শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯
Sunday, 23 Dec, 2018 01:35:34 pm
No icon No icon No icon

বড় রাতের আড্ডাবাজি !


বড় রাতের আড্ডাবাজি !


আহমেদ সাব্বির রোমিও, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা : গতকাল কালকের রাতটা  নাকি ছিল এ বছরের সবচেয়ে বড়  রাত ! রাত বড় আড্ডা কি আর ছোট করা যায় ? আড্ডাটা আস্তে আস্তে বাড়তেই লাগলো ।যাই হোক আড্ডা চলছেই ! মুক্তিযোদ্ধা চত্বরের সামনে আমি ,অভিনেতা রহিম, অভিনেতা সীমান্ত  অভিনেতা ফাইজুর হাফ টন ( ও ১ টনই তো অনেক পরের কথা মিলটন  তো চিন্তাই  করা যায় না ! ) , অভিনেতা তানভির, নাট্যকার /অভিনেতা আকাশ রঞ্জন , সাংবাদিক পান্থ , পরিচালক রনি আমারা সবাই আড্ডা দিতে দিতে রাত তখন ১১ টার কাছাকাছি !  আড্ডা এক পর্যায়ে  তানভীর এসে আমাকে বলল বড় ভাই , " আমি তো একটা কাম ঘটাইয়া ফেলছি , তোমার বন্ধু চমক তারারে তো বিয়া  কইরা ফেলছি গতকাল । কেন ফেসবুকে ছবি দেখ নাই ? "  তখন ফাইজুর বলল তানভীররে বলল , " তানভীর  আমি তো আরও আগেই ওরে করতাম ! কিন্তু  এক পরিচালক করতে দিল না ।"  আমি তো এত সহজে ছেড়ে দেবার পাত্র না । হাজার হোক আমার বন্ধু  চমক্বাতারারে নিয়া কথা !   আমি কইলাম, " মিয়া তোমরা যারে বিয়া করছো বা  করবা বলে  চিন্তা ভাবনা করতাছো  তারে আরও ৬ বছর আগে এক পরিচালক আমার লগে বিয়া দিসিলো ! ভাগ্য খারাপ টিকলো না ! মিডিয়ার বিয়া তো ! পরে নাকি আবার এক পরিচালক তারে বিয়া দিছিল কিন্তু জামাইটা ক্যানসারে মারা যায় । কেন পত্রিকায় দেখ নাই ? বিধবা হলেন চমক তারা নিউজ ও তো হইছিল ! " বলেই হেসে দিলাম ।  ঘড়ির কাঁটায় রাত পণে ১২ টা । আড্ডা বিদায় নিল ফায়জুর আকাশ রঞ্জন । কেন জানি আমার মনটা খারাপ হয়ে গেল , ব্যাপার টা লক্ষ্য করলো সীমান্ত আর রনি । সীমান্ত বলেই হুট করে বলেই ফেলল , " রোমিও ভাই মন খারাপ ?আরে বাদ দেন তো  চলেন আজ বড় রাতটাকে  আমরা সৃতিময় করে রাখি । দুই দিনের দুনিয়া সামনে বছর এই বড় রাত আমাদের জীবনে নাও আসতে পারে । আজ সারা রাত ঘুরবো । "  সীমান্তের কথায় সুর মিলালো পরিচালক রনি । ঝামেলা হোলো রনির বাইক কই রাখা যায় সেটা নিয়া । সমাধান করলো সাংবাদিক পান্থ। যাত্রা শুরু বড় রাতের ইতিহাস রচনার । কথায় ব্লে ঢেঁকি স্বর্গে গেলেও ধান ভাঙ্গে ! যেহেতু সফরসঙ্গীর মাঝে ২ জন সাংবাদিক আর আড্ডার মাঝে মিডিয়া আর বড় পর্দার দুজন অভিনেতা সীমান্ত আর রহিম ,সাথে পরিচালক রনিও আছে। গল্প আর আড্ডার মধ্যে থেকেই মিডিয়া আর বড় পর্দার বর্তমান অবস্থানটাও জেনে নেয়া যাবে। এটা অনেকটা, " রথ দেখা কলা বেচা 'র " মতো বাপার আরকি ! কথা চলছে ,নোট নেয়া হচ্ছে।আগামী ফিচার লেখার রসদ । গাড়ির মধ্যে আমিই  বয়সে প্রবীণ ! ৫৪!! তার পরেও মনের দিক থেকে চীর তরুণ থাকার আপ্রাণ আপচেষ্টা । গাড়িতে বসার পরপরই সীমান্ত পুরাতন বাংলা গান ছেড়ে দিলো । ভেবে ছিলাম হয়তবা আমার মন ভালো কারার জন্য তার এই প্রয়াস !  কিন্তুনা পরে জানলাম বরাবরই সে এই ধাচের গানই শুনে থাকে । এই প্রজন্মের সন্তান হয়েও তার গানের রুচির প্রশংসা করতেই হয় ! যাই হোক প্রথম যাত্রা বিরতি হাতিরঝিল । চা পান সিগারেট অভিনেতা রহিমের সৌজন্যে  ।১৫/২০ আড্ডা শেষে পাইলট সীমান্ত ঝটিকা গতিতে তার গাড়ি চালিয়ে আমাদের ৩০০ ফিটে নীলা মার্কেটে সামনে নিয়ে আসলো ! সেখানে নেমেই শৌখিন গানের শিল্পীর গানের আয়োজন দেখতে লাগলাম । গানের তালে তালে আমিও বাদ্য বাজাতে লাগলাম। এরই মধ্যে পান্থ তার দামী মোবাইলে গানের ভিডিও ধারন করা শুরু করলো । তার ইউ টিউব চ্যানেলের জন্য । অপর দিকে সীমান্ত গরম গরম মিষ্টির  আয়োজন নিয়ে বাস্ত !  আমাদেরকে খাওয়াবে বলে কথা !!  গান শুনে গরম মিষ্টি ভক্ষণ করে আমরা রাত  পণে ৩ টার দিকে রওনা দিলাম পুরাতন ঢাকার নাজির বাজারে তেহারি খাবার উদ্দেশে ।গাড়িতে তখন বাজছে , মান্না দে এর সেই বিখ্যাত গান , " কতো দিন দেখি নি তোমায় , তবু মনে পরে তবো মূখ খানি !, খুব জানতে ইচ্ছে করে তুমি কি সেই আগের মতোই আছ নাকি অনেক খানি বদলে গেছ? , কফি হাউজের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই , " গান গুলো ।গান গুলো যখন শুনছিলাম আমি তখন কল্পনার জগতে , এই হাতির ঝিল, ৩০০ ফিট, পুরাতন ঢাকার নাজিরা বাজারে গত ৮ বছরে আমার অনেক সৃতি আমাকে গাড়ির ভিতরে  আঁকড়ে ধরছিল । ভোর ৪ টার দিকে আমরা  নাজির বাজার পৌছালাম । ততক্ষণে খিদায় সবার পেট চৌচির ! কিসের  সেলফি তোলা ? আগে পেট পূজা ! এই ভোর রাতে ও নাজির বাজার পুরা গরম । লোকে লোকারণ্য । খাবার টেবিলে দেখি পান্থ নাই সে তার দামী মোবাইল নিয়ে আবার ভিডিও করতে চলে গেল । নিজস্ব চ্যানেল বলে কথা ,হোক না  সেটা ইউ টিউব চ্যানেল দর্শক তো আছে !  ভুঁড়ি ভোজ শেষ আমাদের যার যার গন্তবে সীমান্ত নামিয়ে দিলো ।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK