সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯
Saturday, 24 Aug, 2019 09:55:32 pm
No icon No icon No icon

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় ১৭ জন নিহত

//

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় ১৭ জন নিহত


টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: সড়ক দুর্ঘটনায় ফরিদপুরের সদরে সেতু থেকে বাস খাদে পড়ে ৮ জন ও নগরকান্দায় বাসচাপায় তিনজন, দিনাজপুরের হিলিতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় একজন, হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে ট্রাকচাপায় একজন, বগুড়ায় বাস উল্টে একজন সেনাসদস্য, ঠাকুরগাঁওয়ে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একজন হেলপার, পাবনার ঈশ্বরদীতে বাসের ধাক্কায় কলেজছাত্র এবং ঢাকার আশুলিয়ায় বাসচাপায় নিরাপত্তা কর্মী নিহত হয়েছেন।
শনিবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব দুর্ঘটনা ঘটে।প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :
ফরিদপুর : ফরিদপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহত এবং ১৫ জন আহত হয়েছেন। আজ শনিবার দুপুর সোয়া দুইটার দিকে ঢাকা-ফরিদপুর মহাসড়কের ফরিদপুর সদরের ধুলদী রেলগেট এলাকায় সেতু থেকে বাস পড়ে আটজন এবং বিকেল পৌনে তিনটার দিকে নগরকান্দা উপজেলার তালমা মোড়ে বাসচাপায় তিনজন নিহত হন।
পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা জানায়, ঢাকা থেকে কমফোর্ট লাইনের যাত্রীবাহী একটি বাস গোপালগঞ্জ যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ধুলদি ব্রিজের কাছে বিপরিত দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলকে চাপা দিয়ে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারায়। এ সময় সামনের এক ব্রিজের রেলিং ভেঙ্গে বাসটি নিচে পড়ে উল্টে যায়। এতে বাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই বাসের ছয়জন যাত্রী নিহত হয়। দুর্ঘটনার পর স্থানীয় এলাকাবাসীর সহায়তায় ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ উদ্ধার অভিযান চালায়। আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে মারা যায় আরও দুজন।
এদিকে বিকেল পৌণে তিনটার বরিশাল-ফরিদপুর মহাসড়কের নগরকান্দা উপজেলার তালমা মোড়ে আর কে পরিবহনের নামে একটি লোকাল বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা যাত্রী মা ও ছেলেকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তারা নিহত হয়। এছাড়া ওই বাসটি আরেকটি মাহেন্দ্রকে চাপা দিলে মাহেন্দ্রর পাঁচযাত্রী আহত হয়। হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় আবুল সিকদার নামের এক পথচারী। খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।
দিনাজপুর : দিনাজপুরের হিলি বন্দরে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় নজরুল ইসলাম (৬০) নামে ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি পেশায় একজন ট্রাক শ্রমিক। আজ শনিবার দুপুরে হিলি বন্দরের কলেজ রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, কলেজ রোড এলাকায় রাস্তা পারাপারকালে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় তিনি গুরুতর আহত হন। তাকে প্রথমে হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রংপুর মেডিক্যালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান। নজরুল ইসলাম দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার ধরন্দা গ্রামের মৃত ময়েজ উদ্দিন শেখের ছেলে।
হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে ট্রাকচাপায় আজাদ মিয়া (২৫) নামের এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (২৪ আগস্ট) সকাল ৭টায় উপজেলার অলিপুর নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শ্রমিক ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর থানার বারগিরা গ্রামের মোহন মিয়ার ছেলে। সে হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক প্রাণ কস্পানিতে শ্রমিক হিসাবে কর্মরত ছিল।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত মোহন ফ্যাক্টরিতে যাওয়ার পথে একটি ট্রাক চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্য হয়। খবর পেয়ে শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন। শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি লিয়াকত আলী দুর্ঘটনার বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
বগুড়া : শনিবার দুপুরে রংপুর-বগুড়া মহাসড়কে শিবগঞ্জ উপজেলার রহবল নামক স্থানে এক যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে খাদে উল্টে পড়ে গেলে ঘটনাস্থলে এক সেনাসদস্য নিহত এবং ছয়জন আহত হয়েছে।
গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের ওসি আব্দুল কাদের জিলানী জানান, লক্ষ্মীপুর জেলা থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস রংপুরের উদ্দেশে যাচ্ছিল। বাসটি বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার রহবল নামক স্থানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। এ সময় বান্দরবনে কর্মরত সেনাসদস্য সার্জেন্ট আব্দুল আজিজ (৪৫) ঘটনাস্থলে মারা যান। তার বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলায়। তিনি লক্ষ্মীপুর থেকে সৈয়দপুর সেনানিবাসে যাচ্ছিলেন। বাসটি হাইওয়ে পুলিশের হেফাজতে আছে। এ ঘটনায় ছয়জন আহত হয়েছে। আহতরা স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎিসাধীন।
ওদিকে নিহত সেনাসদস্য লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের চর জাঙ্গালিয়া গ্রামের নুরুল হুদার ছেলে। তার মৃত্যুর খবরে গ্রামের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে। বৃদ্ধ বাবা-মা বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন। দুই শিশু সন্তানের ভবিষৎ ভাবনায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন নিহতের স্ত্রী।
ঠাকুরগাঁও : চালকের অসতর্কতা ও অদক্ষতার কারণে ঠাকুরগাঁওয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন গাড়ির হেলপার মো. ইউসুফ (৩৪)। তার বাড়ি চাঁদপুর জেলায়। এ ঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ১২ যাত্রী।
শনিবার সকালে সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের ঠাকুরগাঁও দিনাজপুর মহাসড়কের বনবিভাগ কার্যালয়ের সামনে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা তাজ পরিবহন নামে নৈশকোচটি নিয়ন্ত্রণ হারালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি আশিকুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চত করেছেন। 
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে তিনি জানান, শনিবার সকালে ঢাকা থেকে তাজ পরিবহন নামে নৈশকোচটি পঞ্চগড়ের উদ্দেশে যাচ্ছিল। এ সময় সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের জেলা বনবিভাগ কার্যালয়ের সামনে এসে পৌঁছলে কোচটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা খায়। এতে ওই যাত্রীবাহী বাসটি উল্টে গেলে হেলপারসহ ১৩ জন আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর কোচের হেলপার ইউসুফ মারা যান। আহতরা একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
পাবনা : কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে কুষ্টিয়া থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় ব্যাটারি চালিত অটো রিকশার যাত্রী কলেজছাত্র ইমন (১৭) নিহত ও তার বন্ধু সম্রাট (১৭) এবং অটোরিকশা চালক মোয়াজ্জেম হোসেন (৩০) গুরুতর আহত হয়েছেন। 
আজ শনিবার দুপুরে পাবনা ঈশ্বরদীস্থ (কুষ্টিয়া-দাশুড়িয়া) মহাসড়কের মুন্নার মোড়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ইমন উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের মুন্নার মোড় এলাকার ননিজ ফকিরের ছেলে ও ঈশ্বরদী সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির প্রথম বর্ষের ছাত্র। আহত সম্রাট দাশুড়িয়ার নওদাপাড়ার বকুল হোসেনের ছেলে এবং একই কলেজের একাদশ শ্রেণির প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিল। অটো রিকশা চালক মোয়াজ্জেম একই এলাকার হাসান আলীর ছেলে। 
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার সময় কলেজের কয়েকজন ছেলে মেয়ে দাশুড়িয়ার দিক থেকে মুন্নার মোড়ে এসে একজন ছাত্রীকে নামিয়ে দেয়। অটোটি নিহত ইমনের বাড়ির দিকে যাওয়ার জন্য রাস্তায় মোড় নেওয়ার চেষ্টা করে। এই সময় কুষ্টিয়া থেকে ঢাকা গামী দ্রুতগতিতে আসা যাত্রীবাহী একটি বাস অটোটিকে ধাক্কা দিলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ইমনকে মৃত ঘোষণা করেন।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) অরবিন্দ সরকার জানান, ঘাতক বাস ও চালকদের আটক করা সম্ভব হয়নি।
ঢাকা : সাভারের আশুলিয়ায় বাসচাপায় মন্জুরুল ইসলাম (৩০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি একটি বেসরকারি সংস্থার নিরাপত্তা কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আজ শনিবার সকালে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের আশুলিয়ার ডিইপিজেড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহত মন্জুরুল সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি থানার নুর ইসলামের ছেলে। তিনি একটি বেসরকারি সংস্থার সিকিউরিটি গার্ড হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুস সালাম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়ক দিয়ে বলিভদ্র থেকে ডিইপিজেড যাওয়ার পথে পেছন থেকে দ্রুত গতিতে আসা রকি এন্টারপ্রাইজ পরিবহনের দূরপাল্লার বাস তাকে চাপা দেয়। এ ঘটনায় তিনি মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।
দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় ঘাতক বাসটিকে আটক করা গেলেও চালক পালিয়ে গেছে।
সূত্র: কালের কণ্ঠ।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK