সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯
Monday, 07 Nov, 2016 01:44:52 pm
No icon No icon No icon

বিচারকদের আচরণবিধি নিয়ে আদালতের অসন্তোষ

//

বিচারকদের আচরণবিধি নিয়ে আদালতের অসন্তোষ
টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: নিম্ন আদালতের বিচারকদের আচরণবিধি (কোড অব কনডাক্ট) চূড়ান্ত না হওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন আপিল বিভাগ। এ ব্যাপারে সময় চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদনটি অস্পষ্ট জানিয়ে আদালত শেষবারের মতো আগামী ২৪ নভেম্বর পরবর্তী তারিখ ধার্য করেছেন। এ সময়ের মধ্যে আচরণবিধি গেজেট আকারে প্রকাশ করে তা আদালতে উপস্থাপন করতে বলা হয়েছে। সোমবার প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে ৯ সদস্যের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালত বলেছেন, 'এটাই শেষ সময়। এ বিষয়ে আর কোনো সময় দেয়া হবে না।' সকালে চাকরির আচরণবিধিমালা প্রণয়নের কাজ কতদূর এগিয়েছে সে বিষয়ে একটি এফডিভেট দাখিল করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তাতে বলা হয়, চাকরির আচরণবিধির খসড়া রাষ্ট্রপতির দফতরে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু কবে পাঠানো হয়েছে তা এতে সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ ছিল না। এ সময় অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ্য করে আপিল বিভাগ বলেন, 'আপনাদের এ আবেদন অস্পষ্ট।' এরপর আবেদনে আচরণবিধি প্রণয়নের বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে আট সপ্তাহ সময় চাওয়া হয়। এ পর্যায়ে আপিল বিভাগ বলেন, 'আট সপ্তাহ কেন আট দিনও সময় দেব না। আপনারা বারবার সময় আবেদন করছেন। আপনারা যদি ভেবে থাকেন রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করলেই তা মঞ্জুর করব, এটা দুর্ভাগ্যজনক।' পরে আদালত ২৪ নভেম্বর দিন ধার্য করেন। এ পর্যায়ের অ্যাটর্নি জেনারেল আরও চার দিন সময় বাড়ানোর জন্য অনুরোধ জানান। তবে সে আবেদনও নাকচ হয়ে যায়। ১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর মাসদার হোসেন মামলায় ১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেয়া হয়। ওই রায়ের আলোকে নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির আচরণ-সংক্রান্ত বিধিমালা প্রণয়নের নির্দেশনা ছিল। আপিল বিভাগের নির্দেশনার পর গত বছরের ৭ মে আইন মন্ত্রণালয় একটি খসড়া শৃংখলা-সংক্রান্তবিধি প্রস্তুত করে সুপ্রিমকোর্টে জমা দেয়। গত ২৮ আগস্ট এ সংক্রান্ত মামলার শুনানিকালে আপিল বিভাগ বলেছিলেন, আচরণবিধিমালা সংক্রান্ত সরকারের খসড়াটি ১৯৮৫ সালের সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালার হুবহু, যা মাসদার হোসেন মামলার রায়ের পরিপন্থি। এরপরই সুপ্রিমকোর্ট একটি খসড়া বিধিমালা করে আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। একইসঙ্গে ৬ নভেম্বরের মধ্যে তা প্রণয়ন করে প্রতিবেদন আকারে আদালতকে অবহিত করতে মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়। সোমবার মামলাটি শুনানির জন্য কার্যতালিকায় আসে। তবে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগকে অ্যাটর্নি জেনারেল এ বিষয়ে কোনো অগ্রগতি জানাতে পারেননি।
এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK