রবিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮
Thursday, 07 Jun, 2018 10:55:42 am
No icon No icon No icon

আজ সাড়ে ৪ লাখ কোটি টাকার বাজেট পেশ


আজ সাড়ে ৪ লাখ কোটি টাকার বাজেট পেশ


কাজী মাহফুজুর রহমান শুভ ও মো. কামরুল হাসান, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: আজ পেশ করা হবে নতুন অর্থবছরের (২০১৮-১৯) জাতীয় বাজেট। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বেলা সাড়ে ১২টায় জাতীয় সংসদে বাজেট অধিবেশনে এই বাজেট উপস্থাপন করবেন। এটি অর্থমন্ত্রী হিসেবে তার দ্বাদশ ও টানা দশম বাজেট হতে যাচ্ছে। বাজেটের আকার প্রায় ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকা হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এর মধ্যে মোট রাজস্ব আয় ৩ লাখ ৩৯ হাজার ২৮০ কোটি টাকা হতে পারে। আগামী অর্থবছরের জন্য বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে ১ লাখ ২৫ হাজার ২৯০ কোটি টাকা বরাদ্দের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এছাড়া এবারের বাজেটে জনগণের ওপর কোনো বাড়তি করারোপ করা হবে না বলে ইতোমধ্যেই ঘোষণা দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। সেই সঙ্গে বাড়বে ব্যক্তি শ্রেণীর আয়কর সীমা, বাড়বে সামাজিক সুরক্ষার আওতাও। বেকার সমস্যা সমাধানে বিশাল কর্মপরিকল্পনার রূপরেখাও থাকছে এবারের বাজেট প্রস্তাবনায়। শুধু তাই নয়, ব্যাংক খাত নিয়ে ওঠা নানা সমালোচনা থেকে বাঁচতে থাকতে পারে 'ব্যাংকিং কমিশন'র ঘোষণা। এর সবকিছুই হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ক্ষমতাসীন দলকে তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আনতেই 'ভোটার তুষ্টি'র বাজেট প্রণয়ন হতে যাচ্ছে। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এবারের বাজেটে সবচেয়ে বড় দিক কর ব্যবস্থাপনা। মুহিতের আমলে প্রতি বছর যে হারে বাজেটের আকার বাড়ানো হয়েছে এবার সে হারে তা বাড়ছে না। এর মূল কারণ আগামী বাজেটে নতুন করে করের বোঝা না বাড়ানো। উল্টো ব্যবসায়ীদের খুশি করতে কর্পোরেট কর কমানো হতে পারে। এছাড়া গত তিন বছর ধরে ব্যক্তি শ্রেণীর করমুক্ত আয়ের সীমা বাড়ানো হয়নি। নির্বাচনকে সামনে রেখে এবার তা বাড়ানো হবে। প্রস্তাবিত বাজেটে করমুক্ত আয়ের সীমা ২ লাখ ৭০ হাজার টাকা করা হতে পারে। একই সঙ্গে ভোটার তুষ্টির এ বাজেটে সামাজিক সুরক্ষা খাতে বিশেষ নজর দিচ্ছে সরকার। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে নতুন করে ১১ লাখ দরিদ্র মানুষকে সামাজিক সুরক্ষার আওতায় আনা হচ্ছে।

এর বাইরে নির্বাচনের আগে বদলে যাবে গ্রামীণ রাস্তাঘাট ও অবকাঠামো। দেয়া হবে মেগা প্রকল্পের প্রতি জোর। বাজেটের পর গ্রামীণ সড়ক, ব্রিজ, কালভার্ট, ধর্মীয় উপাসনালয় সংস্কার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করা হবে। ব্যবসায়ীদের খুশি রাখতে নতুন কোনো করারোপ করা হবে না। চালু হবে না নতুন ভ্যাট আইনও। সংসদ সদস্যদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণে বাজেটে তাদের জন্য অর্থ বরাদ্দ বাড়ানো হবে। তবে বাজেটে আলোচিত হবে ব্যাংক খাত। এই ব্যাংক খাতে লুটপাট ও হু হু করে বাড়তে থাকা খেলাপি ঋণ নিয়ে কম সমালোচনা হয়নি। এবার সেই সমালোচকদের মুখ বন্ধ করতে গঠন করা হতে পারে ব্যাংকিং কমিশন। বাজেট বক্তৃতায় সে ব্যাপারে ঘোষণা দিতে পারেন অর্থমন্ত্রী।

শুধু তাই নয়, জানা গেছে, বাজেটে সরকারের ১২ লাখ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতন বৃদ্ধির (ইনক্রিমেন্ট) ঘোষণা দেয়ার সম্ভাবনা আছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগের এ বাজেটে চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা খাতে বেশি বরাদ্দ রাখা হচ্ছে। এছাড়াও নতুন বাজেটে নতুন করে ১১ লাখ দরিদ্র মানুষকে সামাজিক সুরক্ষার আওতায় আনা হবে বলে জানা গেছে। ফলে এ কর্মসূচির আওতায় উপকারভোগীর মোট সংখ্যা দাঁড়াবে ৮৬ লাখ। নতুন এ সুবিধাভোগীর মধ্যে বয়স্ক ভাতা কর্মসূচির আওতায় যোগ হবে আরও পাঁচ লাখ মানুষ, বিধবা ভাতা কর্মসূচিতে যোগ হবে ১ লাখ ৩৫ হাজার এবং অসচ্ছল প্রতিবন্ধী আরও ১ লাখ ৭৫ হাজার যোগ হবে।

প্রস্তাবিত বাজেটে ভ্যাটহারে ব্যাপক পরিবর্তন আসতে পারে। বর্তমানে নয়টি ভ্যাটহার আছে। এটি কমিয়ে ছয়টিতে নামানো হতে পারে। বর্তমানে দেড়, আড়াই, তিন, চার, সাড়ে চার, পাঁচ, ছয়, ১০ ও ১৫- এই নয়টি হারে ভ্যাট আদায় হয়। সংকুচিত ভিত্তিমূল্যে গণনা করা হয় এসব হার। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, প্রস্তাবিত বাজেটে এই হার হতে পারে দুই, তিন, চার, ছয়, ১০ ও ১৫ শতাংশ। অন্যদিকে অগ্রিম ব্যবসায় ভ্যাট (এটিভি) এক শতাংশ বাড়িয়ে ৫ শতাংশ করা হতে পারে।

এদিকে অর্থমন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, প্রতিবারের ন্যায় এবারো ডিজিটাল পদ্ধতিতে অর্থাৎ পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে বাজেট উপস্থাপন করা হবে। বাজেট বক্তৃতা, বাজেটের সংক্ষিপ্তসার, বার্ষিক আর্থিক বিবৃতি, সম্পূরক আর্থিক বিবৃতি, মধ্য মেয়াদী সামষ্টিক অর্থনৈতিক নীতি বিবৃতি, বিকশিত শিশু : সমৃদ্ধ বাংলাদেশ, শিশু বাজেট ২০১৮-১৯, ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে অগ্রযাত্রা : হালচিত্র ২০১৮, জলবায়ু সুরক্ষা ও উন্নয়নের লক্ষ্যে বাজেট প্রতিবেদন ২০১৮-১৯, জেন্ডার বাজেট প্রতিবেদন, সংযুক্ত তহবিল-প্রাপ্তি, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮, মঞ্জুরি ও বরাদ্দের দাবিসমূহ (পরিচালন ও উন্নয়ন), বিস্তাারিত বাজেট (উন্নয়ন), মধ্য মেয়াদী বাজেট কাঠামো এবং রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানসমূহের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট সংক্ষিপ্তসার ওয়েবসাইটে প্রকাশসহ জাতীয় সংসদ থেকে সরবরাহ করা হবে। একই সঙ্গে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ প্রণীত ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের কার্যাবলী-২০১৭-১৮ জাতীয় সংসদে পেশ করা হবে।

মন্ত্রণালয় থেকে আরো জানায়, বাজেটকে আরো অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইট িি.িসড়ভ.মড়া.নফ -এ বাজেটের সকল তথ্যাদি ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল যে কোনো ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান কর্তৃক পাঠ ও ডাউনলোড করা যাবে এবং দেশ বা বিদেশ থেকে ঐ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফিডব্যাক ফরম পূরণ করে বাজেট সম্পর্কে মতামত ও সুপারিশ প্রেরণ করা যাবে। প্রাপ্ত কল মতামত ও সুপারিশ বিবেচনা করা হবে। জাতীয় সংসদে বাজেট অনুমোদনের সময়ে ও পরে তা কার্যকর করা হবে।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK