সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮
Monday, 11 Jun, 2018 10:11:27 am
No icon No icon No icon

খিলক্ষেতের ডুমনি উনিয়নের সকল রাস্তার বেহাল দশা, দেখার কেউ নেই?


খিলক্ষেতের ডুমনি উনিয়নের সকল রাস্তার বেহাল দশা, দেখার কেউ নেই?


হাফিজুর রহমান, টাইমস ২৪ ডটনেট, ঢাকা: রাজধানির খিলক্ষেত থানার অন্তরগত ডুমনি ইউনিয়নের  সকল রাস্তাঘাটের বেহাল দশা। দেখার যেন কেউ নেই ? অভিযোগ ডুমনি বাসির। তারা বলেন ডুমনি ইউনিয়নের জন সংখ্যা প্রায় ১৫ হাজারের  ইপরে।এ সকল জনগনের চলাচলের ২ টি রাস্তায়ী প্রধান। প্রথমত পাতিরা ইছপুরা ব্রিজ হতে খিলক্ষেত বাজার দ্বিতিয় রাস্তা পাতিরা পশ্চিম পাড়া সুলতান মার্কেট হতে তলনা হাই স্কুল পর্যন্ত। এ রাস্ততার মধ্যে প্রধান রাস্তাটি ইছাপুরা বাজার ব্রিজ হতে খিলক্ষেত বাজার। এই  রাস্তায় দির্গ দিন ধরে গাড়ি চলাচল দুরের কথা মানুষ হাটা চলাচল করার অনউপযোগি হয়ে পরেছে। জাগায় জাগায় গভির গর্থ হয়ে আছে, বৃষ্টির পানি ও কাধায় বড়ে থাকে পুরো রাস্তাঘাট।এ অবস্তা দেখেও না দেখার বান করে থাকেন দলীয় নেতা ও ইউপি সদস্যগন।তারা জনগনের সেবার ধাইত্ব্যে অবহেলা কেন করেন ? এসব প্রশ্ন জনগনের মনে।রাস্তা বাঙ্গার কারন জান্তে চাইলে
ডুমনি এলাকাবাসি টাইমস ২৪ ডটনেটকে বলেন, আমাদের এ রাস্তা বাঙ্গার কারন এক মাত্র পাতিরাতে গড়ে উঠা কয়েকটি বালুর গদি, আর গদির গাড়ি ট্রাক,ড্রাম ট্রাক, ইছার মাথা (ট্রাক্টর) দিন রাত চলত  এ রাস্তায়। এখন রাস্তা বেঙ্গে যাওয়ার কারনে বালুর গদির কোন গারি চলে না এ রাস্তায়, যত দুরভোগ ফুহাতে হচ্ছে আমাদের। তারা আরো দুঃখের সাথে বলেন আমাদের এখন চলাচলের যান বাহন ইজি বাইক ( অটো রিক্সা) এখন এ ইজি বাইক ঠিকমত চলতে পারে না, কিছু চললেও আমাদের ২০ টাকা ভারার জায়গায় গুনতে হয় ৫০ থেকে ৮০ টাকা। প্রায় সময় গটে দুরগঠনা।তারা আরো দুঃখের সাথে বলেন।আমাদের চেয়ারম্যান শরিফ সাহেব থাকেন বসুন্ধধারায় সপ্তাহে আশে দু এক দিন আশে,দেখে না জনগনের দুঃখ দুরদশা। ওদিগে আবার আওয়ামীলীগের বড় দুই নেতা সভাপতি মোমেন মিয়া সাধারন সম্পাদক মোক্তার হোসেন তারা দুজনই পাতিরা গ্রামের, আর তাদের গ্রামের লোকজনই এসব রাস্তার গতি করছে বলে যোরাল অভিযোগ করেন স্হানীয়।এ দিকে দ্বিতীয় রাস্তা পাতিরা পশ্চিম পাড়া সুলতান মার্কেট হতে তলনা হাই স্কুল পর্যন্ত।এ রাস্তায় ৩ টি গ্রামের মানুষের বসবাস মস্তল,ডেলনা,তলনা, এসব এলাকার মানুষের  ডুমনি বাসির চাইতে কোন অংশে  কম নেই দুঃখ যন্ত্রণার আর দুরদশার।সরেজমিনে গুড়ে যানা যায়,মস্তুল গ্রামে সরকারি জমিতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান  A B C ও N D E রেডমিক্স কোম্পানি গড়ে উঠেছে। এলকাবাসি অভিযোগ করেন, প্রতিষ্ঠান  দুটি রাস্তার বেপক ক্ষতি করে যাচ্ছে  এর সাথে আরো বলেন পাতিরাতে গড়ে উঠা কয়েকটি বালুর গদির গাড়ি যেমন ইছার মাথা( ট্রাক্টর), ট্রাক, ড্রামট্রাক, এসব গাড়ি ডুমনির রাস্তাকে নষ্ট  করে এখন আমাদের  মস্তুলের ৬০ বাঘ রাস্তা নষ্ট  করে ফলেছে।মস্তল বেলতলা হাবিজ নগর জামে মসজিদের নির্মান কাজ চলছে,মসজিদের সামনে কয়েকটি বড় বড় গর্থ হয়ে গেছে।মস্তুতু হাবিজ নগর জামে মসজিদ কমিটি  মসজিদের সামনে গর্থে দু এক দিন পর পর রাবিশ ফেলেও ঠিক রাকতে পারছেনা।পুরো রাস্তায়ী গর্থ ও কাদা  মাটি আর পানি জমে থাকার কারনে মুসুল্লি  ঠিকমতো মসজিদে আসতে পাচ্ছে না বলে  অভিযোগ মস্তুল বাসির।এ রাস্তায় ডেলনা, তলনা, মানুষের চলাচল তাদেরকেও  চরম দুরবোগের শিকার হতে হচ্ছে। এলাকা সুত্রে জানা যায় ডুমনি ইউনিয়ন আওয়মীলীগের সভাপতি মোমেন মিয়া নেত্রিত্ব্যে পাতিরা গ্রামের আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনে ৫০-৬০ জন নেতা কর্মী   A B C   ও N D E কোম্পানিকে রাস্তা মেরামতের জন্য সাশিয়ে বলেন । বালু পাথরের কাজ আমাদেরকে দিতে হবে,না দিলে সকল বালু পাথরের টলার জাহাজ বন্দ করে দেওয়া হবে।পাতিরা আওয়ামীলীগ নেতারা ১ ডিলে ২ পাখি শিখার করতে চায়।ডুমনি ইউনিয়ন বাসি, চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য এবং পাতিরার নেত্রিবিন্ধু প্রতি আহবান জানান, যাতে বালুর গদির গাড়ি নিয়ন্ত্রীত ভাবে চলেন সেই ব্যাবস্হানিতে। এবং দ্রুত ভাবে এই রাস্তা মেরামত করার জন্য জেলা প্রশাসক ও এল জি ডি মন্ত্রনালয় এবং ঢাকা১৮ আসনের এম পি সাহারা খাতুনের সুদৃষ্টি কামনা করেন। ডুমনি ইউনিয়নের ভোক্ত ভোগি সাধারন মানুষ।

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK