শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Saturday, 01 Jun, 2019 12:21:38 am
No icon No icon No icon

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির তালিকায় অভিযুক্ত শিক্ষক

//

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির তালিকায় অভিযুক্ত শিক্ষক

টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষককে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হিসেবে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আর্খিক অনিয়ম, নম্বরে ট্যাম্পারিং, যৌন হয়রানিসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি ছাত্র আন্দোলনের মুখে ভিসিকে পদত্যগে বাধ্য করানো এমন একটি বিশ্ববিদ্যাল অভিযুক্ত শিক্ষককে ভিসি হিসেবে নিয়োগ দিলে আবারে আন্দোলন মাথাচারা দিয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানা যায়, ছাত্র আন্দোলনের মুখে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি। এর পর থেকে ওই পদটি শূণ্য রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. একিউএম মাহবুবের নাম প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। অনুসন্ধানে জানা যায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভুগোল ও পরিবেশ বিভাগের ২০০৩-২০০৪ সেশনের পরীক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান ও টেবুলেটর ছিলেন অধ্যাপক মাহবুব। ওই লিখিত পরীক্ষায় বৈধভাবে ভর্তির নিয়ম না মানার অভিযোগের প্রমাণ পায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তদন্ত শেষে ৩০-১২-২০১০ তারিখে সিন্ডিকেটে তার বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। শাস্তিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে তাকে তিরষ্কার, ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করা হয় এবং পরবর্তী দুই বছর টেবুলেটিং ও সব ধরনের পরীক্ষা কমিটির কাজ থেকে তাকে অব্যাহতির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।
আরো জানা যায়, গত ৬-২-২০১৮ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে ‘বিভাগীয় কারিকুলাম প্রণয়ন’ সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অধ্যাপক মাহবুবকে বিভাগের কারিকুলাম, বিভাগীয় রেজ্যুলুশান ও ব্যয় হিসাব একই বছরের ৩০ এপ্রিল আইকিউএসি-ঢাবি (ওছঅঈ-উট) কার্য্যালয় জমা দেয়ার জন্য বলা হয়েছিলো। ওই সময়ের মধ্যে তিনি তা জমা দেননি। এরপর আবারো চিঠি দিয়ে তাকে ২৫-২-২০১৯ তারিখে জমা দেয়ার কথা বলা হলেও তিনি অদ্যবধি তা জমা দেননি।
বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেকটি সূত্র জানায়, সান্ধ্যকালীন কোর্সের প্রধান হিসেবে একজন শিক্ষত তিন বছর থাকতে পারেন। কিন্তু অধ্যাপক মাহবুব প্রভাব খাটিয়ে প্রায় দশ বছর ধরে প্রধান হিসেবে আছেন। ওই কোর্স থেকে আয়ের হিসেবেও গড়মিল থাকার অভিযোগ রয়েছে।
অনুসন্ধানে আরো জান যায়, ওই বিভাগেরই একজন নারী শিক্ষিকা অধ্যাপক মাহবুবের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানীর লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন। এ ছাড়াও তার প্রথম স্ত্রী তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন। তার বিরুদ্ধে পছন্দের শিক্ষার্থীদের বেশি নম্বর আর দেয়া ও অপছন্দের শিক্ষার্থীদের কম নম্বর দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। 

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK