বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭
Friday, 01 Dec, 2017 12:54:22 am
No icon No icon No icon

দক্ষিন কেরানীগঞ্জে দুই ব্যবাসায়ীকে হয়রানী মূলক গ্রেফতার ও অর্থ আদায়ের অভিযোগ


দক্ষিন কেরানীগঞ্জে দুই ব্যবাসায়ীকে হয়রানী  মূলক গ্রেফতার ও অর্থ আদায়ের অভিযোগ


টাইমস ২৪ ডটনেট, কেরানীগঞ্জ থেকে: দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানাধীন কলাকান্দী এলাকায় সৌদি প্রবাসীর জমি সংক্রান্ত ঘটনায় প্রবাসীর চাচা ব্যবসায়ী মোঃ শাহাদাত ও মো সিরাজুল ইসলামকে হয়রানীমূলক গ্রেফতার করাসহ বাড়ির ভাড়াটিয়া আব্দুল আওযালের যোগসাজশে এএসআই তৈয়ব আলীর বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগীর ভাতিজা প্রবাসী মোঃ আশরাফুল ইসলাম সুজন। এএসআই তৈয়বের  দফায় দফায়  হয়রানীমূলক গ্রেফতার করে মোটা অংকের টাকা দিযে  ছাড়া পেয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে ওই দুই ব্যবসায়ী । হয়রানীমূলক গ্রেফতার ও অর্থবানিজ্যের ঘটনা গতাকাল বৃহস্পতিবার ফাঁস হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
  বুহস্পতিবার কলাকান্দী এলাকার সৌদি প্রবাসী মোঃ আশরাফুল ইসলাম সুজন অভিযোগ করে বলেন, তিনি আব্দুল্লাহ পুর মৌজার দুই শতাংশ জমি ও দ্বিতীয় তলা বাড়ি মৃতঃ সোনা মিয়ার মেয়ে শাহানাজ বেগমের কাছ থেকে ৪ বছর আগে ক্রয় করে ভোগ দখলে করে আসছেন। বোন শাহানাজ বেগম ভাই আব্দুল আওয়ালের কাছে ওই দুই শতাংশ জমি ও দ্বিতীয তলা টিন সেট বাড়ি বিক্রি না করায় আওয়াল এতে বাঁধ সাধে। আব্দুল আওযাল কৌশলে তার ক্রয়কৃত জমিতে বাড়ির দ্বিতীয় তলার ছাদে টিনসেট ভাড়া নেয়। এরপর থেকে আওয়াল জমি ও বাড়ি বিক্রির প্রস্তাব দেন তাকে। তিনি জমি ও বাড়ি বিক্রি না করায় বিভিন্ন সময় পুলিশ দিযে হয়রানী করে আসছে। তিনি ক্রয়কৃত জমিতে থাকা ভবনের নিচের অংশ সংস্কার করার জন্য উদ্যোগ নিলে গত ১ নভেম্বর তার দুই ব্যবাসয়ীক চাচা শাহাদাত ও সিরাজুল কে হয়রানীমূলক গ্রেফতার করে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার এএসআই তৈয়ব। ওই এএসআই এরপর  ্উপস্থিত লোক মারফত ৫০হাজার টাকা নেন ও সাদা কাগজে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়। তারপর এএসআই তৈয়ব ৮ নভেম্বর চাচা সিরাজুলকে ফের হয়রানীমূলক গ্রেফতার করে টাকা নিয়ে ছেড়েছে। অর্থের লোভে ওই এএসআই তাদের পরিবার বর্গকে হয়রানী করে আসছে। দুই দফায় এএআই তৈয়ব দুই দফায় দেড়লাখ ঘুষ নেয় বলে প্রবাসী আশরাফুল ইসলাম সুজন অভিযোগ করেন। জমি ও বাড়ি বিক্রেতা শাহানাজ বেগম জানান, আমার দুই সত বোন ও আমি এবং আমার আপন ভাই আব্দুল আওযালকে আদালতে মাধ্যমে পৈতিক সূত্রের জমি বন্টকনামা করে দেন। আমার অংশ দুই শতাংশ চাচাতো ভাই অন্ধ আনোয়ার হোসেনের ছেলে সৌদি প্রবাসী আশরাফুল ্ইসলাম সুজনের নিকট উপযুক্ত দামে ৪বছর আগে বিক্রি করি। আমার ভাইয়ের কাছে বিক্রি না করায় ভাই আওয়াল কৌশলে বিক্রিত জমির বাড়িতে ভাড়া থেকে জমির মালিককে নানা ভাবে হয়রানী করে আসছে। হয়রানীমূলক গ্রেফতার ও অর্থঅদায়কারী এএআই তৈয়বের হাত থেকে রক্ষার জন্য আইজিপি, ডিআইজি ও ঢাকা জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সৌদি প্রবাসী আশরাফুল ইসলামা সুজন। এ ব্যাপারে ওসি মোঃ মনিরুল ইসলামের মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি কল রিসিপ করেনি। 

 

এই রকম আরও খবর




Editor: Habibur Rahman
Dhaka Office : 149/A Dit Extension Road, Dhaka-1000
Email: [email protected], Cell : 01733135505
[email protected] by BDTASK