেও মিরপুরস্থ নামধারী বিভিন্ন সাংবাদিক উন্নয়ন সংস্থার বড় পদধারী ও সদস্য পরিচয় দিয়ে এরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে মিরপুরসহ গোটা রাজধানীজুড়ে। অথচ উচ্চ শিক্ষাগত যোগ্যতা তো দূরের কথা; এদের অনেকেরই প্রাথমিক শিক্ষাগত যোগ্যতাও নেই! সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে ‘সাংবাদিক’ শব্দটি সঠিকভাবে লেখা/উচ্চারনসহ নিজের নামটিও লিখতে পারেন না এই ভুয়া সাংবাদিকদের অনেকেই। তবে তাদের কোমরে ও স্বব্যবহৃত বিভিন্ন যানবাহনে গর্বভরে শোভা পায় বিভিন্ন নামধারী সাংবাদিক সংস্থার পরিচয় পত্র ও স্টীকার!
এধরনের কয়েকজন নামধারী সাংবাদিকদের সাথে কথা বলে তাদের সাংবাদিকতার নেপথ্যে জানতে চাইলে বেড়িয়ে এসেছে আরও চাঞ্চল্যকর ও লোমহর্ষক ব্যাপার! নিজের ইচ্ছা থাকলেই মাত্র পাঁচশ/হাজার টাকার বিনিময়েই নাকি সাংবাদিক হওয়াসহ এসকল সাংবাদিক উন্নয়ন সংস্থার বড় পদধারী বনে যাওয়া একটি তুচ্ছ ব্যপার! মিরপুর ভিত্তিক এধরনের কয়েকটি সংগঠনে চা-বিক্রেতা, অটোরিক্সা, সি.এন.জি, বাস-ট্রাক চালক ও মাদক ব্যবসায়ীসহ শুধুমাত্র মিরপুরেই তিন শতাধিক সদস্যও রয়েছে বলে সংগঠনগুলোর স্বঘোষিত চেয়ারম্যান নিজেই দাবী করেন। পক্ষান্তরে জনমনে পশ্ন; ছোট্ট একটি এলাকায় এত সাংবাদিক কি করে থাকে? যে কোনো ঘটনা-দূর্ঘটনায়ই দলবেধে হাজির হয় এই বাহিনী। বিভিন্ন কৌশলে ও সংবাদপত্রে প্রকাশের ভয়ভীতি দেখিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান থেকে মোটা অংকের চাঁদা আদায়সহ হয়রানী করে আসছে।
স্থানীয় প্রশাসন ও প্রকৃত সাংবাদিকদের প্রশ্ন-পাঁচশ/হাজার টাকার বিনিময়ে সাংবাদিক তৈরির কারিগর ও এসকল ভিত্তিহীন প্রতিষ্ঠানের অন্তরালে চাঁদাবাজীর নেপথ্য আসলে কারা রয়েছে?
সম্প্রতি পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রকৃত সাংবাদিকগণও কয়েকদফা তাদের বর্বরতার স্বীকার হয়েছেন। ফলে এ অঞ্চলের বাসিন্দাদের মধ্যে সাংবাদিক ও সংবাদপত্র সম্পর্কে নেতিবাচক ধারনার জন্ম দিয়েছে।
এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডি.এম.পির একজন উর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, দীর্ঘদিন উল্লেখিত বিষয়টি আমাদের নখদর্পনে থাকলেও নির্দিষ্ট অভিযোগের অভাবে আমরা উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারছিনা। এসকল নামধারী ও ভুয়া সাংবাদিকদের কোন দায়বদ্ধতা নেই; পক্ষান্তরে পুলিশ-প্রশাসনের রয়েছে সীমাহীন দায়বদ্ধতা। তবে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে এসকল প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সঠিক তদন্ত ব্যবস্থা গ্রহনসহ প্রতিষ্ঠানের অন্তরালে যৎসামান্য অর্থের বিনিময়ে সাংবাদিক তৈরির কারীগর ও থলের বিড়ালদের খুঁজে বের করে যথাযোগ্য আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সেই সাথে এই অনুসন্ধানে এলাকার প্রকৃত পেশাদার সাংবাদিকদের সক্রিয় অংশগ্রহণ ও সহযগীতা কামনা করেন তিনি।

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK