রবিবার, ২০ মে ২০১৮
Tuesday, 13 Feb, 2018 11:40:58 pm
No icon No icon No icon

গণতন্ত্রী পার্টির নেতা নুুরুল হত্যা: নতুন করে শুরু তদন্ত


গণতন্ত্রী পার্টির নেতা নুুরুল হত্যা: নতুন করে শুরু তদন্ত


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা:গণতন্ত্রী পার্টির নেতা মো. নুরুল ইসলাম ও তার ছেলে ইসলাম তমোহর হত্যা মামলাটি প্রায় ১০ বছর ধরে তদন্ত করেছে চার বাহিনী। কিন্তু দীর্ঘ এক দশকেও কূল-কিনারা হয়নি হত্যাকাণ্ডের। পুলিশ, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) ও পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)  নুরুল ও তার ছেলেকে হত্যা করা হয়নি মর্মে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। এমন বাস্তবতার মধ্যেই দুই সপ্তাহ আগে নতুন করে মামলাটির তদন্তের দায়ভার নিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ২০০৮ সালের ৩ ডিসেম্বর গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতি মো. নুরুল ইসলাম ও তার ছেলে ইসলাম তমোহর লালমাটিয়ার ২৩/২৪ নম্বর রোডের বি-ব্লকের পঞ্চম তলার ভাড়া বাসায় আগুনে পুড়ে নিহত হন। এ ঘটনার ১৩ দিন পর ১৫ ডিসেম্বর মোহাম্মদপুর থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন নিহতের ভায়রা বিএম হাসান। মামলার পর ওই বাসার দারোয়ানকে আটক করেছিল পুলিশ। কিন্তু কোনো ধরনের সংশ্লিষ্টতা না পেয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয় পরবর্তী সময়ে। নুুরুল ইসলাম নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) প্রার্থী ছিলেন। বামপন্থী এই রাজনীতিক শ্রমিকনেতা হিসেবেও পরিচিত ছিলেন। ঘটনার দিন তার স্ত্রী রুবি ইসলাম ও মেয়ে মৌটুসী ইসলাম যুক্তরাষ্ট্রে ছিলেন। মামলাটি এ পর্যন্ত যতবার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে, ততবারই মামলার বাদী ও স্বজনরা আপত্তি জানিয়েছে।     
নথি ঘেঁটে জানা যায়, মোহাম্মদপুর থানায় মামলাটির তদন্ত শুরু করে পুলিশ। পরে তা তদন্ত করে সিআইডি। দীর্ঘদিন মামলার তদন্ত করে সিআইডি চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। সেই প্রতিবেদনের পর আদালত এ মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য র‌্যাবকে নির্দেশ দেয়। এরপর র‌্যাব তদন্ত করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে মামলাটি চাঞ্চল্যকর আখ্যায়িত করে অধিকতর তদন্তের জন্য ডিবিকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত। সেই থেকে তদন্ত করছিল ডিবি। পুলিশ, সিআইডি,  র‌্যাব ও ডিবির চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়ার পর এবার সেই মামলার দায়িত্ব পেল পিবিআই। সপ্তাহ দুয়েক হলো, আলোচিত এই মামলাটির তদন্ত শুরু হয়েছে। ঘটনাটি হত্যা নাকি দুর্ঘটনা, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট নাকি বাসায় রাখা ফ্রিজ বিস্ফোরণ থেকে ঘটেছে, তা এখন পর্যন্ত বের করতে পারেননি কোনো তদন্ত কর্মকর্তা। এ কারণে তদন্তকারীরা হত্যা নয় উল্লেখ করে চূড়ান্ত  প্রতিবেদন দাখিলও করে।
পিবিআই সূত্র জানায়, ডিবি মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিলে আপত্তি জানায় নিহতের পরিবার। সে কারণে এবার সর্বশেষ ব্যবস্থা হিসেবে তদন্তে মাঠে নেমেছে পিবিআই।সর্বশেষ ডিবির দেওয়া ৮৬৪ পৃষ্ঠার চূড়ান্ত প্রতিবেদন যাচাই-বাছাই করতে শুরু করেছেন পিবিআইয়ের কর্মকর্তারা। মামলাটির ব্যাপারে আগে চার তদন্তকারী সংস্থা একই ধরনের তথ্য উল্লেখ করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছিল। সেসব তথ্য যাচাই-বাছাই চলছে। তদন্তে কোনো ধরনের ঘাটতি ছিল কি না, তা-ও পূরণে কাজও করবে সংস্থাটি। একই সঙ্গে তদন্তকারী কর্মকর্তারা নিহতের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছেন। 
এ বিষয়ে জানতে চাইলে পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বশির আহমেদ বলেন, ‘আলোচিত মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদনে নিহতের পরিবার সন্তুষ্ট না হওয়ার পর সেটি পিবিআইতে এসেছে। এখন থেকে মামলাটির তদন্ত করবে পিবিআই।’
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পরিদর্শক নাসির উদ্দিন বলেন, ‘তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর তার (নুরুল ইসলাম) স্ত্রীর সঙ্গে কিছুটা কথা হয়েছে। তিনি অসুস্থ থাকার কারণে পরবর্তীতে কথা বলতে চেয়েছেন।’
সূত্র:প্রিয়.কম।

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK