রবিবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৮
Sunday, 31 Dec, 2017 06:01:33 pm
No icon No icon No icon

কাফরুল ও বনানী থানা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি


কাফরুল ও বনানী থানা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের কাফরুল থানার পূর্ণাঙ্গ কমিটির বিরুদ্ধে আবারো অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মূল কারণ রয়েছে ওই কমিটিতে অনুপ্রবেশকারী, স্বজনপ্রীতি আর পদ-বাণিজ্যের একাধিক অভিযোগ। এছাড়াও বনানী থানা আওয়ামী লীগের কমিটিতে মৃত ব্যক্তি ও সন্ত্রাসীর নাম কমিটি রাখা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। 
সূত্র জানায়, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের কাফরুল থানা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার ক্ষেত্রে পদবাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। এর আগে সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নামে এই অভিযোগ উঠলেও এবার খোদ কাফরুল থানা আওয়ামী লীগের কমিটিতেই এমন ঘটনার সন্ধান পাচ্ছেন দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা। 
কাফরুল থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মো. জামাল মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব ইঞ্জিঃ এসএম আবুল কাশেমসহ ৬৯ জনের একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। কিন্তু কাফরুল থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মো. জামাল মোস্তফা ও ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল্লাহ সাইফুল মিলে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পরেও মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে পুরাতন নাম বাদ দিয়ে নতুন নাম প্রবেশ করানো হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই নিয়ে কমিটির মাঝে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।
অপরদিকে, গত ২৭ ডিসেম্বর বনানী থানা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ও ৯ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা পরিষদ ঘোষণা করা হয়। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তরের সভাপতি সংসদ সদস্য একেএম রহমতউল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক মো. সাদেক খান এ কমিটির অনুমোদন দেন। কমিটির সভাপতি করা হয়েছে একেএম জসিম উদ্দিনকে এবং সাধারণ সম্পাদক মীর মোশারফ হোসেন। কমিটিতে দেখা যায়, বনানী থানা আওয়ামী লীগের ৯ সদস্যের উপদেষ্টা পরিষদের ২ নম্বরে ২০ নং ওয়ার্ড (বনানী) আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল মাজেদের নাম রয়েছে। কিন্তু এই আব্দুল মাজেদ গত ২১ অক্টোবর মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন বনানী থানা আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা। আর থানা আওয়ামী লীগের কমিটির ৫১ নম্বর সদস্য হিসেবে নাম রয়েছে আক্তারুজ্জামান ফরিদের। তিনি মারা গেছেন গত ১ নভেম্বর। এছাড়া থানা আওয়ামী লীগের কমিটিতে ৩ নম্বর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে সন্ত্রাসী ও হত্যা মামলার আসামী মেহেদী হাসান ইমাম সিকদার ওরফে মেহেদী ওরফে কালা মেহেদীকে। তিনি দীর্ঘ বছল ধরে আমেরিকায় বসবাস করছেন। মেহেদী বনানীর মোবাইল ব্যবাসয়ী শিপু হত্যা মামলার আসামী। তার বিরুদ্ধে ক্যাডারদের মাধ্যমে মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদফতর, পুষ্টি স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটসহ কয়েকটে সরকারি সংস্থার টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ, বনানী ও গুলশানের পারলার, ইয়াবা-মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী, প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদা আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। চিহ্নিত চাঁদাবাজ আনিসুর রহমানকে করা হয়েছে প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক। চাঁদাবাজির মামলায় তিনি গ্রেফতার হয়েছিলেন। যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক করা হয়েছে অস্ত্রবাজ ও ইয়াবা ব্যবসার নিয়ন্ত্রক হাবীবুর রহমান হাবীবকে। অস্ত্র ও ইয়াবাসহ তাকে একাধিকবার গ্রেফতার করে র‌্যাব ও পুলিশ। 
কমিটিতে মৃত ব্যক্তি ও চাঁদাবাজ-সন্ত্রাসীর নাম থাকায় বনানী থানা আওয়ামী লীগসহ দলীয় লোকদের মাঝে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এছাড়া আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অংগ ও সহযোগী সংগঠনের সঙ্গে জড়িত, আন্দোলন-দলীয় কর্মসূচিতে নিয়মিত অংশ গ্রহণকারী বেশ কিছু নেতাকে কমিটিতে রাখা হয়নি। বিষয়টি ইতিমধ্যে সরাসরি মৌখিকভাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ বিভিন্ন নেতার দৃষ্টি গোচর করা হয়েছে। 
এব্যাপাওে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তরের সভাপতি এমপি একেএম রহমতউল্লাহ বলেন, এসব ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। এলাকা থেকে কমিটির প্রস্তাব দিয়েছে, সেভাবে হয়েছে।  

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK