সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯
Saturday, 13 Jul, 2019 05:59:13 pm
No icon No icon No icon

ফলোআপ: মাদক বহনে রাজি না হওয়ায় জুয়েলকে খুন

//

ফলোআপ: মাদক বহনে রাজি না হওয়ায় জুয়েলকে খুন

খন্দকার হানিফ রাজা, বিশেষ প্রতিনিধি, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: রাজধানীর আদাবর থানা এলাকায় মাদক বহনে রাজি না হওয়ায় জুয়েলকে প্রথমে মারধর করেছিলো। পরে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা করার পর পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করায় পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এসব তথ্য পাওয়া গেছে নিহতের স্বজন, স্থানীয় এলাকাবাসী ও তদন্ত সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে। ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানা যায়, রাত ১১টার দিকে লোহার ব্রিজের গোড়ায় পাপ্পুর চায়ের দোকানের সামনে জুয়েল মটর সাইকেলে থাকা অবস্থায় মিজান, মনির, সালাহউদ্দিন ও খোকনসহ ৩০/৩৫ জন সন্ত্রাসী ধারালো দা, চাকু ও চাপাতি দিয়ে এলোপাথারি কোপাতে থাকে। জুয়েল মাটিতে পড়ে গেলে তার পিঠে ও পায়ে কোপ দেয় সন্ত্রাসীরা। জীবন বাঁচাতে জুয়েল খালে ঝাঁপ দিলেও সেখান থেকে তাকে তুলে এনে স্থানীয় শিল্পীর বাড়ির দক্ষিণ পাশের খালের উপর জমে থাকা আবর্জনার উপর জুয়েলকে শুইয়ে দেয়। পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পুনরায় কুপিয়ে মৃত ভেবে জুয়েলকে রেখে তারা পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বালুর মাঠে নিয়ে আসে ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীদের আক্রমণে জুয়েলের দাঁত ও মাড়ি ভেঙ্গে যাওয়ায় চিকিৎসার জন্য মিরপুর ডেন্টাল হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দিলে তাকে নিয়ে সেখানে যাওয়ার সময় পথেই তার মৃত্যু হয়।
নিহত জুয়েলের পরিচিতরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, স্থানীয় চাঁদাবাজ ও মাদক ব্যবসায়ী শাহিদা আক্তার মমতাজ জুয়েলকে ইয়াবা সাপ্লাই দিতে তার মটর সাইকেল ব্যবহার করার কথা বলে। কিন্তু জুয়েল এত রাজি না হওয়ায় তাকে মিজান, মনির খোকনসহ অন্যান্যরা বিভিন্ন সময় হুমকি-ধামকি দেয়া অব্যাহত রেখেছিলো এবং তাকে পূর্বে মারধরও করেছিলো বলে জানায়।
নিহতের স্ত্রী আরজিনা খাতুন জানান, সন্তানসহ তারা ৭১২/৪৪, নম্বর আদাবর এলাকার বাড়িতে ( হোসেন ম্যানেজারের বাড়ি) ভাড়া থাকেন। তার স্বামী মোহাম্মদ জুয়েল (৩০) অ্যাপস ভিত্তিক রাইড শেয়ারিং পাঠাওতে মটর সাইকেল চালিয়ে সংসার চালাতেন। গত ২৫ মার্চ প্রতিদিনের মত জুয়েল সকাল ১০ টায় বাসা থেকে বের হয়ে যায়। ওই দিন রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাসায় ফেরার পথে বায়তুল আমান হাউজিং সোসাইটির ১০ নম্বর রোডের আলীর অফিসের সামনে আসে। এসময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শাহিদা আক্তার মমতাজের গ্রুপের মিজান, মনির ও খোকনসহ আরো ১০/১২ জন সন্ত্রাসী জুয়েলকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথারি মারধর করে গুরুতর রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে রেখে গিয়েছিলো। এ ঘটনায় ২৬ মার্চ আদাবর থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন তিনি (মামলা নম্বর: ৪৩, ২৬/০৩/২০১৯ ইং)। মামলা দায়েরের পর থেকেই জড়িতরা জুয়েলকে মারার জন্য খুঁজছিলো। 
তিনি আরো জানান, তিনি জুয়েলকে বলেছিলেন যারা খুঁজছে তাদের সাথে কথা বলতে, এ সময় জুয়েল তাকে আশ্বস্ত করেছিলো তাদের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তাদের সাথে কথা বলবে। পরে মামলার এক আসামী মিজানকে পুলিশ গ্রেফতার করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে জুয়েলকে মারার জন্য পুরো আদাবর এলাকায় খোঁজাখুঁজি করছিলো। এসব শোনার পর তিনি জুয়েলকে যতটা দ্রুত সম্ভব বাসায় ফেরার জন্য তাগাদা দেন। ১১ জুলাই বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে জুয়েল তাকে ফোনে জানায় সে আদাবর ১০ নম্বর ব্রিজের উপর আছে। তাকে মিজান, মনির, খোকনসহ তাদের লোকজন মারার জন্য খুঁজছে বলে জানিয়েছিলো। জুয়েলের পরিচিতদের কাছ থেকে তিনি রাতে জানতে পারেন জুয়েলকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে এবং তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রাত ২টার দিকে তিনি সেখানে গিয়ে দেখতে পান জুয়েলের মাথা, পাসহ সমস্ত শরীর রক্তাক্ত জখম ও ব্যান্ডে বাঁধা। এ সময় জুয়েল তাকে ডেকে ঘটনায় জড়িতদের কথা বলে গেছেন। সন্ত্রাসীদের হামলায় জুয়েলের দাঁত ও মাড়ি ভেঙ্গে যাওয়া চিকিৎসকের পরামর্শে ডেন্টাল হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ এসে সুরতহাল রিপোর্ট করেন ও ময়না তদন্তের জন্য জুয়েলের মৃতদেহ শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়। পরে ১২ জুলাই রাতে তিনি ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরো অজ্ঞাত ৩০/৩৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান তিনি (মামলা নং- ১৭, ১২/০৭/২০১৯ইং)।
উল্লেখ্য, ১১ জুলাই বৃহস্পতিবার রাত ১১টার আদাবরের ১০ নম্বর সড়কের বালুর মাঠ সংলগ্ন খালের পাশে এই ঘটনাটি ঘটে। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়, সেখান থেকে মিরপুর ডেন্টাল হাসপাতালে নেয়ার পথে ভোর সাড়ে ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK