বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯
Tuesday, 25 Dec, 2018 12:49:44 pm
No icon No icon No icon

"লাকি থার্টিন" ধারাবাহিকটি আমার জন্য নতুন একটি চ্যালেঞ্জ !

//


আহমেদ সাব্বির রোমিও, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : " আমি বরাবরই চ্যালেঞ্জটাকে উপভোগ করি । "লাকি থার্টিন" আমার জন্য নতুন একটি চ্যালেঞ্জ ! একটা প্রবাদ আছে আনলাকি থার্টিন । কিন্তু আমি আমার নতুন ধারাবাহিকের নাম রেখেছি "লাকি থার্টিন ! " নাটকটি দেখলেই দর্শকরা এর রহস্য জানতে পারবেন । " কথা গুলো জানালেন, এই সময়ের জনপ্রিয় পরিচালক ফরিদুল হাসান । বিনোদনধর্মী নাটকিয় গল্পে জাকির হোসেন উজ্জ্বলের রচনায় ইতিমধ্যেই নাটকটি প্রতি রবি, সোম, মঙ্গলবার রাত ১০ টায় আরটিভিতে প্রচার শুরু হয়েছে । 
ফরিদুল হাসান একটা সময় দাপিয়ে সাংবাদিকতা করেছেন । নির্ভীক সাংবাদিক থেকে এখন পুরদমের পরিচালক । একদম যেন দম ফেলানো ফুসরত নেই ! একচেটিয়া নাটক পরিচালনা করে যাচ্ছেন । খণ্ড নাটক , টেলি ফ্লিম , ধারাবাহিক ! যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে নেতৃত্বও দিয়ে চলেছেন টেলিভিশন নাট্য পরিচালকদের সংগঠন ডিরেক্টর'স গিল্ডের। পরিচালক হাসান বলেন , " যে সময়টা বাংলাদেশের দর্শকরা আমাদের সিরিয়াল না দেখে কোলকাতার বাংলা আর হিন্দি সিরিয়ালের দিকে ঝুকে ছিল,এমনকি আমাদের দেশের টিভি চ্যানেল দর্শক ফিরিয়ে আনার জন্য ডাবিং করে বিদেশী ধারাবাহিক প্রচার শুরু করলো । ঠিক তখনই বলতে পারেন চ্যানেলের সাথে অনেকটা চ্যালেঞ্জ করেই ঝুঁকি নিয়ে নির্মাণ শুরু করলাম কমেডি ৪২০ ধারাবাহিক নাটকটি "। কারন , আমার কেন জানি মনে হচ্ছিল কোলকাতার বাংলা বা হিন্দি সিরিয়ালের এক ঘেয়ামি পরকীয়া প্রেম, স্বামী স্ত্রীর সন্দেহ দেখতে দেখতে আমাদের দর্শকরা বোরিং ফিল করছিলো । দর্শকরা চাইছিল ভিন্নধারার বিনোদন ।সারাদিনের কর্ম বাস্ত জীবন ধারায় হাফিয়ে ওঠা মানুষ গুলো দিন শেষে টিভি সামনে বসে নির্মূল হাসির কিছু একটা উপভোগ করতে চাইছিল । আমি মনে করি দিন শেষে হাজারো ক্লান্তির পরে হাসি খোরাক মানুষকে চাঙ্গা করে দেয় । ভাঁড়ামি আর নির্মূল হাসির মাঝে অনেক ফারাক । আমি সব সময় চেষ্টা করেছি "কমেডি ৪২০ " ভাঁড়ামি মুক্ত একটি নিমুল হাসির নাটক হোক , দর্শকরাও দেখে আনন্দ পাক । আমি কৃতজ্ঞ দর্শকদের প্রতি তারা "কমেডি ৪২০ " ধারাবাহিক টি সানন্দে গ্রহন করেছেন । নাটকটি রচনা করেছিলেন আকাশ রঞ্জন এখন লিখছেন আহাসান আলমগির । বৈশাখী টিভিতে প্রচারিত এই নাটকটি এখনো টিআরপির ভালো অবস্থান দখল করে আছে । "লাকি থার্টিন" ধারাবাহিকটিও দর্শকরা দারুন ভাবে উপভোগ কবেন বলে আমার বিশ্বাস জানালেন , পরিচালক ফরিদুল হাসান । 
হাওলাদার-এর বিশাল একান্নবতি পরিবার। যার মূলে রয়েছে তার একডজন বিবাহ। সত্তুর বৎসর বয়সী মোহাব্বত হাওলাদারের স্ত্রীদের মধ্যে এখনও তিনজন তার সাথে আছেন।তাদের প্রত্যেকেরই আলাদা আলাদা সংসার। বাকীদের কেউ কেউ মারা গেছেন কেউ তাকে ছেড়ে চলে গেছেন।
সর্বশেষ বিয়ে করেছিলেন পনের বছর বৎসর আগে। ছেলে মেয়ে সব বড় হয়ে গেছে। এমনকি নাতি নাতনিদের মধ্যেও অনেকের বিয়ের বয়স হয়ে গেছে।
সবার ধারণা হয়েছিল বিয়ে রোগ মনে হয় সেরে গেছে তার। কিন্তু তখনই তিনি হঠাৎ একদিন নতুন একটা বিয়ে করে নিয়ে আসেন।
পাত্রী পাশের গ্রামের অপরূপা সুন্দরী অষ্টাদশী লাকি বেগম। বিয়েকে কেন্দ্র করে শুরু হতে থাকে নানা নাটকিয়তা।

নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন -আমিরুল হক চৌধুরী, আনিসুর রহমান মিলন, অহনা, সাজু খাদেম, সিদ্দিকুর রহমান, শর্মিলা আহমেদ, খালেদা আক্তার কল্পনা, ফারজানা ছবি, ফারুক আহমেদ, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, মৈৗসুমি নাগ, নাজিরা মৌ, হুমাইরা হিমু, এনি খান, তানিয়া বৃাষ্টি, আমীন আজাদ, সোহেল খান, সফিক খান দিলু, মিলি বাসার, আনন্দ খালেদ সহ আরো অনেকে।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK