বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Saturday, 24 Aug, 2019 10:08:10 pm
No icon No icon No icon

গেস্ট হাউজের টোকেন দিয়ে টঙ্গি ও চেরাগআলি এলাকায় যৌন ব্যবসার অভিযোগ

//

গেস্ট হাউজের টোকেন দিয়ে টঙ্গি ও চেরাগআলি  এলাকায় যৌন ব্যবসার অভিযোগ


শামীম চৌধুরী, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: টঙ্গি সিটিকর্পোরেশন এলাকায় কিছু সংখ্যক ব্যক্তি মেয়েদের সরলতা জিম্মি করে সমাজে যৌন ব্যবসার মত অসামাজি ব্যবসায় লিপ্ত রয়েছে। এদের মধ্যে কারোর নাম চাঁন ভাই, কারোর নাম নাসির ভাই আবার কারোর নাম মোঃ দুলাল ভাই। এরা ছোট ছোট টোকেনে তাদের গেস্ট হাউজের বা আবাসিক হোটেলে ঠিকানা এবং মোবাইল নাম্বার দিয়ে ঢাকা শহরে বিভিন্ন এলাকায় জনগনের মাঝে লোক মারফতে দিয়ে থাকে। এ ধরনের কার্ড বা টোকেন বিলি করতে তারা বেছে নেয় জনবহুল স্থান যেমন টঙ্গি চেরাগ আলি ওভার ব্রীজ,টঙ্গী বাজার ওভার ব্রীজ,হাউজ বিল্ডিং ওভার ব্রীজ,বিডিয়ার মার্কেট ওভার ব্রীজ, আজমপুর ওভার ব্রীজ,এইচ এম প্লাজার সামনে ওভার ব্রীজ,জসিমউদ্দিন ওভার ব্রীজ। এ সব ব্রীজ পাড় হওয়ার সময় স্কুল-কলেজ পড়–ুয়া ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে এই টোকেন ধরিয়ে দেয় তারা  শুধু তারা শিক্ষার্থীদের মাঝে নয় সকল শ্রেনির মাঝে এই টোকেন ধরিয়ে দেয়। টোকেনে লেখা থাকে তাদের নাম,মোবাইল নাম্বার এবং আবাসিক হোটেল বা গেস্ট হাউজের লোকেশন। এমকি তাদের টোকেনে লেখা থাকে তাদের গেস্ট হাউজে আসার পূর্বে মোবাইলে যোগাযোগ করে আসার কথা। এর পরে কোন মেয়ে যদি ফোন করে তাদেরকে লোভনিয় প্রস্তাব দেখিয়ে তাদের গেস্ট হাউজে নিয়ে যৌন ব্যবসার মত সমাজে জঘন্য ব্যবসায় লিপ্ত হচ্ছে এই দুলাল,চাঁন,নাসিররা। এবং এই সকল উঠতি বয়সের মেয়েরা সে সব গেস্ট হাউজে গেলে এবং যৌন হয়রানিতে শিকার হলে পরবর্তিতে তাদেরকে এ ব্যবসার সম্পর্কে প্রকাশ না করার জন্য এই জঘন্য ব্যবসায়ি ও দালালরা ভয়-ভীতি দেখায়। আরো তথ্য নিয়ে জানা গেছে বর্তমান সমাজের যুবকেরা এধরনের টোকেন হাতে পেয়ে তার সে সব গেস্ট হাউজ ও হোটেল গুলাতে যেয়ে হারাচ্ছে তাদের টাকা-পয়সা,মোবাইল এবং পরবর্তিতে এই যুবকেরা তখন সমাজে বিভিন্ন অসামাজি ও অপরাধমুলক(সন্ত্রাস,চাাঁদাবাজি) কর্মকান্ডের লিপ্ত হয়ে যাচ্ছে।এদিকে ৩০ মার্চ সকাল ১০ টায় এক ছেলে বিডিয়ার মার্কেটের সামনে ওভার ব্রীজের উপরে স্কুল-কলেজে ছাত্র-ছাত্রী সহ অভিভাবকদের এই টোকেন বিলি করার সময় কয়েকজন স্থানিয় যুবক তাকে ধরে মার দিয়ে পরে ছেড়ে দেয় বলে জানা গেছে। এদিকে এক সাংবাদিক গ্রাহক হিসেবে দুলালকে ফোন দিলে তিনি বলেন এখানে মেয়েদের সাথে সহবাস করতে হলে ১০০০ হাজার টাকা লাগে। প্রতিবারই ১০০০ টাকা এবং এসব গেস্ট হাউজে বাহিরের থেকে মেয়ে নিয়ে যাওয়া যাবেনা বলে জানায়। এই যদি হয় দেশের সামাজি অবস্থা তাহলে কোথায় থাকলো সভ্য সমাজ ? দেখেন সভ্যজাতি আপনাদের কাছে প্রশ্ন এই মোঃদুলাল,নাসির ও হেলাল কারা ? টঙ্গি এলাকায় কিছু বসবাসরত সাংবাদিকদের বলেন আমরা আমাদের ছেলে-মেয়েদের নিয়ে সুষ্ঠ ভাবে বসবাস করতে পারিনা। এই জঘন্যতর ব্যবসা শুধু টঙ্গি নয় সারা উত্তরে বিস্তার করেছে। আর প্রশাষন কেনো নিরব? তাহলে কি  যুব সমাজ ধবংশ হয়ে যাবে আর এই জঘন্য অপরাধিদের ভয়ে মেয়েরা তাদের  ইজ্জত বিলিন করেদেবে নিরবে। এ ধরনের সমাজের জঘন্য অপরাধিদের কি কোন বিচার হবে না? এধরনে যৌন ব্যবসায়িদের সমাজে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবে করে এ শিক্ষিত সমাজ।

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK